সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৮:০১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে নৌপথে বেপরোয়া ‘চাঁদাবাজি’,চাঁদা না দিলে শ্রমিকদের মারধর করে লুটে নেয় মালামাল মিরপুরের সেই প্রার্থী আপিলে ফিরলেন নির্বাচনী লড়াইয়ে মিরপুর ইউপি নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করলেন দুইজন, কাল প্রতিক বরাদ্দ পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের নামাজ শেখানো হয় যে বিদ্যালয়ে পানির নিচে প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দিতে গিয়ে মৃত্যু! সিলেটে চারদিনের রিমান্ডে পিযুষ যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ২ জগন্নাথপুরে ৩৯টি মন্ডপে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি,চলছে প্রতিমা তৈরীর কাজ জগন্নাথপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কমিটির বিরুদ্ধে অপপ্রচারে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে ৬ মাসেও বকেয়া টাকা মিলেনি, ঋণের চাপে দিশেহারা পিআইসিরা

কারাগারে দুর্গোৎসব

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর, ২০১৫
  • ২২ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক::ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের যমুনা সেলের সামনে লম্বা বারান্দায় সাজসজ্জা করা হয়েছে। বেলুন, ব্যানার ও ফেস্টুন উড়ছে। সেখানে সারিববদ্ধভাবে বসে আছেন চার শতাধিক বন্দি। কেউ হারমনি আর তবলা বাজিয়ে ভক্তিমূলক গান গাইছেন, কেউ তাতে গলা মিলিয়ে হাততালি দিচ্ছেন।
–শারদীয় দুর্গাপূজা উপলক্ষে কেন্দ্রীয় কারগারে হিন্দু সম্প্রদায়ের সাত নারীসহ ৪৩০ বন্দির জন্য কারা কর্তৃপক্ষ এ উৎসবের আয়োজন করেছে। বিতরণ করা হয় মহাপ্রসাদ। বুধবার মহাঅষ্টমীর দিন দুপুরে দেড় ঘণ্টার ওই উৎসবে কারাগারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ছাড়াও মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

কারা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, কয়েক বছর ধরে দুর্গাপূজা উপলক্ষে হিন্দু সম্প্রদায়ের বন্দিদের মধ্যে মহাপ্রসাদ বিতরণ করা হয়। তবে এবারই প্রথম দুর্গাপূজা উপলক্ষে কারাগারে উৎসবের আয়োজন করা হলো। উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দিয়ে কারা মহাপরিদর্শক (আইজি প্রিজন) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দিন বন্দিদের মাঝে মহাপ্রসাদ বিতরণ করেন।

কারাগারের দুর্গোৎসব অনুষ্ঠানে আইজি প্রিজন বলেন, দেশের বিভিন্ন মণ্ডপে হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা দুর্গোৎসব করছেন। তবে কেউ অপরাধ করে, আবার কেউ ভাগ্যের বিড়ম্বনায় পড়ে কারাবন্দি রয়েছেন, যারা ধর্মীয় উৎসব থেকে বঞ্চিত থাকেন। হিন্দু স¤ক্স্রদায়ের বন্দিদের এ দুর্গোৎসবে সামান্য আনন্দ দিতেই সার্বজনীন পূজা কমিটির সহায়তায় কারা কর্তৃপক্ষ এ আয়োজন করেছে।

আইজি প্রিজন বলেন, যিনি যে কারণেই কারাগারে বন্দি রয়েছেন তাদের সংশোধন হওয়ার জন্য চেষ্টা করতে হবে। যাতে আইনি প্রক্রিয়ায় মুক্তি পেয়ে সুন্দরভাবে জীবন যাপন করা যায়।

অনুষ্ঠানে পূজা উদযাপন পরিষদের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনুশ্রী স্মৃতিকণা বলেন, ‘আমরা কেউই অপরাধী হয়েই মায়ের গর্ভে আসিনি। তাই আজকের দিনে মা দুর্গার কাছে সবাইকে প্রার্থনা করতে হবে, যাতে অচিরেই মুক্তি মিলে। সবাই যাতে বিশুদ্ধ হতে পারি।’

মহানগর সার্বজনীন পূজা কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক নির্মল কুমার চ্যাটার্জি বলেন, কারাগারে বন্দিদের ছোট্ট পরিসরে হলেও আনন্দ দিতে এই উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়ায় কারাগার থেকে এসব বন্দি বের হয়ে যাতে সুন্দর জীবন পান, সেজন্য কারাগারে সবাইকে সংশোধন হতে হবে।

ডিআইজি (প্রিজন) গোলাম হায়দার সমকালকে জানান, কারাগারে বন্দিদের নিয়ে বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসব পালন করা হয়। কারা কর্তৃপক্ষ এসব বন্দিকে বন্দি অবস্থায় দেখতে চায় না। তারা যাতে সংশোধন হতে পারে, সেই চেষ্টা করা হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের জন্য মহাপ্রসাদ বিতরণ উৎসবের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার জাহাঙ্গীর কবির, জেলার নেছার আলমসহ মহানগর পূজা কমিটির নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24