বুধবার, ১৩ নভেম্বর ২০১৯, ০৬:০০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে জুয়া খেলার দায়ে আ.লীগ নেতাসহ চারজনের কারাদণ্ড এরালিয়া বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৭ শিক্ষার্থী ফরম পূরন থেকে বঞ্চিত নতুন সড়ক আইন সংশোধনের দাবিতে জগন্নাথপুরে পরিবহন ধর্মঘট পালন, জনভোগান্তি জগন্নাথপুরে গানে গানে মাতিয়ে গেলেন ‘ক্লোজআপ ওয়ান’র তারকা শিল্পী সালমা আইন শৃঙ্খলা সভা: জগন্নাথপুরে মাদক বিরোধী অভিযান জোরদারের আহবান জগন্নাথপুরে সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার দুই ট্রেনের মুখামুখি সংঘর্ষে নিহত ১৬ রাধারমন দত্ত এ দেশের লোক সংস্কৃতির ভান্ডার কে সমৃদ্ধ করেছেন: জেলা প্রশাসক ‘আওয়ামী লীগে দুঃসময়ের কর্মী চাই, বসন্তের কোকিল না’ জগন্নাথপুরে মূল্য তালিকা না থাকায় ভ্রাম‌্যমান আদাতের অভিযানে জরিমানা আদায়

জগন্নাথপুরে ১২ বছরেও চালু হয়নি এক্সরে মেশিনটি, সেবা থেকে বঞ্চিত উপজেলাবাসী

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮
  • ১৬২ Time View

আলী আহমদ ::
১২ বছর পূর্বে আড়াই লাখ মানুষের সেবাদানের লক্ষ্যে আনা হয় একটি এক্সরে মেশিন। কিন্তুু র্দীঘ একযুগ পেরিয়ে গেলেও এক্সরে মেশিনটি আজ অবধি চালু হয়নি। ফলে সেবা বঞ্চিত হচ্ছেন উপজেলাবাসী। এটি প্রবাসি অধ্যুষিত সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিত্র।
উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্র জানায়, জগন্নাথপুরের আড়াই লাখ মানুষের একমাত্র অবলম্বন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। এ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ও ২০০৬ সালে উপজেলাবাসীর স্বাস্থ্য সেবার লক্ষ্যে নতুন একটি এক্সরে মেশিন আনা হয়। তখন থেকে এক্সরে মেশিনের চালক না থাকায় মেশিনটি ব্যবহার করা যায়নি। এছাড়াও ওই সময় জগন্নাথপুর উপজেলায় বিদ্যুতের লো-ভোল্টজ বিরাজমান থাকার কারনে এক্সরে মেশিনটি চালু করা সম্ভব হচ্ছেনা বলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তৃপক্ষে জানান। গত ৫ বছর পূর্বে জগন্নাথপুরের লো-ভোল্টেজের সমস্যা সমাধান হলেও উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে এক্সরে মেশিনটি আর চালু হয়নি। ফলে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসা লোকজন এক্সরের কাজটি বাহিরের এক্সেরে সেন্টার থেকে বেশি টাকা দিয়ে সেবা নিচ্ছেন। লোকবল সংকটের অজুহাতে র্দীঘদিন ধরেই এক্সরে মেশিন পরিত্যক্ষ অবস্থায় পড়ে থাকায় বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। গত বৃহস্পতিবার স্থানীয় সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান আকস্মিকভাবে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরির্দশন করতে গেলে এসময় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তিকৃত রোগীরা নানা সমস্যার কথা জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রীকে।
উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর দেলোয়ার হোসেন জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, উপজেলার আড়াই লাখ মানুষের সেবাদানের জন্য প্রায় ১২ বছর পূর্বে একটি এক্সরে মেশিন আনা হয়নি। কিন্তুু মেশিনটি আজও চালু হয়নি। যে কারনে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসা লোকজন বাহিরের রোগ নির্নয় কেন্দ্রে থেকে অতিরিক্ত টাকা নিয়ে এক্সরের কাজ করাচ্ছেন। লোকবলের অজুনাতে এক্সরে মেশিনটি চালু করা হচ্ছে না।
জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা:শামস উদ্দিন আহমদ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, লোকবলের সংকটে এক্সরে মেশিনটি চালু করা সম্ভব হচ্ছে না। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। এছাড়া এ বিষয়টি স্থানীয় সাংসদ অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী অবহিত হওয়ায় ভাল হয়েছে। এক্সরে যন্ত্রটি এত দিন ধরে ব্যবহার না হওয়ায় সেটি ব্যবহার উপযোগী রয়েছে কীনা জানতে চাইলে ডাক্তার শামস উদ্দিন জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন,সেটি পরীক্ষা না করে বলা যাচ্ছেনা তবে আমার মনে হয় ৫০ বছর আগে তৈরী হাসপাতালের একটি পরিত্যক্ত কক্ষে বসানো মেশিনটি ভাল থাকার কথা নয়। তিনি বলেন, আমি এ উপজেলায় যোগদান করে ডিজিটাল এক্সরে মেশিনের জন্য আবেদন করেছি।
অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শন করতে গিয়ে রোগী ও চিকিৎসকদের কাছ থেকে সমস্যার কথা শুনে স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাকে সমস্যাগুলো আমাকে লিখিতভাবে অবহিত করতে বলেছি। এক্সরে মেশিনের চালকসহ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সমস্যা সমাধানে সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে সমাধানের চেষ্ঠা করব

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24