শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৫:২৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরের তিন রাজনীতিবীদ জেলা আ,লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মনোনীত হলেন জগন্নাথপুরে দুইপক্ষের বিরোধে বলি হলো মাদ্রাসার ছাত্র সাব্বির জগন্নাথপুরে ছিনতাইকৃত গ্রামীণফোনের রিচার্জ কার্ড-অর্থসহ ডাকাত গ্রেফতার জগন্নাথপুরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে শিশু নিহত জগন্নাথপুরে অটোচালককে হত‌্যা করে লাশ ডোবায় ফেলে দিল দুবৃর্ত্তরা জগন্নাথপুরে ‘ভুয়া’নাগরিক সনদধারীদের ঠেকাতে জনপ্রতিনিধিদের দ্বারে দ্বারে স্থানীয়রা জগন্নাথপুরে মেধাবী শিক্ষার্থীদের সম্মাননা প্রদান যুবলীগ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী রোববার মিটিং ডেকেছেন : ওবায়দুল কাদের দেশে দারিদ্র কমলেও বৈষম্য বাড়ছে:পরিকল্পনামন্ত্রী জগন্নাথপুরে শুক্রবার সকাল ৬টা ১২টা ও শনিবার ৮ থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ থাকবে না

জগন্নাথপুরে ফেরত যাচ্ছে বেড়িবাঁধের ৫ কোটি টাকা

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ৩০ মে, ২০১৮
  • ১১৭ Time View

বিশেষ প্রতিনিধি ::
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজের ৫ কোটি টাকা ফেরত দেয়া হয়েছে। এতে করে বেড়িবাঁধের নির্ধারিত চুড়ান্ত বিল উত্তোলনে টাকা কমে যাওয়ায় আশঙ্কায় দেখা দেওয়ায় পিআইসিদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে।
পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, এবছর ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ/সংস্কার কাজ বাস্তবায়নের জন্য জগন্নাথপুর উপজেলায় ১৪ কোটি টাকা বরাদ্দ পাওয়া যায়। ২৮ ফেব্রুয়ারি কাজ শেষের মেয়াদ উল্লেখ করে ৯২টি প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করে জানুয়ারি মাসে তাদের কার্যাদেশ প্রদান করা হয়। নিয়ম অনুযায়ী কাজ শেষে ফসল উত্তোলনের পর বাঁধের কাজে নিয়োজিত পিআইসি (প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি) কে চুড়ান্ত বিল পরিশোধ করা। এরই মধ্যে ফসল উত্তোলন সম্পন্ন হয়েছে। চতুর্থ কিস্তিতে চুড়ান্ত বিল দেয়ার কথা থাকলেও বিল পাচ্ছে না অনেক পিআইসি। আবার অনেক প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি তৃতীয় কিস্তির টাকা পাননি এখনও।
নলুয়ার হাওরের একটি বেড়িবাঁধ কাজে নিয়োজিত পিআইসি (প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি) সভাপতি চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য জুয়েল মিয়া বলেন, শতভাগ কাজ করার পরও পাউবোর চুড়ান্ত জরিপে আমার প্রকল্পে ৮০ ভাগ কাজ দেখানো হয়েছে। এতে করে কার্যাদেশের প্রাক্কলনকৃত অর্থ থেকে চুড়ান্ত বিলে টাকা কম আসবে যা দুঃখজনক। তিনি বলেন, অনেক কষ্ট করার পরও যদি প্রাপ্য টাকা থেকে বঞ্চিত হই এর চেয়ে কষ্ট কী হতে পারে।
রুবেল আহমদ বলেন,আমি এখনো তৃতীয় বিল পাইনি। ২০ লাখ টাকার বরাদ্ধের প্রাক্কলনে এখনো ১৩ লাখ টাকা চুড়ান্ত করা হয়েছে। এতে করে কাজ করে ঋণগ্রস্থ হতে হবে।
চিলাউড়া-হলদিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আরশ মিয়া বলেন,এবার ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ কাজে যেভাবে প্রকল্প কমিটির সভাপতি ও সদস্য সচিবদের কে চাপে রাখা হয়েছে তাতে করে আগামীতে আর কোন জনপ্রতিনিধি এ দায়িত্ব নিতে চাইবে না। তারপরও আবার বিল কমানো হয়েছে
সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী জগন্নাথপুর উপজেলার আঞ্চলিক অফিস প্রধান নাসির উদ্দীন বলেন, ফসল রক্ষা বাঁধের কাজের স্বচ্চতার জন্য আমরা প্রকল্প বাস্তবায়নের আগে প্রতিটি প্রকল্পের প্রাক্কলন তৈরী করি। কাজ শেষে আবার জরিপ করে কতটুকু কাজ বাস্তবায়ন করা হয়েছে তা নির্ধারণ করা হয়। সে অনুযায়ী কোন প্রকল্পে কত ভাগ কাজ হয়েছে তা নির্ধারন করা হয়েছে। তিনি বলেন, প্রকল্প গুলো কাজ অনুযায়ী চুড়ান্ত বিল দেওয়া হবে। কাউকে অতিরিক্ত কিংবা কম বিল দেয়ার সুযোগ নেই।
হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলন সংগঠনের আহ্বায়ক সিরাজুল ইসলাম বলেন, কাজ অনুযায়ী চুড়ান্ত বিল দেয়ার জন্য আমরা দাবি জানিয়েছিলাম। সরকারের অর্থ অপচয় রোধে টাকা ফেরত প্রশংসনীয় উদ্যোগ।
জগন্নাথপুরের ইউএনও মোহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ বলেন, নিয়ম অনুযায়ী বিল দেওয়ার জন্য আমরা নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কেউ যাতে হয়রানীর শিকার না হয় সে ব্যাপারে আমি কঠোর রয়েছি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24