রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ১২:৩৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে মাদ্রাসা ছাত্র সাব্বিরের হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল জগন্নাথপুরে পৃথক দুই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি সাংবাদিকতার উজ্জ্বল পরিম-লে কামকামুর রাজ্জাক রুনু এক স্বপ্নচারী পুরুষ শেখ রাসেলের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জগন্নাথপুরে আ.লীগের আলোচনাসভা জগন্নাথপুরে শ্রমিকলীগের কমিটি বিলুপ্ত জগন্নাথপুরের তিন রাজনীতিবীদ জেলা আ,লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মনোনীত হলেন জগন্নাথপুরে দুইপক্ষের বিরোধে বলি হলো মাদ্রাসার ছাত্র সাব্বির জগন্নাথপুরে ছিনতাইকৃত গ্রামীণফোনের রিচার্জ কার্ড-অর্থসহ ডাকাত গ্রেফতার জগন্নাথপুরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে শিশু নিহত জগন্নাথপুরে অটোচালককে হত‌্যা করে লাশ ডোবায় ফেলে দিল দুবৃর্ত্তরা

জগন্নাথপুরের আট ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির প্রার্থীদের ভোটের অবস্থান সরকারী গুরুত্বপূর্ণ সংস্থার হাতে

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১৬
  • ৪৮ Time View

স্টাফ রিপোর্টার:: ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে সম্ভাব্য প্রার্থীদের জোর তৎপরতা চলছে জোরে শোরে রাজনৈতিক দলগুলোর পাশাপাশি বিভিন্ন সরকারী বেসরকারী গুরুত্বপূর্ণ সংস্থার জরিপ মোতাবেক জগন্নাথপুর উপজেলার আটটি ইউনিয়নে যারা ভালো অবস্থানে রয়েছেন তাদের সর্ম্পকে নেয়া হচ্ছে খোঁজ খবর। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করতেই আগ্রহী প্রার্থীদের বিষয়ে রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ সংস্থাগুলো প্রার্থীদের জীবন বৃত্তান্ত,দলীয় সংশ্লিষ্টতা,ইতিপূর্বে নির্বাচন করছেন কি না দলীয় নেতৃবৃন্দ বা মন্ত্রী এমপি কতৃক পৃষ্ঠপোষকতা পাওয়ার কারণ ,জনমত যাছাইয়ের ভোট প্রাপ্তির সম্ভাব্য হার,নেতিবাচক কর্মকান্ডের সঙ্গে যুক্ত আছেন কি না সরকার দলের ক্ষেত্রে যোগ্য প্রার্থী কে, জয়ী হতে হলে কি করনীয় এসব বিষয়ে রিপোর্ট দিচ্ছে জগন্নাথপুর উপজেলার আটটি ইউনিয়নের মধ্যে ১ নং কলকলিয়া ইউনিয়নের ৬ জন প্রার্থীর তথ্য পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যে ৫ জন আওয়ামীলীগের ও ১ জন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী। তাঁরা হলেন,কলকলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক দ্বীপক কান্তি দে,যুক্তরাজ্য প্রবাসী সাবেক ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল হাশিম,জেলা যুবলীগের সদস্য আলাল হোসেন রানা ও ইউনিয়ণ আওয়ামীলীগ ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফখরুল ইসলাম। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন যুক্তরাজ্য প্রবাসী রফিক মিয়া। তাদের প্রত্যেকের ভোট প্রাপ্তির হার দেখানো হয়েছে ৫ থেকে ২৫ শতাংশ। পাটলী ইউনিয়নে সম্ভাব্য প্রার্থী দেখানো হয়েছে ৫ জন। এদের মধ্যে তিন জন আওয়ামীলীগের ১জন বিএনপি ও ১জন জাতীয় পার্টির। তন্মেধ্যে উপজেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি বর্তমান চেয়ারম্যান সিরাজুল হক ও সাবেক চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা