রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:৫৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার সম্পন্ন, ১২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত জগন্নাথপুরে প্রবাসি সংগঠনের উদ্যেগে দরিদ্র মানুষের মধ‌্যে ত্রাণ বিতরণ দিরাইয়ে সংঘর্ষ, গুলিতে নিহত ১, গুলিবিদ্ধসহ আহত ২০ ফ্রান্স আওয়ামী লীগের উদ্যাগে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালিত ভারতীয় মুসলিমদের পাশে থাকার আহবান ভারত থেকে ৯ পণ্য আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার বাংলাদেশের সমাজ মেরামতের দায়িত্ব আলেমদের জগন্নাথপুরে ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাস্টের রিসোর্স সেন্টারের কাজ পরিদর্শনে ট্রাস্টের প্রতিনিধিদল জগন্নাথপুরে একদিনে ১১ জন ডাক্তারের যোগদান জগন্নাথপুরে বেড়িবাঁধের ৩০ প্রকল্প অনুমোদন কাল কাজ শুরু হতে পারে

জগন্নাথপুর উপজেলা ছাত্রলীগের কান্ডারী কারা হচ্ছেন ?

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ২ জুলাই, ২০১৬
  • ৬৩ Time View

বিশেষ প্রতিনিধি:; অবশেষে জগন্নাথপুর উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি হতে যাচ্ছে। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর ৩ জুলাই জগন্নাথপুর উপজেলা ছাত্রলীগের ইফতার মাহফিল ও আলোচনাসভার মাধ্যমে ছাত্রলীগের নতুন কমিটি ঘোষনা হতে পারে এমন আশাবাদ নেতাকর্মীদের। নেতাকর্মীরাও অপেক্ষার প্রহর গুনছেন কারা আসছেন ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্বে। ইতিমধ্যে সভাপতি,সাধারন সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদের জন্য ডজনখানেক ছাত্রলীগ নেতা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ অভিভাবক সংগঠন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের কাছে ধর্ণা দিচ্ছেন। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জানান, ২০০৯ সালে সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের তৎকালীন সভাপতি তনুজ কান্তি দেব ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত কমিটিতে জগন্নাথপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে মুজিবুর রহমান মুজিব ও সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দিন জুয়েলকে দায়িত্ব দেয়া। নানা রাজনৈতিক প্রতিকূলতা মোকাবিলা করে মুজিব-জুয়েলের সফল নেতৃত্বে চলতে থাকে উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি। গত বছরের ২৬ এপ্রিল তাদের নেতৃত্বে সন্মেলনের দিনক্ষন চুড়ান্ত হলে জেলা আওয়ামীলীগের রাজনৈতিক বিভক্তি ও কোন্দল গ্রুপিং এর বলি হয়ে সকল প্রস্তুতি থাকার একদিন আগে তা স্থগিত করতে হয়। এরপর জেলা ছাত্রলীগের নেতারা জগন্নাথপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সন্মেলন প্রস্তুতি কমিটি ঘোষনা করে। ঘোষিত কমিটিতে শাহ সাহেদকে সভাপতি ও রুমেন আহমদকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। কিন্তু উক্ত কমিটি নিয়ে বিরোধ দেখা দিলে ছাত্রলীগের তৃণমুল নেতাকর্মীরা জুতা ও ঝাড়ু মিছিল করে।পরে জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি সিদ্দিক আহমদ এর নির্দেশনায় প্রস্তুতি কমিটি স্থগিত থাকে। অপরদিকে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মুজিবুর রহমান মুজিব উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংষ্কৃতিক সম্পাদক মনোনীত হওয়ার পর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সম্পাদক ছাত্রলীগের উপজেলা কমিটি বাতিল করে। এরপর থেকে পুরোপুরি নেতৃত্ব শুন্যতায় পড়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। পরে স্থানীয় সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ও জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সিদ্দিক আহমদ এর সাথে পরামর্শ করে ৩ জুলাই ইফতার মাহফিল ও আলোচনাসভার আদলে সন্মেলনের কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত