শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ০২:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরের রসুলপুর আর্দশ ক্রিকেট ক্লাবের জার্সি উম্মোচন শাহারপাড়ায় মেডিকেল সেন্টার উদ্ধোধন ও মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত এম এ মান্নান প্রাথমিক মেধাবৃত্তি পরীক্ষা ২৯ নভেম্বর ‘মার্টিন স্বপ্নে ইসলামের কোনো এক নবীর কথা বারবার উচ্চারণ করছিল’ জগন্নাথপুরের নয়াবন্দর-শংকপুর সড়ক উদ্বোধন করলেন পরিকল্পনামন্ত্রী জগন্নাথপুরে পরিকল্পনামন্ত্রী-ক্ষমতায় আসতে না পেরে একটি মহল গুজব ছড়াচ্ছে মিরপুর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান শেরীন শপথ নেবেন ২৫ নভেম্বর দক্ষিণ সুরমার একাধিক মামলার আসামি গ্রেফতার সাহাবাদের যুগে শিশুদের শিক্ষায় অধিক গুরুত্ব দেওয়া হতো জগন্নাথপুরের সন্তান অতিরিক্ত সচিব শিশির রায় কে ফুলেল শ্রদ্ধায় চীরবিদায়

গরুর মাংস না থাকায়, ভাঙল বিয়ে!

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ২৮ এপ্রিল, ২০১৭
  • ৪৭ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: বিয়ের খাবারের আয়োজনে গরুর মাংসের নানান পদ না থাকায় রেগে যায় পাত্রপক্ষ। অন্যান্য পদের খাবারের আয়োজন ছিল। কিন্তু লাগবে গরুর কাবাব, কোর্মা এবং বিরিয়ানি। আর কনেপক্ষ বিয়ের দিনে খাবারে তা দিতে না পারায় বর ভেঙে দেন বিয়ে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর প্রদেশের মুজাফফর নগরে। তবে বিয়ের আসরেই অন্য একজনের সঙ্গে বিয়ে হয় কনের।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, উত্তর প্রদেশের মুজাফফর নগরের কুলহেদী গ্রামের একটি বিয়েবাড়িতে বর আসবে বলে ছিল সব আয়োজনই। যোগী আদিত্যনাথ উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পরই অবৈধ কসাইখানা বন্ধ। আর এতে করে মাংসের দাম বাড়ছে হু হু করে। আবার পর্যাপ্ত জোগানের অভাব তো আছেই। তাই ওই রাজ্য মাংস পাওয়া একটু কঠিন হয়ে গেছে। আর বিয়েতে গরুর কাবাব, গরুর কোর্মা এবং বিরিয়ানির জন্য যত মাংস দরকার, তা আয়োজন করা কষ্টসাধ্য ব্যাপার কনেপক্ষ নাগমার পরিবারের জন্য। উপায় না দেখে কনেপক্ষ মাংসের পদ বাদে ফল-ফলাদি ছাড়াও নানা আয়োজন করেছিল। কিন্তু বর রিজওয়ান ও তাঁর পরিবারের দাবি, গরুর মাংসের কাবাব, কোর্মা এবং বিরিয়ানি। এসব পদ কেন সংগ্রহ করতে পারেনি, তার ব্যাখ্যাও রিজওয়ানদের কাছে তুলে ধরেন নাগমার পরিবার। কিন্তু বরপক্ষ অনড়, মাংসের পদ লাগবেই, এ ছাড়া বিয়ে হবে না। উপায় না দেখে বিয়ের আসরে গ্রামের মান্য-গণ্য ব্যক্তি ও পঞ্চায়েতকে ডাকেন নাগমার পরিবার। কিন্তু কিছুতেই কোনো কাজ হয়নি। বিয়ে ভেঙে দেয় পাত্রপক্ষ। কুলহেদী গ্রামে বিয়ের কারণে আনন্দ ভর করেছিল। বিয়ে ভেঙে দিয়ে বর রিজওয়ান যখন চলে গেলেন, তখন পুরো গ্রামে বিশাদের ছায়া।

এই পরিস্থিতিতে যা হয়, সে অবস্থায়ই কনেপক্ষের। এমন সময় সমস্যার সমাধানে এগিয়ে আসেন বিয়েতে আমন্ত্রিত এক যুবক। নাগমাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন তিনি। প্রস্তাবে রাজি নাগমা ও তাঁর পরিবার। সেই আসরেই বিয়ের সানাই বাজে। বলতে গেলে সিনেমা কায়দায় বিয়ের আসরের হয় ‘হ্যাপি এন্ডিং’।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24