বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯, ০২:১৫ পূর্বাহ্ন

ইঞ্জিন ছাড়াই ১০ কিলোমিটার চললো ট্রেন!

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ৮ এপ্রিল, ২০১৮
  • ৪০ Time View

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক:: ভারতের উড়িষ্যায় ইঞ্জিন ছাড়াই প্রায় ১০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়েছে যাত্রীবাহী একটি ট্রেন।

শনিবার রাত ১০টার দিকে আহমেদাবাদ-পুরি এক্সপ্রেস টেনটি উড়িষ্যার টিটলাগড় স্টেশন থেকে ইঞ্জিন ছাড়াই কেসিঙ্গার দিকে প্রায় ১০ কিলোমিটার পথ চলে যায় বলে এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এতে বলা হয়, টিটলাগড় স্টেশনে ট্রেনটির অন্যপ্রান্তে সংযুক্ত করার জন্য ইঞ্জিনটি আলাদা করা হয়। কিন্তু দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মী স্কিড ব্রেক প্রয়োগ না করায় ইঞ্জিন ছাড়াই চলতে শুরু করে ট্রেনটি। এক পর্যায়ে অসময়ে ট্রেনটির এমন চলন দেখে টনক নড়ে রেলকর্মীদের। পরে তারা রেললাইনে পাথর রেখে ট্রেনটিকে থামাতে সক্ষম হন। তবে তার আগেই ট্রেনটি পাড়ি দেয় ১০ কিলোমিটার পথ।

ইস্ট কোস্ট রেলওয়ের মুখপাত্র জানান, ট্রেনটি ইঞ্জিন ছাড়া ১০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিলেও কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি। যাত্রীদের সবাই নিরাপদ রয়েছেন। কারো কোনো আঘাত লাগেনি।

তিনি জানান, ট্রেনটির অন্যপ্রান্তে সংযুক্ত করার জন্য ইঞ্জিন আলাদা করা হলেও স্কিড ব্রেক ব্যবহার করা হয়নি। এ কারণেই ট্রেনটি চলতে শুরু করেছিল। ট্রেনটিকে থামানোর পর সেখানে ইঞ্জিন পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

রেল কর্তৃপক্ষ জানান, টিটলাগড় থেকে কেসিঙ্গার দিকে রেললাইন একটু ঢালু। এ কারণে ইঞ্জিন ছাড়া ট্রেনটি সেদিকে গড়িয়ে যায়। এ ঘটনায় রেলের দুই কর্মীকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

সম্বলপুরের ডিভিশনাল রেলওয়ে ম্যানেজার জয়দীপ গুপ্ত জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের দিয়ে ঘটনাটি তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।ভারতের উড়িষ্যায় ইঞ্জিন ছাড়াই প্রায় ১০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়েছে যাত্রীবাহী একটি ট্রেন।

শনিবার রাত ১০টার দিকে আহমেদাবাদ-পুরি এক্সপ্রেস টেনটি উড়িষ্যার টিটলাগড় স্টেশন থেকে ইঞ্জিন ছাড়াই কেসিঙ্গার দিকে প্রায় ১০ কিলোমিটার পথ চলে যায় বলে এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এতে বলা হয়, টিটলাগড় স্টেশনে ট্রেনটির অন্যপ্রান্তে সংযুক্ত করার জন্য ইঞ্জিনটি আলাদা করা হয়। কিন্তু দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মী স্কিড ব্রেক প্রয়োগ না করায় ইঞ্জিন ছাড়াই চলতে শুরু করে ট্রেনটি। এক পর্যায়ে অসময়ে ট্রেনটির এমন চলন দেখে টনক নড়ে রেলকর্মীদের। পরে তারা রেললাইনে পাথর রেখে ট্রেনটিকে থামাতে সক্ষম হন। তবে তার আগেই ট্রেনটি পাড়ি দেয় ১০ কিলোমিটার পথ।

ইস্ট কোস্ট রেলওয়ের মুখপাত্র জানান, ট্রেনটি ইঞ্জিন ছাড়া ১০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিলেও কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি। যাত্রীদের সবাই নিরাপদ রয়েছেন। কারো কোনো আঘাত লাগেনি।

তিনি জানান, ট্রেনটির অন্যপ্রান্তে সংযুক্ত করার জন্য ইঞ্জিন আলাদা করা হলেও স্কিড ব্রেক ব্যবহার করা হয়নি। এ কারণেই ট্রেনটি চলতে শুরু করেছিল। ট্রেনটিকে থামানোর পর সেখানে ইঞ্জিন পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

রেল কর্তৃপক্ষ জানান, টিটলাগড় থেকে কেসিঙ্গার দিকে রেললাইন একটু ঢালু। এ কারণে ইঞ্জিন ছাড়া ট্রেনটি সেদিকে গড়িয়ে যায়। এ ঘটনায় রেলের দুই কর্মীকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

