সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ০৫:৪৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
দ.সুনামগঞ্জে চুরির দায়ে ইউপি সদস্য আটক কেমন ইমাম চাই সুনামগঞ্জে বিতর্কিতদের আওয়ামী লীগে স্হান না দিতে তৃণমূল নেতাদের দাবি প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী পরীক্ষা:জগন্নাথপুরে প্রথম দিনে অনুপস্থিত ২৬০ যুক্তরাজ্য বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে জগন্নাথপুর বিএনপির অভিনন্দন পেঁয়াজ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করলেন কাদের সিদ্দিকী ‘ব্রিটিশ বাংলাদেশী হুজহু’র প্রকাশনা ও এওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানের বারোতম আসর বর্ণাঢ্য আয়োজনে সম্পন্ন পেঁয়াজ খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছি:প্রধানমন্ত্রী জগন্নাথপুর পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড আ.লীগের কমিটি গঠন জগন্নাথপুরে অগ্নিকাণ্ডে নি:স্ব ৮ পরিবার আশ্রয় নিলেন স্কুলে.মানবেতর জীবন যাপন

নিরীহ গ্রামবাসীর ওপর মামলা-এলাকায় উত্তেজনা

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ৯ জুন, ২০১৮
  • ১৫৮ Time View

স্টাফ রিপোর্টার:
জগন্নাথপুর উপজেলার চিলাউড়া-হলদিপুর ইউনিয়নে ইসমাইলচক গ্রামে মসজিদ সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধের জের ধরে আধিপত্য বিস্তার করতে না পেরে নিরীহ গ্রামবাসীর ওপর মিথ্যা মামলা দায়েরের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। দেখা দিয়েছে উত্তেজনা।
জানা গেছে ইসমাইলচক গ্রামের চন্দু মিয়ার ছেলে জুবায়ের আহমদ গত ৪জুন জগন্নাপুর থানায় তার মালিকানাধীন মাছের ফিসারিতে থাকা পাহাড়াদারকে মারধর করে পাহাড়াদারের স্ত্রীর গলা থেকে এক ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইন আট আনা ওজনের কানের দোল,ও জাল ফিলিয়া ৭০ হাজার টাকা মাছ লুট করে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ করেন। পুলিশ মামলা রেকর্ড করে তদন্তে গেলে এলাকাবাসী বিষয়টি জানতে পারেন। এসময় পুলিশ দেখে কি হয়েছে জানতে গেলে গ্রামের নানু মিয়া নামের এক ব্যক্তিকে পুলিশ গ্রেফতার করে।
গ্রামের বাসিন্দারা জানান,জোবায়ের আহমদ গ্রামের মসজিদের মুত্তায়ল্লি থাকাবস্থায় আর্থিক নানা বিষয়াদী নিয়ে বিরোধ দেখা দিলে গ্রামবাসী সর্বসন্মতিক্রমে তাকে এ দায়িত্ব থেকে বাদ দেন। এছাড়াও রমজানমাসে তার ভাই কে হাফিজ হিসেবে রাখার প্রস্তাব দিলে ওই প্রস্তাব গৃহিত না হওয়ায় তিনি ক্ষুব্দ হয়ে উঠেন। যার প্রেক্ষিতে কোন ধরনের ঘটনা ছাড়াই গ্রামবাসীতে ফাঁসাতে গ্রামের বিভিন্ন গোষ্টির সাত জনের নাম উল্লেখ পূর্বক ও অঞ্জাতনামা আরো ৫/৬ জনের নামে কাল্পনিক ঘটনা সাজিয়ে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন।
গ্রামের বাসিন্দা ইসমাইলচক জামে মসজিদের মুত্তায়ল্লি বীর মুক্তিযোদ্ধা মনা মিয়া বলেন,গ্রামে মৎস্য খামারে লুটপাট কিংবা মারামারি কোন ঘটনা ঘটেনি। হয়রানীমুলকভাবে এ মামলা দায়ের করা হয়েছে।
গ্রামের বাসিন্দা এলাইছ মিয়া বলেন, এধরনের হয়রানীমুলক মামলায় গ্রামবাসী হতবাক। পুলিশ দেখে এগিয়ে যাওয়া নানু মিয়া কে গ্রেফতার প্রমান করে মামলাটি কতটুকু মিথ্যা। এছাড়াও পাহাড়াদারের স্ত্রীর একভরি আটআনা স্বর্ণ লুটপাট হাস্যকর অভিযোগ। তিনি আরো অভিযোগ করে বলেন,নিজের নিকট আত্বীয়দেরকে স্বাক্ষী বানিয়ে মিথ্যা অভিযোগে মামলা রেকর্ড হওয়ায় এলাকাবাসী বিক্ষুব্দ। এ নিয়ে গ্রামে তীব্র ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছে বলে তিনি জানান।
এবিষয়ে জানতে চাইলে জগন্নাথপুর থানার ওসি হারুনুর রশিদ চৌধুরী বলেন,ঘটনাটি অধিকতর তদন্ত করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24