শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:২৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে ২২তম ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন সম্পন্ন জগন্নাথপুরে সেই সড়কে ২৩ কোটি টাকার টেন্ডার সম্পন্ন, নতুন বছরের শুরুতেই কাজ শুরু হতে পারে জগন্নাথপুরে ১৫ দিন পর অবশেষে ধান কেনা শুরু জগন্নাথপুরে গলায় ফাঁস দিয়ে দুর্বৃত্তরা হত্যা করল স্টুডিও’র মালিক আনন্দকে সিলেট জেলা আ’লীগের নেতৃত্বে লুৎফুর-নাসির, মহানগরে মাসুক-জাকির প্রতিবন্ধীদের জন্য প্রতিটি উপজেলায় সহায়তা কেন্দ্র: প্রধানমন্ত্রী জগন্নাথপুর পৌরশহরে স্টুডিও দোকানদারের মরদেহ পাওয়া গেছে হিন্দুরাষ্ট্রের পথে ভারত: সংসদে বিজেপি নেতা জামিন শুনানি পেছালো, এজলাসে হট্টগোল, আইনজীবীদের অবস্থান মানবজাতির প্রতি কোরআনের অমূল্য উপদেশ

জগন্নাথপুরে দুইটি সরকারি ইজারাকৃত জলাশয় থেকে মাছ শিকারের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার::
  • Update Time : বুধবার, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯
  • ৩৬৮ Time View

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে সরকারি ইজারাকৃত দুইটি জলাশয়ে জোরপূর্বক মাছ শিকার করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে এবিষয়ে জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম মাসুসের নিকট পৃথকভাবে দুই ইজারাদার লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। দুইটি জলাশয়ে মুজিব উদ্দিন নামে এক ব্যক্তিসহ আরো কয়েকজনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।
অভিযোগ পত্র থেকে জানা যায়, জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে জগন্নাথপুরের বিনিয়ানা ডুবি নামে সরকারি জলমহালটি উপজেলার আশারকান্দি ইউনিয়নের বড়ফেচি গ্রামের চান মিয়া ইজারা মূল্য পরিশোধ করে ১৪২৬ বাংলা সনের জন্য ইজার নিয়ে দখলপ্রাপ্ত হন। কিন্তুু ইজারকৃত জলাশয় জোরপূর্বভাবে একই ইউনিয়নের আটঘর দীঘবাক ইউনিয়নের মুজিব উদ্দিন ও জগন্নাথপুরের সীমান্তবর্তী নবীগঞ্জের বাটর গ্রামের আব্দুল হাই, হাছন উদ্দিন গংরা অবাধে মাছ আরোহণ করে আসছেন। বাঁধা দিলে উল্টো হুমকি দেয়া হচ্ছে। এরমধ্যে অভিযুক্তরা প্রায় দুই টাকার মাছ শিকার করে বিক্রি করেছেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে অভিযোগ ৮৫২প৬৭ত্রে।

স্থানীয় সাংবাদিকদের চান মিয়া জানান, সম্প্রতি অভিযোগকারীরা জোরপূর্বকভাবে ইজারকৃত জলাশয় থেকে মাছ ধরছে। বাঁধা দিলে অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। নিরুপায় হয়ে অভিযোগ দিয়েছি। এদের বিরুদ্ধে আইনানুগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হলে আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হবো।

এদিকে আশারকান্দি ইউনিয়নের শম্ভুপুর গ্রামের পবিত্র বিশ্বাস নামে আরেক ইজারাদার একই সময়ে ইউএনওর নিকট জলাশয় থেকে মাছ লুটের অভিযোগ দিয়েছেন। তিনি অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করেন, ২০২৬ বাংলা সনে জগন্নাথপুরের গুলমা মরা কালনী ও বিবিয়ানা জলাশয়ের একাংশ সরকারি মূল্য পরিশোধ করে তিনি ইজারা নেন। কিন্তু অবৈধভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শণ করে জোরপূর্বক জলাশয় থেকে একই ইউনিয়নের আটঘর দিঘলবাক গ্রাে মুজিব উদ্দিন গংরা মাছ শিকার করছেন।

ইজারাদারপবিত্র বিশ্বাস জানান, সরকারের নিকট থেকে ন্যায়্য মূল্য পরিশোধ করে জলাশয় ইজারা এনেছি। কিন্তুু অবৈধভাবে জোর করে জলাশয় থেকে মাছ আরোহন করা স্থানীয় এক ব্যক্তি এবং বহিরাগদরা। তাদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছি। বাধ্য হয়েই অভিযোগ দিয়েছি।
অভিযুক্ত মুজিব উদ্দিনের সঙ্গে বারবার যোগাযোগের চেষ্ঠা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম মাসুম অভিযোগ পত্র পেয়েছেন বলে সত্যতা নিশ্চিত করে জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, তদন্তপূর্বক আইনানুগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24