বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৪০ অপরাহ্ন

পুলিশকে গণমানুষের আস্থা অর্জন করতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৫
  • ৪২ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক::প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষানবিস সহকারী পুলিশ সুপারদের উদ্দেশে বলেছেন, ‘মানুষ তার চরম বিপদের সময় পুলিশের কাছে সাহায্যের জন্য যায়। আইনি সেবা দিয়ে ও মানবিক আচরণ করে গণমানুষের আস্থা অর্জন করতে হবে।’ বৃহস্পতিবার সকাল ১১টা ২০ মিনিটে বাংলাদেশ পুলিশ একাডেমি সারদায় অনুষ্ঠিত ৩৩তম বিসিএস (পুলিশ) ব্যাচের সমাপনী কুচকাওয়াজে প্রধান অতিথির ভাষণে এসব কথা বলেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য একবিংশ শতাব্দির চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় একটি যুগোপযোগী আধুনিক পুলিশ বাহিনী গড়ে তোলা। এজন্য আমরা বিভিন্ন বাস্তবমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। পুলিশের সাংগঠনিক কাঠামোতে ৭৩৩টি ক্যাডার পদসহ ৩২ হাজার ৩১ টি পদ সৃষ্টি করা হয়েছে। তারপরও জনসংখ্যার অনুপাতে পুলিশের জনবল যথেষ্ট নয়। তাই পুলিশে আরো নতুন ৫০ হাজার পদ সৃষ্টির সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ইতিমধ্যে ১০ হাজার পুলিশ সদস্য নিয়োগ হয়েছে, অবশিষ্ট জনবল শিগগিরই নিয়োগ করা হবে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি-জামাত জোটের সন্ত্রাসীরা বরাবরই তাদের জঙ্গী ও নাশকতামূলক কাজে পুলিশকে টার্গেট করেছে। কারণ একটাই, পুলিশকে দুর্বল করতে পারলে তাদের অসৎ উদ্দেশ্য হাসিল হবে। বারবার আঘাত আসার পরও পুলিশ সাহসের সাথে এই নাশকতা, জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলা করছে।’

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর খুনী, জাতীয় চার নেতার খুনী ও একাত্তরের ঘাতকদের বিচারের মাধ্যমে এদেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার যে সোপান আমরা রচনা করেছি তাতে পুলিশ বাহিনীর অবদান অনস্বীকার্য।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘২০০৯ সাল থেকে এ পর্যন্ত দুই মেয়াদে আমাদের সময়োচিত পদক্ষেপের ফলে দেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত হয়েছে। দেশের কৃষি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, যোগাযোগ, তথ্য-প্রযুক্তি, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি, গ্রামীন উন্নয়ন ও অবকাঠামো উন্নয়নসহ প্রতিটি সেক্টরে আমূল পরিবর্তন এনেছি।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের জীবনযাত্রার মান বেড়েছে। মাথাপিছু আয় এখন এক হাজার ৩১৪ ডলার। দারিদ্রোর হার ২২ দশমিক চার শতাংশে নেমে এসেছে। রপ্তানি আয় বেড়ে হয়েছে ৩১ দশমিক দুই বিলিয়ন মার্কিন ডলার। পাঁচ কোটি মানুষ নিম্ন আয়ের স্তর থেকে মধ্য আয়ের স্তরে উন্নীত হয়েছে। সাড়ে ১৬ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক ও ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কেন্দ্র গ্রামের মানুষকে স্বাস্থ্য সেবা দিচ্ছে। শিক্ষার হার ও মান বেড়েছে। দেশের ৭৫ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পাচ্ছেন। আমাদের লক্ষ্য ২০২১ সালের আগেই দেশ মাধ্যম আয়ের এবং ২০৪১ সালের মধ্যে দেশ উন্নত সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করা।’

৩৩তম বিসিএস (পুলিশ) ব্যাচের সহকারি পুলিশ সুপারদের এক বছরের প্রশিক্ষণ শেষ হলো। এবারের সমাপনী কুচকাওয়াজে অংশ নেন ১৬১ জন নবীন পুলিশ কর্মকর্তা। এর মধ্যে ২৬ জন নারী পুলিশ কর্মকর্তা কুচকাওয়াজে অংশ নেন।

এক বছর মেয়াদী প্রশিক্ষণে অশ্বারোহনে প্রথম স্থান অধিকার করায় ফারুক হোসেনকে, একাডেমিক্সে রেজওয়ানা চৌধুরী এবং সর্ব বিষয়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করায় শিক্ষানবীশ সহকারি পুলিশ সুপার পঙ্কজ বড়ুয়াকে প্রধানমন্ত্রী পদক প্রদান করেন।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় হেলিকপ্টারযোগে প্রধানমন্ত্রী সারদা পুলিশ একাডেমিতে অবতরণ করেন। এরপর তিনি নবনির্মিত অতিথি ভবন ‘তরুনিমা’ উদ্বোধন করেন তিনি। সকাল ১০টা ৩৯ মিনিটে প্যারেড গ্রাউন্ডের নবনির্মিত গ্যালারীর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। এর আগে সকাল সাড়ে ১০ টায় প্রধানমন্ত্রী অভিবাদন গ্রহন করেন। এরপর তিনি কুচকাওয়াজ, ট্রফি বিতরণ ও ভাষণ দেন। সকাল ১১ টা ২০ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী প্রধান অতিথির ভাষণ দেন। তিনি দুপুর সাড়ে ১২ টায় পদ্মা নদীর তীরে নবনির্মিত অতিথি ভবন ‘উর্মি’র উদ্বোধন করবেন।

অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) একেএম শহিদুল হক।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24