বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ০৯:৪৩ অপরাহ্ন

জগন্নাথপুরের নলুয়া হাওরে নতুন করে ভাঙন, চিন্তিত কৃষককূল

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৩০ জানুয়ারী, ২০১৮
  • ৭০ Time View

বিশেষ প্রতিনিধি :: জগন্নাথপুর উপজেলার নলুয়ার হাওরে এবার নতুন করে কয়েকটি এলাকায় ভাঙন দেখা দিয়েছে। এসব গর্তে এখনও পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো ) কোন কাজ শুরু করেনি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরেজমিনে ঘুরে দেখে কাজ শুরু করার আশ্বাস দিয়েছেন।
কৃষকরা জানান. গত অকাল বন্যায় জগন্নাথপুর উপজেলার সবকটি হাওরের ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে হাওরের ফসল তলিয়ে গেলে এবার পানি উন্নয়ন বোর্ড নতুন করে পুর্বের পিআইসি অনুযায়ী ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজ শুরু করে।
সরেজমিনে দেখা যায় নলুয়ার হাওরের দাসনোওয়া গাঁও এলাকায় দাসনাগাঁও কুরেরপাড় একটি বড় ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। এছাড়াও কলকলিয়া ইউনিয়নের কান্দারগাঁও-নোওয়াগাঁও এলাকার মধ্যবর্তী স্থানে কামারখালী নদীর পাড়ে বড় ধরনের ভাঙ্গন সৃষ্টি হওয়ায় হাওর রক্ষার্থে নতুন করে পিআইসির অর্š‘ভুক্ত করে ওই ভাঙ্গন বন্ধ করা না হলে ফসল রক্ষা করা অসম্ভব হয়ে পড়বে।
কৃষকদের অভিযোগ ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে হাওরের ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধের কাজ শেষ করার কথা থাকলেও এখনো হাওরে পুরোপুরি কাজ শুরু হয়নি। ফলে কৃষকরা ফসল নিয়ে চিন্তিত আছেন।
চিলাউড়া-হলদিপুর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য নান্টু দাশ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, গত বন্যায় নলুয়া হাওরের দাসনাগাঁও এলাকায় কুরেরপাড় নামস্থানে বিশাল আকারে ভেঙে গেছে। এ ভাঙনে এখনও কাজের কার্যাদেশ পাইনি।
তিনি বলেন, কৃষকদের কথা চিন্তা করে অর্থ ধাড় করে ওই ভাঙনে গত দুইদিন করে কাজ করছেন।
হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলন সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক সিদ্দেকুর রহমান জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, নলুয়া হাওরে যেসব স্থানে নতুন করে ভাঙন দেখা দিয়েছে সেসব স্থানে এখনও কোন কাজ শুরু হয়নি। দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হবে হাওরের সফল রক্ষা করা সম্ভব নয়।
কলকলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হাশিম জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, গত বছর এসব এলাকায় কোন পিআইসি ছিল না। এবার ভাঙ্গন দেখা দেয়ায় হাওর রক্ষার্থে নতুন পিআইসি গঠন করে বেড়িবাঁধ নির্মাণের প্রয়োজনীয়তা উল্লেখ করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে পদক্ষেপ নেয়ার অনুরোধ করলে তিনি সরেজমিনে দেখে পিআইসির মাধ্যমে বিকল্পপথে বেড়িবাঁধ নির্মাণ করার কথা বলেছেন।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, হাওরের ফসল রক্ষায় যেসব এলাকায় নতুন করে গর্ত সৃষ্টি হয়েছে সেইসব এলাকায় বাস্তবতার আলোকে পিআইসি গঠন করা হবে। আবার কিছু কিছু এলাকার অপ্রয়োজনীয় পিআইসি বাদ দেয়ারও পদক্ষেপ চলছে। তবে তিনি নলুয়ার হাওরের ফসল রক্ষায় নতুন গর্তসমুহ পিআইসির মাধ্যমে কাজ করা হবে বলে জানান।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24