বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ০৬:৫৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরের সন্তান অতিরিক্ত সচিব শিশির রায় কে ফুলেল শ্রদ্ধায় চীরবিদায় সিলেটে হিরন মাহমুদ নিপু আটক তারেক জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে জগন্নাথপুরে ছাত্রদলের এতিমদের মধ্যে খাদ্য বিতরণ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত সসীমের অসহায়ত্ব -মোহাম্মদ হরমুজ আলী তারেক জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে জগন্নাথপুরে বিএনপির দোয়া মাহফিল পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান জগন্নাথপুরে কাল আসছেন জগন্নাথপুরে বাজার মনিটরিং করলেন পুলিশের এএসপি ধর্মঘট স্থগিত, যান চলাচল শুরু ঢাকা-চট্টগ্রাম-সিলেট মহাসড়কে প্রতিকূলতা উপেক্ষা করে নেদার‌ল্যান্ডসের রাজধানীতে প্রথমবার মাইকে আজান জগন্নাথপুরের কৃতি সন্তান অতিরিক্ত সচিব শিশির রায় আর নেই

আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলার রায়ে ৩ জঙ্গির ফাঁসি হওয়ায় জগন্নাথপুরবাসী আনন্দিত

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৩ এপ্রিল, ২০১৭
  • ৫৪ Time View

স্টাফ রিপোর্টার:: জগন্নাথপুরের কৃতি সন্তান উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের প্রভাকরপুর গ্রামের বাসিন্দা বাংলাদেশে নিযুক্ত সাবেক বৃটিশ রাষ্ট্রদূত আনোয়ার চৌধুরীর ওপর বোমা হামলার ঘটনায় মুফতি হান্নানসহ ৩ জঙ্গির ফাঁসির রায় কার্যকর হয়ায় জগন্নাপুরবাসী আনন্দিত। সন্তোষ প্রকাশ করেছেন জগন্নাথপুরবাসী ও আনোয়ার চৌধুরীর স্বজনরা। রায় বাস্তবায়নের পর এক প্রতিক্রিয়ায় পাটলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সিরাজুল হক বলেন,পাটলীতথা সারাদেশের গর্ব সাবেক ব্রিটিশ হাই কমিশনার আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলার ঘটনায় তিন জঙ্গির ফাঁসি কার্যকর হওয়ায় আমরা আনন্দিত। ন্যায় বিচার পাওয়ায় ইউনিয়নের একজন জনপ্রতিনিধি হিসেবে ভাল লাগছে।
জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বিজন কুমার দেব বলেন, সাবেক ব্রিটিশ হাই কমিশনার আনেয়ার চৌধুরী জগন্নাথপুরতথা বাঙ্গালি জাতির গর্ব। তাঁর ওপর গ্রেনেড হামলার অভিযুক্ত তিন জঙ্গির ফাঁসি হওয়ায় ন্যায় বিচারপ্রাপ্তির বিষয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। বহিবিশ্বে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে। সেই সাথে জঙ্গিবাদ নিমূলে এই দন্ড কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

জগন্নাথপুর উপজেলার ২নং পাটলি ইউনিয়নের প্রভাকরপুর চৌধুরী বাড়ির বাসিন্দা আনোয়ার চৌধুরীর চাচাতো ভাই শাহ রুমি চৌধুরী বলেন, ‘আনোয়ার চৌধুরী বিশ্বের বুকে বাংলাদেশকে নতুনভাবে পরিচয় করিয়ে দিয়েছিলেন। তার ওপর জঙ্গিরা গ্রেনেড হামলা করে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করেছে। আদালতে হামলাকারিদের ফাঁসির রায় কার্যকর হওয়ায় আমরা খুশি।’ আর যেন কেউ কারও ওপর জঙ্গি হামলা করতে না পারে সেজন্য তিনি সরকারের সজাগ দৃষ্টি রাখার দাবি জানান।

