সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৬:৪৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
শালুকের ঠোঁটে ফুটে বিজয় || আব্দুল মতিন জগন্নাথপুর উপজেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন জগন্নাথপুরে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার সম্পন্ন, ১২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত জগন্নাথপুরে প্রবাসি সংগঠনের উদ্যেগে দরিদ্র মানুষের মধ‌্যে ত্রাণ বিতরণ দিরাইয়ে সংঘর্ষ, গুলিতে নিহত ১, গুলিবিদ্ধসহ আহত ২০ ফ্রান্স আওয়ামী লীগের উদ্যাগে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালিত ভারতীয় মুসলিমদের পাশে থাকার আহবান ভারত থেকে ৯ পণ্য আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার বাংলাদেশের সমাজ মেরামতের দায়িত্ব আলেমদের জগন্নাথপুরে ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাস্টের রিসোর্স সেন্টারের কাজ পরিদর্শনে ট্রাস্টের প্রতিনিধিদল

নিজের গায়ে আগুন দিয়ে পুলিশ নির্যাতনের প্রতিবাদ

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ৩০ জুন, ২০১৭
  • ৮২ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: ব্যাটারিচালিত রিকশাটিই শামীম সিকদারের একমাত্র সম্বল। দিনভর রিকশা চালিয়ে যা আয় করেন, তাই দিয়ে চলে তার ছয় সদস্যের পরিবার। মহাসড়কে তিন চাকার যান চলাচল নিষেধ-এ কারণে পুলিশ রিকশাটি আটক করে। শামীম কাকুতি-মিনতি করে ফেরত চাইলে, তাকে লাঠিপেটা করে। রিকশার লাইটও ভেঙে ফেলে। ব্যাটারি খুলে নেয়। পরে পুলিশের নির্যাতনের প্রতিবাদে শামীম গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন দেন।

শুক্রবার সকালে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে আশুলিয়ার বাইপাইল মোড়ে পুলিশবক্সের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

৩২ বছর বয়সী শামীম ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন।

বার্ন ইউনিটের আবাসিক চিকিৎসক পার্থ শঙ্কর পাল সমকালকে জানান, শামীমের শরীরের আট ভাগ দগ্ধ হয়েছে। তার দুই হাত, মুখমণ্ডল ও বুকের কিছু অংশ পুড়ে গেছে। তবে তিনি শঙ্কামুক্ত।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকাল ১০টার দিকে শামীম মহাসড়কে খালি রিকশা চালাচ্ছিলেন। পুলিশ এ সময় রিকশাটি জব্দ করে। রিকশাটি ছেড়ে দিতে অনুরোধ করে শামীম দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যদের বলেন, ‘স্যার এই রিকশাডাই আমার একমাত্র সম্বল। অনেক কষ্টে ৬০ হাজার টাকা ঋণ কইরা রিকশাডা লইছি। আমারে মারেন কিন্তু রিকশাডার ব্যাটারিটা খুইলা নিয়েন না। আপনার দুইটা পায়ে পড়ি স্যার।’ তবে পুলিশ সদস্যরা তার আকুতিতে কর্ণপাত না করে রিকশার ব্যাটারি খুলে নেন। এ সময় এক পুলিশ সদস্য শামীমকে লাঠিপেটা করেন। তার রিকশার হেডলাইটও ভেঙে ফেলেন।

বাইপাইলে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট আমিনুর রহমান জানান, রিকশা ফিরে না পেয়ে শামীম চলে যান। কিছুক্ষণ পর পুলিশবক্সের সামনে এসে নিজের গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেন। স্থানীয়রা পানি ঢেলে আগুন নেভান। পুলিশ তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি ক্লিনিকে ভর্তি করে। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়।

সাভার সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খোরশেদ আলম বলেন, মহাসড়কে ব্যাটারিচালিত যান চলাচল নিষিদ্ধ। এ কারণেই পুলিশ রিকশাটি আটক করে। কিন্তু রিকশাচালক নিজের গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

এ ঘটনাকে অপ্রত্যাশিত বললেও খোরশেদ আলম দাবি করেন, ঘটনাটি পুলিশের সামনে ঘটেনি। রিকশাচালক সুযোগ বুঝে এ ঘটনার সৃষ্টি করেছে।

অগ্নিদগ্ধ শামীমের গ্রামের বাড়ি বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জের ভাইজোড়া গ্রামে। তার বাবার নাম শাজাহান সিকদার। তিনি আশুলিয়ার নরসিংহপুরে মান্না ভূঁইয়ার বাড়িতে স্ত্রী ও চার মেয়েকে নিয়ে ভাড়া থাকেন।

তার প্রতিবেশীরা জানান, কিছু দিন আগেও শামীমের রিকশার ব্যাটারি খুলে নিয়েছিল পুলিশ। ঋণ করে আবারও ব্যাটারি কেনেন। পরিবারের সদস্যরা চিকিৎসাধীন শামীমের সঙ্গে ঢাকা মেডিকেল কলেজে থাকায়, তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
সুত্র- সমকাল

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24