বৃহস্পতিবার, ২২ অগাস্ট ২০১৯, ০২:২৫ পূর্বাহ্ন

ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে ফিলিস্তিনি আহত কিশোর মারা গেছে

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ২৮ এপ্রিল, ২০১৮
  • ৩৪ Time View

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::গাজা উপত্যকায় নিজেদের বসতবাড়িতে ফিরে যাওয়ার অধিকার দাবিতে বিক্ষোভে ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে মারাত্মকভাবে আহত হওয়ার একদিন পর এক ফিলিস্তিনি কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় একথা জানিয়েছে।-খবর এএফপির।

মন্ত্রণালয় জানায়, শুক্রবার গাজা উপত্যকার দক্ষিণাঞ্চলে বিক্ষোভ চলাকালে আজম উয়িদা(১৫) নামের এক কিশোরের মাথায় গুলি লাগে এবং পরে সে মারা যায়।

গত ৩০ মার্চ ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পর থেকে ইসরাইলি বাহিনীর গুলিতে এ নিয়ে ৪৫ জন ফিলিস্তিনি নাগরিক প্রাণ হারান।

১৯৪৮ সালে ইসরাইল রাষ্ট্রটি প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে লাখ লাখ ফিলিস্তিনিকে তাদের বসতভিটা থেকে তাড়িয়ে দেয়া হয়েছে। এখন তারা পূর্বপুরুষদের সেই ভিটামাটিতে ফিরে যাওয়ার অধিকার দাবি করছেন।

প্রায় অর্ধকোটি ফিলিস্তিনি শরণার্থী অধিকৃত পশ্চিম তীর, গাজা উপত্যকা ও ইসরাইলের পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন রাষ্ট্রে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে রয়েছেন।

তাদের বসতবাড়িতে তারা ফিরে যাওয়ার অধিকার দাবি করছেন। এমনকি যেসব ঘরবাড়ি থেকে তাদের বিতাড়িত করা হয়েছিল, সেগুলোর চাবি এখনও তাদের হাতে রয়েছে।

আগামী ১৫ মে পর্যন্ত ফিলিস্তিনিরা তাদের বিক্ষোভ অব্যাহত রাখবেন। এ সময়ের মধ্যে ইসরাইলে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস তেলআবিব থেকে জেরুজালেমে স্থানান্তর করা হবে।

জেরুজালেমকে রাজধানী করে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে চাওয়া ফিলিস্তিনিরা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এই সিদ্ধান্তে ক্ষোভে ফেটে পড়েন।

১৫ মে দিনটিকে ফিলিস্তিনিরা নাকবা বা বিপর্যয়ের দিন হিসেবে পালন করেন। কারণ ১৯৪৮ সালের এই দিনে সাত লাখ ফিলিস্তিনিকে তাদের বসতবাড়ি থেকে উচ্ছেদ করা হয়েছিল।

এক দশক ধরে ইসরাইলি অবরোধের কারণে গাজা উপত্যকায় বিপর্যয় নেমে এসেছে।

নিরাপত্তার অজুহাতে গাজার সঙ্গে নিজের সীমান্তটুকুও বন্ধ করে দিয়েছে মিসর।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24