হয়। ইতিমধ্যে উক্ত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি,বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন এডভোকেট শামসুন্নাহার বেগম শাহানা রব্বানী এমপি,জেলা পরিষদ প্রশাসক জেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক ব্যারিষ্টার এম এনামুল কবির ইমন,জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সিদ্দিক আহমদ, উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান আকমল হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু, উপজেলা আওয়ামীলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তাদীর আহমদ মুক্তা। সভায় প্রধান আলোচক হিসেবে থাকবেন জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি ফজলে রাব্বি স্মরণ,বিশেষ আলোচক থাকবেন জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রফিক আহমদ চৌধুরী।
ইতিমধ্যে উক্ত আলোচনাসভা ও ইফতার মাহফিলকে সফল করতে ছাত্রলীগের সন্মেলন প্রস্তুত কমিটির নেতারা জোর প্রচেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছেন। পাশাপাশি পদ পেতে করছেন জোর লবিং। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সন্মেলন প্রস্তুত কমিটির সভাপতি শাহ সাহেদ,সিনিয়র সহ-সভাপতি সাফরোজ ইসলাম মুন্না মুল লড়াইয়ে আছেন। ছাত্রলীগের গঠনতন্ত্র মোতাবেক দুজনের দায়িত্ব থাকার সুযোগ না থাকলেও সাফরোজ ইসলাম কে তৃনমুলের কর্মীরা সার্বক্ষনিক মাঠে সক্রিয় পাওয়ায় তার সম্ভাবনা রয়েছে। অপরদিকে শাহ সাহেদ অধিকাংশ সময় সিলেট শহরে বসবাস করায় সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করা নিয়ে রয়েছে সংশয়।সাধারণ সম্পাদক পদে রুমেন আহমদ,কল্যাণ কান্তি রায় সানী ও আব্দুল মুকিত এর নাম শোনা যাচ্ছে। তিনজনই মাঠে সক্রিয় থাকায় এ পদে লড়াই হাড্ডাহাড্ডি হবে।এছাড়াও সাফরোজ-সানী, শাহেদ-রুমেন,সাফরোজ রুমেন,ও রুমেন- আব্দুল মুকিত,সানী-মুকিত পরিষদ হতে পারে বলে গুঞ্জন রয়েছে। এছাড়াও ছাত্রলীগ নেতা সৈয়দ তানিন,সায়মন হোসেন রুমেন.তফাজ্জল হক সুমন,আবু হেনা রণি, তোহা চৌধুরী,মাহবুব হোসেন,আজমল হোসেন মিঠু,মাহমুদুল হাসান হিবলু,সজিব রায় দুর্জয় এর নাম গুরত্বপূর্ণ পদে আসতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে। উপজেলা ছাত্রলীগের সন্মেলন প্রস্তুত কমিটির সহ-সভাপতি সাফরোজ ইসলাম জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন,দীর্ঘদিন ধরে কমিটি না থাকায় ছাত্রলীগ ছন্নছাড়া। তাই আমরা সকল ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা একমত হয়েছি যাকেই নেতৃত্বে দেয়া হবে তা আমরা মেনে নিব। কিন্তু কমিটির কোন বিকল্প নেই।
ছাত্রলীগের সন্মেলন প্রস্তুত কমিটির সাধারণ সম্পাদক রুমেন আহমদ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটককে জানান,ছাত্রলীগের ইফতার মাহফিল ও আলোচনাসভার সকল প্রস্তুতি আমরা সম্পন্ন করেছি। সবাই নতুন কমিটির জন্য প্রস্তুুত
ছাত্রলীগের নতুন কমিটি গঠন প্রসঙ্গে জগন্নাথপুর ‍উপজেলা ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সভাপতি মুজিবুর রহমান মুজিব জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, দলের পরিক্ষিত ত্যাগী নেতাকর্মীদের সমন্ধয়ে গঠনতন্ত্র মোতাবেক নতুন কমিটি হোক সবার প্রত্যাশা। এজন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য ও অভিভাবক সংগঠনের নেতৃবৃন্দর পরামর্শ নেয়া দরকার। অপরদিকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ফজলে রাব্বি স্মরণ ও সাধারণ সম্পাদক রফিক আহমদ চৌধুরী জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন,জগন্নাথপুর উপজেলা ছাত্রলীগের নতুন কমিটি করতে কোন বাধা নেই। কমিটি করার পরিবেশ থাকালে আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মন্ত্রী এম এ মান্নানসহ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীর মতামত ও অভিভাবক সংগঠনের নেতাদের পরামর্শ নিয়ে কমিটি গঠন করা হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24