সম্বলপুরের ডিভিশনাল রেলওয়ে ম্যানেজার জয়দীপ গুপ্ত জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের দিয়ে ঘটনাটি তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।ভারতের উড়িষ্যায় ইঞ্জিন ছাড়াই প্রায় ১০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়েছে যাত্রীবাহী একটি ট্রেন।

শনিবার রাত ১০টার দিকে আহমেদাবাদ-পুরি এক্সপ্রেস টেনটি উড়িষ্যার টিটলাগড় স্টেশন থেকে ইঞ্জিন ছাড়াই কেসিঙ্গার দিকে প্রায় ১০ কিলোমিটার পথ চলে যায় বলে এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এতে বলা হয়, টিটলাগড় স্টেশনে ট্রেনটির অন্যপ্রান্তে সংযুক্ত করার জন্য ইঞ্জিনটি আলাদা করা হয়। কিন্তু দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মী স্কিড ব্রেক প্রয়োগ না করায় ইঞ্জিন ছাড়াই চলতে শুরু করে ট্রেনটি। এক পর্যায়ে অসময়ে ট্রেনটির এমন চলন দেখে টনক নড়ে রেলকর্মীদের। পরে তারা রেললাইনে পাথর রেখে ট্রেনটিকে থামাতে সক্ষম হন। তবে তার আগেই ট্রেনটি পাড়ি দেয় ১০ কিলোমিটার পথ।

ইস্ট কোস্ট রেলওয়ের মুখপাত্র জানান, ট্রেনটি ইঞ্জিন ছাড়া ১০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিলেও কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি। যাত্রীদের সবাই নিরাপদ রয়েছেন। কারো কোনো আঘাত লাগেনি।

তিনি জানান, ট্রেনটির অন্যপ্রান্তে সংযুক্ত করার জন্য ইঞ্জিন আলাদা করা হলেও স্কিড ব্রেক ব্যবহার করা হয়নি। এ কারণেই ট্রেনটি চলতে শুরু করেছিল। ট্রেনটিকে থামানোর পর সেখানে ইঞ্জিন পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

রেল কর্তৃপক্ষ জানান, টিটলাগড় থেকে কেসিঙ্গার দিকে রেললাইন একটু ঢালু। এ কারণে ইঞ্জিন ছাড়া ট্রেনটি সেদিকে গড়িয়ে যায়। এ ঘটনায় রেলের দুই কর্মীকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

সম্বলপুরের ডিভিশনাল রেলওয়ে ম্যানেজার জয়দীপ গুপ্ত জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের দিয়ে ঘটনাটি তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।ভারতের উড়িষ্যায় ইঞ্জিন ছাড়াই প্রায় ১০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়েছে যাত্রীবাহী একটি ট্রেন।

শনিবার রাত ১০টার দিকে আহমেদাবাদ-পুরি এক্সপ্রেস টেনটি উড়িষ্যার টিটলাগড় স্টেশন থেকে ইঞ্জিন ছাড়াই কেসিঙ্গার দিকে প্রায় ১০ কিলোমিটার পথ চলে যায় বলে এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এতে বলা হয়, টিটলাগড় স্টেশনে ট্রেনটির অন্যপ্রান্তে সংযুক্ত করার জন্য ইঞ্জিনটি আলাদা করা হয়। কিন্তু দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মী স্কিড ব্রেক প্রয়োগ না করায় ইঞ্জিন ছাড়াই চলতে শুরু করে ট্রেনটি। এক পর্যায়ে অসময়ে ট্রেনটির এমন চলন দেখে টনক নড়ে রেলকর্মীদের। পরে তারা রেললাইনে পাথর রেখে ট্রেনটিকে থামাতে সক্ষম হন। তবে তার আগেই ট্রেনটি পাড়ি দেয় ১০ কিলোমিটার পথ।

ইস্ট কোস্ট রেলওয়ের মুখপাত্র জানান, ট্রেনটি ইঞ্জিন ছাড়া ১০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিলেও কোনো দুর্ঘটনা ঘটেনি। যাত্রীদের সবাই নিরাপদ রয়েছেন। কারো কোনো আঘাত লাগেনি।

তিনি জানান, ট্রেনটির অন্যপ্রান্তে সংযুক্ত করার জন্য ইঞ্জিন আলাদা করা হলেও স্কিড ব্রেক ব্যবহার করা হয়নি। এ কারণেই ট্রেনটি চলতে শুরু করেছিল। ট্রেনটিকে থামানোর পর সেখানে ইঞ্জিন পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

রেল কর্তৃপক্ষ জানান, টিটলাগড় থেকে কেসিঙ্গার দিকে রেললাইন একটু ঢালু। এ কারণে ইঞ্জিন ছাড়া ট্রেনটি সেদিকে গড়িয়ে যায়। এ ঘটনায় রেলের দুই কর্মীকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।

সম্বলপুরের ডিভিশনাল রেলওয়ে ম্যানেজার জয়দীপ গুপ্ত জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের দিয়ে ঘটনাটি তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24