সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ১০:৫০ অপরাহ্ন

উত্তরে আনিসুল হক ঘড়ি, তাবিথ আউয়াল বাস দক্ষিনে সাঈদ খোকন ইলিশ আব্বাস মগ প্রতীক পেয়েছেন

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ১১ এপ্রিল, ২০১৫
  • ৮৩ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক::ঢাকা উত্তর সিটিতে টেবিল ঘড়ি প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগ সমর্থিত আনিসুল হক ও বাস প্রতীক নিয়ে বিএনপি সমর্থিত তাবিথ আউয়াল এবং ঢাকা দক্ষিণে ইলিশ প্রতীকে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাঈদ খোকন ও মগ প্রতীকে বিএনপি সমর্থিত মির্জা আব্বাস মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। একই পদে জাতীয় পার্টি সমর্থিত ঢাকা উত্তরের প্রার্থী বাহাউদ্দিন আহমেদ বাবুল চড়কা এবং ঢাকা দক্ষিণে হাজী সাইফুদ্দিন আহম্মেদ মিলন সোফা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী লড়াইয়ে নেমেছেন। শুক্রবার ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলরদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা। প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পরই নির্বাচনী প্রচারণায় নেমে পড়েন প্রার্থীরা। শুরু হয় পোস্টার, ব্যানার ও লিফলেট ছাপানোর কাজ।
পছন্দের প্রতীক পাওয়ার ক্ষেত্রে কয়েকজন প্রার্থীর মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়। এক্ষেত্রে আইন অনুযায়ী লটারি করেই প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়। প্রতীক বরাদ্দের পর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের আচরণবিধি মেনে প্রচারণা চালানোর অনুরোধ জানান সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তারা। একই সঙ্গে আচরণবিধি লংঘনকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথাও স্মরণ করিয়ে দেন তারা। মূলত প্রতীক বরাদ্দ দেয়ার মধ্য দিয়ে শুরু হল প্রচারণা যুদ্ধ। আগামী ২৮ এপ্রিল দুই সিটিতে ভোট গ্রহণের দিন নির্ধারিত রয়েছে। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল নিজে উপস্থিত হয়ে প্রতীক নিলেও অনুপস্থিত ছিলেন আরেক হেভিওয়েট প্রার্থী আনিসুল হক। তার পক্ষে প্রতীক বরাদ্দ নেন ইকবাল চৌধুরী নামে এক ব্যক্তি। আনিসুল হক ও তাবিথ আউয়াল দুজনই টেবিল ঘড়ি প্রতীক হিসেবে পছন্দ করেন। লটারির মাধ্যমে টেবিল ঘড়িটি পান আনিসুল হক। পরে দ্বিতীয় পছন্দের তালিকায় থাকা বাস প্রতীক নিয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাবিথ আউয়ালকে। প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পর তাবিথ আউয়াল সাংবাদিকদের বলেন, ইতিমধ্যে আমি মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছি। উত্তরের ভোটাররা আমাকে বিজয়ী করার জন্য উন্মুখ হয়ে আছেন। আশা করি, ২৮ এপ্রিল আমার বিজয় সুনিশ্চিত ইনশাআল্লাহ।
জাতীয় পার্টি সমর্থিত প্রার্থী বাহাউদ্দিন আহমেদ বাবুল পেয়েছেন চড়কা, বিকল্পধারার নেতা মাহী বি চৌধুরী ঈগল, মো. শামছুল আলম চৌধুরী চিতা বাঘ, বিএনএফ সমর্থিত এওয়াইএম কামরুল ইসলাম ক্রিকেট ব্যাট, কাজী মো. শহীদুল্লাহ ইলিশ, মোয়াজ্জেম হোসেন খান মজলিশ ফ্লাক্স, চৌধুরী ইরাদ আহম্মদ সিদ্দিকী লাউ, মো. আনিসুজ্জামান খোকন ডিশ এন্টিনা, মো. জামান ভূঞা টেবিল, শেখ শহিদুজ্জামান দিয়াশলাই, শেখ মো. ফজলে বারী মাসউদ কমলালেবু, সিপিবির সমর্থিত প্রার্থী আবদুল্লাহ আল ক্কাফী রতন হাতি, জাসদ সমর্থিত প্রার্থী নাদের চৌধুরী ময়ূর ও গণসংহতির মো. জোনায়েদ আবদুর রহমান সাকি টেলিস্কোপ প্রতীক পেয়েছেন।
