মঙ্গলবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:৫৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রামীণ ফোনের ৫ লাখ টাকা ছিনতাই, জনতার ধাওয়ায় বাইকসহ আটক ১ জগন্নাথপুরে সড়ক রক্ষায় ১০ টন ওজনের অধিক যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা মিরপুর ইউপি নির্বাচনে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতিক বরাদ্দ, আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারণা প্রার্থীরা গরুর মাংস বিক্রি: ভারতে খ্রিস্টান যুবককে পিটিয়ে হত্যা জগন্নাথপুরের ব‌্যবসায়ী ফেরদৌস মিয়া খুনের ঘটনায় সানিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড সুনামগঞ্জে হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড, তিনজনের যাবজ্জীবন ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর ছাত্রলীগের ‘হামলা’ আহত ২৫ অনেকেই গা ঢাকা দিয়েছে, অনেককেই নজরদাড়িতে রাখা হয়েছে: কাদের বিরিয়ানি খেলে শিক্ষকসহ ৪০ জন অসুস্থ আল কোরআন অনুসরণের আহ্বান রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের!

জগন্নাথপুরে খুঁড়ে রাখা ড্রেন যেন মশার প্রজননক্ষেত্র

আলী আহমদ::
  • Update Time : বুধবার, ২১ আগস্ট, ২০১৯
  • ২৫১ Time View

জগন্নাথপুরের প্রধান সড়কে নির্মানাধীন ড্রেন যেন মশার প্রজননকেন্দ্র। ড্রেন নির্মাণের জন্য মাটি খুঁড়ে খালের মতো করে রাখা গর্তে জমে থাকা পানি মশার বংশ বিস্তারে সহায়ক হয়ে উঠছে। এছাড়াও ড্রেনের ময়লা আবর্জনা থেকে পচা দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ছে। এ কারণে জনস্বাস্থ্য হুমকির মুখে পড়েছে।
সরেজমিনে দেখা যায়, পাগলা-জগন্নাথপুর-রানীগঞ্জ-আউশকান্দি-আঞ্চলিক মহাসড়কের জগন্নাথপুর পৌরশহরের ইকড়ছই আবাসিক এলাকার বিদ্যুতের সাবষ্টেশন এলাকা থেকে শহরের অটোরিকশা-টেস্পু’র অস্থায়ী ষ্ট্যান্ড পর্যন্ত প্রায় পাঁচশত ফুট লম্বা খোলা খালের মতো করে গর্ত করে রাখা হয়েছে। সেখানে ময়লা আবর্জনায় ভরে আছে। গর্তের যেখানে সেখানে জমে থাকা পানি মশার বংশ বিস্তারে সহায়ক হয়ে উঠেছে। বেশ কয়েকমাস ধরে ড্রেনের কাজ বন্ধ থাকায় সড়কের দুইপাশে অবস্থিত প্রায় তিনশতাধিক ব্যবসায়ী দুর্ভোগে পড়েছেন। সামান্য বৃষ্টির পানিতে এখানে জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পাশে পড়ে থাকা ময়লা আবর্জনার স্তুপ থেকে বাতাসে ভেসে আসে পচা দুর্গদ্ধ।
স্থানীয় বাসিন্দরা জানান, ২০১৮ সালের মার্চ মাসের দিকে সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের অর্থায়নে ৮৩ কোটি টাকা ব্যয়ে দক্ষিণ সুনামগঞ্জের ডাবর পয়েন্ট থেকে জগন্নাথপুর পর্যন্ত ২২ কিলোমিটার সড়কের পাকাকরণের কাজ শুরু হয়। তবে শহরের ইকড়ছই বিদ্যুতের সাবষ্টেশন থেকে জগন্নাথপুর সদর বাজারের পশ্চিম অংশের অটোরিকশা-টেস্পু ষ্ট্যান্ড এলাকা পর্যন্ত ড্রেনের কাজের জন্য মাটি খুঁড়ার পর কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।
স্থানীয়দের অভিযোগ ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের গাফিলতির কারণে ধীরগতিতে চলছে কাজ। সড়কের দুইপাশে ড্রেন নির্মাণের জন্য মাটি খুঁড়ে লম্বা খালের ন্যায় করে রাখা হয়েছে। একারণে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন সড়কের পাশের ব্যবসায়ীরাসহ স্থানীয় লোকজন।
ইকড়ছই এলাকার বাসিষন্দা ছালিক আহমদ পীর বলেন, ড্রেনের জন্য মাটি খু^ঁড়ে রাখা গর্তে পচা ময়লা আবর্জনায় ভরে আছে। এসব আর্বজনায় কখনও পরিস্কার হয় না।

পৌরশহরের ইকড়ছই আবাসিক এলাকার সড়কের পাশের ব্যবসায়ী শাহ কামাল বলেন, গত এক বছর ধরে ড্রেনের কাজের জন্য মাটি কেটে লম্বা খালের মতো করে খুঁড়ে রাখা হয়েছে। ফলে সামান্য বৃষ্টিতে বন্যায় রূপ নেয়। দোকান ঘরে ঢুকে যায় পানি। অন্যদিনে মাটি খুঁড়ে ফেলে রাখা গর্তের ভেতরের ময়লা আবর্জনার স্তুপ থেকে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ছে। আর সেখান থেকে মশার উপদ্রব বেড়ে যাওয়ায় দিবারাত্রি মশার কামড় সহ্য করছি আমরা। কবে যে এ থেকে আমরা মুক্তি পাবো জানা নেই আমাদের।
স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর পৌরসভার প্যানেল মেয়র-২ সোহেল আহমদ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ড্রেনের কাজ শেষ না হওয়ায় স্থানীয়রা সীমাহীন ভোগান্তি পোহাচ্ছেন। ড্রেনের কাজ দ্রুত শেষ করতে সংশ্লিষ্টদের বার বার তাগিদ দিচ্ছি।
ওই সড়কের কাজ দেখভালের দায়িত্বপ্রাপ্ত সুনামগঞ্জের সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ সহকারী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, মেঘ-বৃষ্টির জন্য ড্রেনের কাজে বিলম্ব হচ্ছে। তারপরও কাজটি দ্রুত শেষ করার জন্য ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24