আনোয়ার চৌধুরীর চাচাতো বোন মোছা. মমতা চৌধুরী বলেন, ‘আনোয়ার চৌধুরীর শৈশব কেটেছে প্রভাকরপুর গ্রামে। এ গ্রামের প্রভাকরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তিনি কিছুদিন লেখাপড়া করেছেন। তার মতো মানুষকে বোমা হামলা করে জঙ্গিরা মেরে ফেলতে চেয়েছিল যা মোটেও কাম্য নয়।’

অপর চাচাতো ভাই এমরান চৌধুরী বলেন, ‘শাহ জালালের পূণ্য ভূমিতে জঙ্গিরা বোমা হামলা করে তাকে হত্যা করতে চেয়েছিল। জঙ্গিদের মিশন সফল হলে বাংলাদেশ এক উজ্জ্বল প্রতিভাবান কূটনীতিককে হারাতো।’

পাটলি ইউনিয়নের প্রভাকরপুর গ্রামের ইউপি সদস্য মো. ছায়েদুর রহমান ছায়েদ বলেন, ‘জঙ্গিরা দেশ ও জাতির শত্রু।এদেরকে নির্মূল করতে হবে। আনোয়ার চৌধুরী শুধু সুনামগঞ্জবাসীর গর্ব নয় সারা বাংলাদেশের গর্ব। তাকে হত্যা করে দেশের অপূরনীয় ক্ষতি করতে চেয়েছিল।

জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র হাজী আব্দুল মনাফ বলেন, ‘আনোয়ার চৌধুরী জগন্নাথপুরের কৃতি সন্তান। তার ওপর যারা গ্রেনেড হামলা করেছিল তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি দ্রুত কার্যকর হওয়ায় জগন্নাথপুরবাসী কৃতজ্ঞ।’
জগন্নাথপুরে প্রেসক্লাব সভাপতি শংকর রায় বলেন, আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলার রায় কার্যকর হওয়ায় জগন্নাথপুরবাসী আনন্দিত।

উল্লেখ্য, উল্লেখ্য সিলেটের হযরত শাহজালালের (রা.) মাজারে ২০০৪ সালের ২১ মে আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলা হয়। হামলায় আনোয়ার চৌধুরী, সিলেটের জেলা প্রশাসকসহ অর্ধশতাধিক ব্যক্তি আহত এবং পুলিশের দুই কর্মকর্তাসহ তিনজন নিহত হন। ওই মামলায় ২০০৮ সালের ২৩ ডিসেম্বর বিচারিক আদালত ৫ আসামির মধ্যে মুফতি হান্নান, শরীফ শাহেদুল বিপুল ও দেলোয়ার হোসেন রিপনকে মৃত্যুদণ্ড এবং মহিবুল্লাহ ও আবু জান্দালকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ১৯ মার্চ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে মুফতি হান্নানের রিভিউ আবেদন খারিজ করে আগের রায় বহাল রাখেন। এরপর তিন আসামিই রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করেন। রাষ্ট্রপতি আবেদন খারিজ করে দেন। বুধবার রাতে গাজীপুরের কাশিমপুর হাইসিকিউরিটি কারাগারে মুফতি হান্নান ও বিপুলের এবং সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে রিপনের মৃত্যুদণ্ড কার্যরর করা হয়। এখবরে জগন্নাথপুরতথা তাঁর নিজ জন্মভূমি জগন্নাথপুরে আনন্দ দেখা দেয়। সাবেক এই ব্রিটিশ হাই কমিশনার বাংলাদেশে দায়িত্বপালনকালীন সময়ে জগন্নাথপুরে এসে নিজ জন্মভূমি ঘুরে গেছেন। তাঁর শৈশব কৈশোরের স্মৃতি বিজড়িত প্রভাকরপুর গ্রামের মাঠ,স্কুল নদী সাঁতার কাটাসহ অসংখ্য স্মৃতির কথা সাংবাদিকদের নিকট তুলে ধরেছিলেন। তিনি প্রভাকরপুর গ্রামের বাড়িতে থাকা তাঁর একমাত্র ফুফুকে দেখে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন্। জগন্নাথপুরের সার্বিক উন্নয়নে তৎকালীন সময়ে তাঁর বাসভবনে তিনি জগন্নাথপুর প্রেসক্লাব নেতাদের সাথে বৈঠক করেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24