আঙ্গুর মিয়া রয়েছেন। বিএনপির প্রবাসী হারুন মিয়া ও জাপার ছবির মিয়া তাদের প্রত্যেকের সম্ভাব্য ভোট প্রাপ্তির হার দেখানো হয়েছে ১৫ থেকে ২৫ শতাংশ। মিরপুর ইউনিয়নে সম্ভাব্য ৮ প্রার্থী রয়েছেন তন্মেধে আওয়ামীলীগের ৪জন বিএনপির ৩জন ও ১জন স্বতন্ত্র রয়েছেন। প্রার্থীরা হলে বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জমির উদ্দিন,আওয়ামীলীগ নেতা প্রবাসী মাহবুবুল হক শেরিন,আওয়ামীলীগ নেতা ইলিয়াছ আহমদ,ও প্রবাসী আব্দুস শহীদ,বিএনপির আব্দুন নূর,এস এ নুর, শাহেদা খানম, ওস্বতন্ত্র প্রার্থী শাব আলী। প্রাথীদের প্রত্যেকের পাপ্ত ভোট দেখানো হয়েছে ৯ থেকে ১৭ শতাংশ। তবে মীরপুর ইউনিয়নে সীমান সংক্রান্ত মামলা থাকায় নির্বাচন অনিশ্চয়তায় রয়েছে। চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়নে ৬ জন সম্ভাব্য প্রার্থী রয়েছেন এরমধ্যে ৪জন আওয়ামীলীগ ও ২ জন বিএনপি। প্রার্থীরা হলেন বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা আরশ মিয়া, আওয়ামীলীগ নেতা শহীদুল ইসলাম বকুল,আলফু মিয়া ও প্রবাসী আওয়ামীলীগ নেতা জিল্লুর রশীদ লীল,বিএনপির রফিকুল ইসলাম খসরু ও মুজিবুর রহমান মুজিব। তাদের প্রত্যেকের ভোট প্রাপ্তির হার দেখানো হয়েছে ১২ থেকে ২২ শতাংশ। রানীগঞ্জ ইউনিয়নে ৮ জন প্রার্থীর কথা রিপোটে উল্লেখ করা হয়েছে। তন্মেধ্যে আওয়ামীলীগের ৫জন বিএনপির২ জন ও স্বতন্ত্র ১জন। এরা হলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু, আওয়ামীলীগ নেতা বর্তমান চেয়ারম্যান মজলুল হক সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হাফিজ ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক ছদরুল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম রানা বিএনপির সামছুল ইসলাম ও কয়েছ উদ্দিন। তাদের প্রত্যেকের প্রাপ্ত ভোটের হার দেখানো হয়েছে ৫ থেকে ২০ শতাংশ্। সৈয়দপুর শাহারপাড়া ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ আবুল হাসান ও আওয়ামীলীগ নেতা কদ্দুস কামালী ও যুবলীগ সেক্রেটারী আবুল হোসেন লালনের নাম রয়েছে। বিএনপির সৈয়দ খালিক মিয়া,সৈয়দ মুছাব্বির, ও স্বতন্ত্র খালিদ মিয়া ওলিদ। তাদের পা্প্ত ভোটের হার দেখানো হয়েছে ১২ থেকে ২৫ শতাংশ। আশারকান্দি ইউনিয়নে ৩জন আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী রয়েছেন তারা হলেন বর্তমান চেয়ারম্যান আওয়ামীলীগ নেতা আইয়ুব খান, শাহ আবু ঈমানী ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আজাদ কাবেরী। ভোটপ্রাপ্তির হার দেখানো হয়েছে ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ। পাইলগাঁও ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের ৩জন ও বিএনপির২জন প্রার্থী রয়েছেন। তারা হলেন বর্তমান চেয়ারম্যান ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আপ্তাব উদ্দিন সাবেক চেয়ারম্যান মঞ্জুর আলী আফজল, ও আওয়ামীলীগ নেতা সুন্দর উদ্দিন। বিএনপির মাওলানা দবিরুল ইসলাম ও শামীম হোসেন। তাদের প্রত্যেকের সম্ভাব্য ভোট প্রাপ্তির হার দেখানো হয়েছে ১৫ থেকে ২৫ শতাংশ। এসব তথ্য ও জরিপের বাহিরে আওয়ামীলীগ ও বিএনপির প্রতিটি ইউনিয়নে একাধিক প্রার্থী মাঠে রয়েছেন। যারা নৌকা ও ধানের শীষ নিয়ে নির্বাচন করতে চান।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24