বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:২০ পূর্বাহ্ন

নৌকা প্রতিক পেতে কেন্দ্রে নালিশ করলেন জগন্নাথপুরের নিপুর

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ২২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৬
  • ৪৫ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েণ্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: সিলেট সদর উপজেলার টুলটিকর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতীক পেতে কেন্দ্রে নালিশ করেছেন সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হিরণ মাহমুদ নিপু। শনিবার রাতে ঢাকায় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ৪ নেতার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে নালিশ করেছেন নিপু।

ওই সময় নিপু আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা ওবায়দুল কাদের চৌধুরী, মাহবুবুল আলম হানিফ, দিপু মনি, জাহাঙ্গির কবির নানকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আবেদন পত্রে তিনি দাবি করেছেন তৃণমূলের মতামতকে উপেক্ষা করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো আবেদনপত্রে তিনি দাবি করেছেন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় সকল ওয়ার্ডের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ২০জন কাউন্সিলরের গোপণ ভোটে সর্বোচ্চ ১২ ভোট পান তিনি। কিন্তু মনোনয়ন বোর্ডে থাকা ৬ নেতা তৃণমূলের সিদ্ধান্তকে না মেনে ইউনিয়নের প্রার্থীতার ব্যাপারে পরে সিদ্ধান্ত জানানো হবে বলে জানান। ১৬ ফেব্র“য়ারি নগরীর তালতলাস্থ একটি হোটেলে ডাকা হয় টুলটিকর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সম্পাদককে।

হিরন মাহমুদ নিপু উল্লেখ করেন, ওইসময় সিলেট আওয়ামীলীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ বলেন তারা টুলটিকর ইউনিয়নে প্রার্থী বাছাই করতে পারছেন না। গোপণ ভোটের হিসেব কেন্দ্রে পাঠাতে হবে বলে ইউনিয়নের সভাপতি ও সম্পাদকের কাছে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেন। এরপর তাদের ভূমিকা রহস্যজনক হয়ে ওঠে। তৃণমূলের নেতাকর্মীরা এমন অবস্থার প্রেক্ষিতে সংবাদ সম্মেলন করেন। তারা দাবি করেন তৃণমূলের প্রাপ্ত ভোটের তথ্য প্রকাশ করার জন্য আর ভোটের ভিত্তিতেই প্রার্থী মনোনয়নের।

বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সভায় প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করা হয়। চূড়ান্ত তালিকায় ওই দিন ১২ ভোট পেয়েও প্রার্থীতার তালিকা নাম না দেখে নিজের মাঝে রক্তক্ষরণ হচ্ছে দাবি করে প্রার্থীতার বিষয়টি পূর্ণবিবেচনার জন্য ও নৌকা প্রতীক তাকে দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেছেন নিপু।

আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রাপ্ত বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল মছব্বিরের ব্যাপারে হিরণ মাহমুদ নিপু প্রধানমন্ত্রীর কাছে বলেছেন, আবদুল মছব্বির সংগঠনবিরোধী কার্যকলাপে লিপ্ত। তার বিরুদ্ধে জামায়াতের সাথে সখ্যতা, জায়গা দখলসহ নানা অভিযোগ বিদ্যমান। মছব্বির একসময় বিএনপি নেতাও ছিলেন বলে দাবি করেন নিপু।

উল্লেখ্য, এবারের ইউনিয়ন নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মনোনয়ন লাভের জন্য ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দের ভোটে নির্বাচিতদের নাম সুপারিশ করার জন্য জেলা ইউনিটকে বলা হয় কেন্দ্র থেকে। কিন্তু সিলেট সদরের টুলটিকর ইউনিয়নে নেতৃবৃন্দের ভোটে হিরন মাহমুদ নিপু নির্বাচিত হলেও মনোনয়ন পাননি তিনি।
সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হিরন মাহমুদ নিপুর গ্রামের বাড়ি জগন্নাথপুর পৌরএলাকার লুদরপুর গ্রামে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24