প্রতীক বণ্টনের পর সাংবাদিকদের রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শাহ আলম বলেন, নিয়ম অনুযায়ী প্রার্থীদের প্রতীক বণ্টন করেছি। প্রার্থীদের বলতে চাই, আপনারা আচরণবিধি অনুসরণ করে নির্বাচনী প্রচারণা চালাবেন। কোনো অবস্থায় বিধি লংঘনের চেষ্টা করবেন না। যদি বিধি লংঘন করেন তাহলে কমিশন কাউকে ছাড় দেবে না। প্রার্থীদের উদ্দেশে তিনি আরও বলেন, ১২ এপ্রিল খামারবাড়ির কেআইবি কমপ্লেক্সে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ সব প্রার্থীকে নিয়ে মতবিনিময় করবেন। আপনারা সেখানে যথাসময়ে উপস্থিত থাকবেন। প্রার্থীরা যেন আচারণবিধি মেনে চলেন, মূলত সে বিষয়েই ওই মতবিনিময় হবে।
এদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র পদে ইলিশ প্রতীক বরাদ্দ চান সাঈদ খোকন এবং হাতি প্রতীক চান মির্জা আব্বসাসহ ৭ প্রার্থী। সাইদ খোকন কাক্সিক্ষত ইলিশ প্রতীক পেলেও মির্জা আব্বাস পেয়েছেন মগ প্রতীক।
ইলিশ প্রতীক পাওয়ার ক্ষেত্রে অনেকটা আবেগাপ্লুত ছিলেন সাবেক মেয়র মোহাম্মদ হানিফের ছেলে সাঈদ খোকন। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, ইলিশ প্রতীক আমার মরহুম পিতা মোহাম্মদ হানিফের স্মৃতিবহন করে। এ প্রতীক নিয়েই তিনি অবিভক্ত ঢাকার প্রথম মেয়র হয়েছিলেন। এটা আমার আবেগের প্রতীক। প্রতিদ্বন্দ্বী মেয়র প্রার্থীদের উদ্দেশে আরও বলেন, আপনারা যদি এই প্রতীকটি আমাকে ছেড়ে দেন তাহলে আমি চিরকৃতজ্ঞ থাকব। পরে অন্য সব প্রার্থী ইলিশ প্রতীক দাবি থেকে সরে আসেন। দক্ষিণের রিটার্নিং কর্মকর্তা মিহির সারওয়ার মোর্শেদ ইলিশ প্রতীক সাঈদ খোকনকে বরাদ্দ দেন।
অপরদিকে মির্জা আব্বাসের পাশাপাশি আরও কয়েকজন প্রার্থী হাতী প্রতীক চাইলে রিটার্নিং কর্মকর্তা লটারি করে প্রতীক বরাদ্দ দেয়ার কথা জানান। পরে লটারিতে না গিয়ে মির্জা আব্বাসের জন্য অতিরিক্ত প্রতীক থেকে মগ বেছে নেয়া হয়। এ সময় মির্জা আব্বাসের আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া ও আবদুস সালাম উপস্থিত ছিলেন। আর জাতীয় পার্টি সমর্থিত হাজী সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন পেয়েছেন সোফা প্রতীক।
ঢাকা দক্ষিণে মেয়র পদে অন্য প্রার্থীদের মধ্যে ইসলামী আন্দোলন সমর্থিত প্রার্থী আলহাজ আবদুর রহমান পেয়েছেন ফ্লাস্ক, বিএনপির আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন কমলালেবু, আওয়ামী লীগ দলীয় সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনি আংটি, সিপিবি-বাসদ সমর্থিত প্রার্থী বজলুর রশিদ ফিরোজ টেবিল, আবদুল খালেক কেক, ভাড়াটিয়া আন্দোলন নেতা বাহারানে সুলতান বাহার শার্ট, সাংবাদিক দিলীপ ভদ্র হাতি, সাংবাদিক মো. আকতারুজ্জামান আয়াতুল্লাহ লাউ, মো. রেজাউল করিম চৌধুরী টেবিল ঘড়ি, আবু নাছের মোহাম্মদ হোসাইন চড়কা, মো. জাহিদুর রহমান ল্যাপটপ, এএসএম আকরাম ক্রিকেট ব্যাট ও শহীদুল ইসলাম বাস প্রতীক বরাদ্দ পেয়েছেন।
এ ছাড়া দুই সিটি নির্বাচনে কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলরদের প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়।
=

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24