মঙ্গলবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৬:৫৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে ফুটবল এসোসিয়েশনের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন উপলক্ষে প্রস্তুতিসভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে পারাপারের সময় খেলা নৌকা থেকে পড়ে মৃগী রোগির মৃত্যু জগন্নাথপুরে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহতের স্মরণে শোকসভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ও বেগম রোকেয়া দিবস পালন, ৫ জয়িতাকে সম্মাননা প্রদান জগন্নাথপুরে মুক্ত দিবস পালিত জগন্নাথপুরে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় নিহত দুই যুবকের জানাজায় শোকাহত মানুষের ঢল জগন্নাথপুরে আইনশৃংঙ্খলা সভায়-আনন্দ সরকারের হত্যাকারিদের গ্রেফতারের দাবি জগন্নাথপুরে নারী নির্যাতন প্রতিরোধ ও বেগম রোকেয়া দিবস পালন, ৫ জয়িতাকে সম্মাননা প্রদান জগন্নাথপুরে দুর্নীতি বিরোধী দিবসে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত ১৭ ডিসেম্বর থেকে হাওরের বাঁধ নির্মাণ কাজ শুরু

ওএমএস আরও এক মাস চলবে

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১ জুন, ২০১৭
  • ৬০ Time View

স্টাফ রিপোর্টার ::সুনামগঞ্জের ফসলহারা ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের মাঝে ওএমএস (ওপেন মার্কেট সেল অর্থাৎ খোলাবাজারে ১৫ টাকা কেজি দরে চাল) আজ (বৃহস্পতিবার) থেকে আরো ১ মাসের জন্য চালু রাখার নির্দেশ দিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়। জেলা প্রশাসক মো. সাবিরুল ইসলাম বুধবার বিকালে এই তথ্য জানিয়েছেন। একই সঙ্গে জেলায় চালু থাকা ১১০ টি ওএমএস কেন্দ্রের বাইরে আরও ২১১ টি ওএমএস কেন্দ্র চালু রাখার অনুরোধ জানিয়ে চিঠি লিখেছেন জেলা প্রশাসক মো. সাবিরুল ইসলাম।
খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ওএমএস’র চাল বিক্রি বুধবারই বন্ধ হওয়ার কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল। ওএমএস বন্ধ হবার সংবাদে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন হাওরপাড়ের হতদরিদ্র ও ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা।
বুধবার বিকালে জেলা প্রশাসক খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে এ প্রতিবেদককে জানান বিষয়টি নিয়ে আমরাও চিন্তিত ছিলাম। বুধবার বিকালে মন্ত্রণালয় থেকে জানানো হয়েছে আরও একমাস ওএমএস’র চাল বিক্রি’র কার্যক্রম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে খাদ্য মন্ত্রণালয়।’
প্রসঙ্গত. সুনামগঞ্জের বোরো ফসলহানির পর গত ৯ এপ্রিল থেকে সুনামগঞ্জের ১১ উপজেলার ৪২ জন ডিলারের মাধ্যমে জেলা শহরসহ ৪২ টি পয়েন্টে ওএমএস (ওপেন মার্কেট সেল বা খোলাবাজারে ১৫ টাকা কেজি দরে চাল ও ১৭ টাকা কেজি দরে আটা) বিক্রির কার্যক্রম শুরু হয়। খাদ্য মন্ত্রণালয় ও খাদ্য অধিদপ্তরের নির্দেশ অনুযায়ী মাত্র দুই মাসের (এপ্রিল ও মে) জন্য এই কার্যক্রম চালু করা হয়। শুরুতে ৪২ জন ডিলার প্রতিদিন ১ মে. টন চাল ও ১ মে. টন আটা বিক্রি করতেন। যে কেউ লাইনে দাঁড়িয়ে ৫ কেজি চাল ও ৫ কেজি আটা কিনতে পারতেন। কিন্তু সুনামগঞ্জে আটার চাহিদা না থাকায় ৩০ এপ্রিল আটা বিক্রি বন্ধ করা হয়। জেলার বিভিন্ন সংগঠনসহ কৃষকদের দাবির প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী’র নির্দেশে গত ৯ মে
থেকে ৪২ জন ডিলারের স্থলে জেলার ১১ উপজেলা, পৌরসভা এবং ৮৮ ইউনিয়ন মিলে ১১০ জন ডিলার নিয়োগ করা হয়।
১১০ জন ডিলার বিভিন্ন পয়েন্টে প্রতিদিন ১ মে. টন (১ হাজার কেজি) চাল প্রত্যেকের মাঝে ৫ কেজি করে বিক্রি করেছেন। এতে জেলার ২২ হাজার দরিদ্র পরিবার প্রতিদিন ৫ কেজি করে চাল কেনার সুযোগ পেত। খাদ্য মন্ত্রণালয় ও খাদ্য অধিদপ্তরের নির্দেশ অনুযায়ী মাত্র দুই মাসের (এপ্রিল ও মে) জন্য এই কার্যক্রম আজ বুধবার বিক্রির পরই শেষ হয়ে যাওয়ার কথা ছিল। জেলা প্রশাসক ও জেলা খাদ্য অধিদপ্তর থেকে ওএমএস চালু রাখার অনুরোধ জানিয়ে ইতিপূর্বে চিঠি লিখলেও বুধবার পর্যন্ত সিদ্ধান্তের কোন চিঠি না আসায় চিন্তিত ছিলেন সংশ্লিষ্টরা।
বুধবার বিকালে জেলা প্রশাসক মো. সাবিরুল ইসলাম জানান,মন্ত্রণালয় থেকে আমরা এখনো কোন চিঠি পাইনি। তবে বুধবার বিকালে আমাদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে ওএমএস বিক্রি’র কার্যক্রম আরও এক মাস বাড়ানো হয়েছে। সুতরাং আজ বৃহস্পতিবার থেকেই ওএমএস’র চাল বিক্রি চলবে।’ তিনি জানান, ১১০ টি ওএমএস কেন্দ্রের বাইরে আরও ২১১ টি ওএমএস কেন্দ্র চালু রাখার জন্য মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে।
অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান এমপি বলেন,‘সুনামগঞ্জে কোনভাবেই এখন ওএমএস’র চাল বিক্রি বন্ধ করা যাবে না। এই বিষয়ে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী’র সঙ্গেও কথা বলবো আমি।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24