মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯, ০২:২৮ পূর্বাহ্ন

জগন্নাথপুরে নিষিদ্ধ ইজিবাইক ও ব্যাটারি চালিত রিকশায় সয়লাব, প্রশাসন নিরব

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ৮ জানুয়ারী, ২০১৮
  • ৪৫ Time View

আলী আহমদ :: জেলার জগন্নাথপুরে নিষিদ্ধ ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশায় এখন সয়লাব । জগন্নাথপুরের অলিগলিতে শত শত ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশার হিড়িক পড়েছে। এসবের কারণে যানজট, দুর্ভোগ আর দুর্ঘটনা মানুষের নিত্যসঙ্গী হয়ে গেছে। এ সব যানবাহন অপসারনে প্রশাসনের কোন পদক্ষেন নেই।
সোমবার দুপুরে জগন্নাথপুর উপজেলা আইন শৃঙ্খলা মাসিক সভায় কমিটির নেতৃবৃন্দ এ সব অবৈধ যানবাহন নিষিদ্ধ করার আহবান জানিয়েছেন।
জগন্নাথপুরের নবাগত এসিল্যান্ড হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকি’র সভাপতিত্বে এতে আইন শৃঙ্খলা কমিটির নেতৃবৃ› বক্তব্য রাখেন।
আইন শৃঙ্খলা কমিটির সদস্য শিক্ষক সাইফুল ইসলাম রিপন জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, জগন্নাথপুরের সর্বত্র জুড়ে ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশা বৃদ্ধি পেয়েছে। নিয়ন্ত্রনহীন হয়ে পড়েছে এসব যানবাহন। যে কারনে প্রতিদিনই দূর্ঘটনা ঘটছে। ওই সব যানগুলি দ্রুত অপসারণ করার দাবী জানাচ্ছি।
জগন্নাথপুরের পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি নিজামুল করিম জানান, জগন্নাথপুরে সহ¯্রাধিক ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশা রয়েছে। এ সব যানবাহনে অধিকাংশ চালকই অপ্রাপ্ত। এরা অনেক সময় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে ইভটিজিং করে বলে অভিযোগ রয়েছে। এসব নিষিদ্ধ যানবাহন দ্রুত জগন্নাথপুরে নিষিদ্ধ ঘোষনা করা হউক।
জগন্নাথপুরের ইউএনও (চ:) এসিল্যান্ড হোসাইন মোহাম্মদ হাই জকি বলেন, এ সব যানবাহনের বিষয়ে দ্রুত আইনানুগত ব্যবস্থা গ্রহনে আমরা পদক্ষেপ নেব।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, প্রায় বছরখানেক ধরে জগন্নাথপুর পৌরশহরের প্রতিটি সড়কে ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত দৌরাত্ম্য মারাত্মকভাবে বেড়ে গেছে। প্রতিদিনই নতুন নতুন ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশা শহরের বিভিন্ন স্থানে দেখা যাচ্ছে। এসব যানবাহনের চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই। এছাড়াও অপ্রাপ্ত বয়সের চালকও দেখা যায় ওই সব যানবাহনে। এর সাথে যোগ হয়েছে ব্যাটারিচালিত রিকশা। এ সব ব্যাটারি চালিক রিকশা বিদ্যুৎ চুরি করে চার্জ প্রদান করা হয় বলে র্দীঘদিন ধরে অভিযোগ শুনা গেছে। এ যানগুলি চার্জ করতে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ করচ হয়। ফলে প্রভাব পড়ছে বিদ্যুতের উপর। এ প্রসঙ্গে জগন্নাথপুরের এক বিদ্যুৎ কর্মকর্তা জানান, ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশাগুলো অবৈধভাবে রাতের আধারে চুরি করে ব্যবহার করে অনেকেই। আমরা একাধিকবার অভিযান চালিয়েছি। এসব যানবাহন চার্জে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ করচ হয়।
অভিযোগ রয়েছে, জগন্নাথপুর পৌর কর্তৃপক্ষ বেআইনিভাবে দুই থেকে তিন হাজার টাকায় এসব যানবাহনের লাইসেন্স দিচ্ছে।
তবে অভিযোগ অস্বীকার করে জগন্নাথপুর পৌরসভার সচিব মোবারক হোসেন জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আমরা নিয়ম অনুযায়ী ফ্রি নিচ্ছি।
এব্যাপারে জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র আব্দুল মনাফের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিফ করেনি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24