রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:২৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
সুনামগঞ্জে বিতর্কিতদের আওয়ামী লীগে স্হান না দিতে তৃণমূল নেতাদের দাবি প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী পরীক্ষা:জগন্নাথপুরে প্রথম দিনে অনুপস্থিত ২৬০ যুক্তরাজ্য বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে জগন্নাথপুর বিএনপির অভিনন্দন পেঁয়াজ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করলেন কাদের সিদ্দিকী ‘ব্রিটিশ বাংলাদেশী হুজহু’র প্রকাশনা ও এওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানের বারোতম আসর বর্ণাঢ্য আয়োজনে সম্পন্ন পেঁয়াজ খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছি:প্রধানমন্ত্রী জগন্নাথপুর পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড আ.লীগের কমিটি গঠন জগন্নাথপুরে অগ্নিকাণ্ডে নি:স্ব ৮ পরিবার আশ্রয় নিলেন স্কুলে.মানবেতর জীবন যাপন মিশর থেকে কার্গো বিমানে পেঁয়াজ আসছে মঙ্গলবার যুক্তরাজ্যে বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি

‘কিসের দুর্গত এলাকা একটি ছাগলও মারা যায়নি’, সচিবের বিরুপ মন্তব্যে হাওরবাসী বিক্ষোব্দ

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৭
  • ৩০ Time View

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

সুনামগঞ্জকে যারা দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন তাদের কোন জ্ঞানই নেই, এমনটি বলেছেন দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব শাহ কামাল।

মঙ্গলবার রাতে সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় সচিব সঞ্চালকের দায়িত্ব নিয়ে সুনামগঞ্জকে দুর্গত এলাকা ঘোষণার দাবির আন্দোলনকারীদের সমালোচনা করেন তিনি।

তাঁর এমন মন্তব্যে বিরুপ প্রতিক্রিয়া প্রকাশ করেছেন অনেকেই। বুধবার সচিবের সমালোচনায় মুখর ছিলো সুনামগঞ্জ।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় তিনি আরো বলেন, সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলি। দেশে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা নামে একটা আইন আছে। এই আইনের ২২ ধারায় বলা হয়েছে, কোন এলাকার অর্ধেকের উপরে জনসংখ্যা মরে যাওয়ার পর ওই এলাকাকে দুর্গত এলাকা ঘোষণা করতে হয়। না জেনে যারা এমন এমন সস্তা দাবি জানায় তাদের কোনপ্রকার জ্ঞানই নেই।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সচিবের এমন তথ্য শোনার পর উপস্থিত জনপ্রতিনিধি, সুধীজন, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের লোকদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। সেইসাথে ফসলহার কৃষকের পক্ষে আন্দোলনকারীদের নিয়ে সচিবের এমন কটূক্তির প্রতিবাদে উপস্থিত গণমাধ্যম কর্মীরা সভা থেকে বেরিয়ে আসেন।

সভায় উপস্থিত সুধিজনেরা জানান, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আইন ২০১২ এর ২২ ধারার কোন উপধারায় দুর্গত এলাকা ঘোষণা করতে অর্ধেকের বেশি মানুষ মারা যাওয়ার কোন শর্তের কথা কোথাও উল্লেখ নাই।

অবজ্ঞার সুরে সচিব আরো বলেন, কিসের দুর্গত এলাকা। একটি ছাগলও তো মারা যায়নি। খাদ্যগুদামে প্রচুর খাদ্য মজুদ আছে।

এদিকে একই সভায় প্রধান অতিথি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী ফসলহারা কৃষকদের প্রতি আন্তরিকতা রয়েছে উল্লেখ করে বলেন, আমাদের এই দুর্যোগ মোকাবেলার প্রস্তুতি ও সামর্থ রয়েছে। তিনি আরো বলেন, ৬ মাস কেন, প্রয়োজনে ৬ বছর খাওয়ানোর মজুদ আমাদের রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন একটি মানুষও না খেয়ে মারা যাবে না। মন্ত্রী সুনামগঞ্জ জেলার দেড় লাখ পরিবারকে তিন ধরনের খাদ্য সহায়তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

প্রস্তুতিসভায় ফসলহারা কৃষকের প্রতি মন্ত্রীর আন্তরিকতা ও মমতা লক্ষ্য করা গেলেও সচিবের এই মারকুটে ও দায়িত্বহীন বক্তব্যে উপস্থিত সুধীজন মর্মাহত হন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24