রবিবার, ২৫ অগাস্ট ২০১৯, ০৫:৩৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
ভিডিও কেলেঙ্কারি : জামালপুরে নতুন ডিসি নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জগন্নাথপুরে সৈয়দপুর গ্রামবাসীর উদ্যোগে সভা অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের নির্বাচন সম্পন্ন:সভাপতি পঙ্কজ দে,সেক্রেটারী মহিম জগন্নাথপুরে নৌকাবাইচ:এবার সোনার নৌকা,সোনার বৈঠা জিতল কুতুব উদ্দিন তরী জগন্নাথপুরে সড়ক সংস্কার-অবৈধ যান অপসারণের দাবীতে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি মালিক,শ্রমিক নেতারদের জগন্নাথপুরে এনজিও সংস্থা আশা’র উদ্যোগে তিনদিন ব্যাপি ফিজিওথেরাপী চিকিৎসা ক্যাম্প শুরু জগন্নাথপুরে মারামারি মামলাসহ বিভিন্ন ওয়ারেন্টের ১১ আসামী গ্রেফতার জগন্নাথপুরে পুকুরের পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু জগন্নাথপুরে ডেঙ্গু প্রতিরোধে সচেতনতামুলক সভা অনুষ্ঠিত ২১ আগস্টের মাস্টারমাইন্ডদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে আপিল করা হবে: ওবায়দুল কাদের

বাজার অস্থিতিশীল জগন্নাথপুরে মাংসের কেজি ৬০০ টাকা, দেখার কেউ নেই

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ১৯ মে, ২০১৮
  • ৪৬ Time View

স্টাফ রিপোর্টার :: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে পবিত্র মাহে রমজান মাস শুরুর সঙ্গে সঙ্গে দ্রব্যমূল্যের বাজার অস্থিতিশীল হয়ে উঠেছে। বাজার তদাকরিতে স্থানীয় প্রশাসনের কোন পদক্ষেপ না থাকায় বিক্রেতার তাদের নিজেদের ইচ্ছামতো লাগামহীনভাবে দ্রব্য মূল্যে বৃদ্ধি করে ক্রেতাদের ওপর এক ব্যবসার নামে এক ধরনের নিযার্তন চালিয়ে দেদারছে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন ব্যবসায়ীরা। গত তিন/চার দিন ধরে বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যে চড়াদামে বিক্রি হচ্ছে।
আজ শনিবারও সরেজমিনে জগন্নাথপুর উপজেলা বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।
সারা দেশব্যাপি রমজান মাসে গরুর মাংসের দাম প্রতিকেজি ৪৫০ টাকা নির্ধারণ করা হলেও জগন্নাথপুরে ৫৫০-৬০০ টাকা দরে প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও মাছ, মুরগি ও সবজি বাজারে লাগামহীনভাবে দ্রব্যমূল্যে বাড়ানো হয়েছে। রোজার তিন/চার দিন পূর্বে বাজার স্থিতিশীল থাকলেও রোজার আগের দিন (বৃহস্পতিবার) ও গতকাল শুক্রবার জগন্নাথপুর উপজেলা সদর বাজার ঘুরে চড়া দামে মাছ মাংস ও নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য বিক্রির তথ্য জানা যায়।
বাজারে আসা এক ক্রেতা বলেন, এসেছিলাম গরুর মাংস কিনতে। কিন্তুু অতিরিক্ত দাম থাকায় ক্রয় করতে পারলাম না। তিনি বলেন, রোজার মাসে গরুর মাংস প্রতিকেজি ৪৫০টা নির্ধারণ করা হলেও জগন্নাথপুর বাজারে ৫৫০-৬০০টা দরে বিক্রি করা হচ্ছে। মানুষের চাহিদা বেশি থাকায় ব্যবসায়ীরা দাম বাড়িয়ে ব্যবসার নামে এক ধরনের ডাকাতি করছেন।
মুরগির বাজার ঘুরে দেখা যায়, লাল মুরগি প্রতিকেজি ৩৭৫-৩৮০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। সাদা মুরগি প্রতিকেজি ১৪৫-১৫০ টাকা। দুইদিন পূর্বে লাল মরগির কেজি ছিল ৩১০-৩১৫ এবং সাদা মুরগি প্রতিকেজি বিক্রি হয়েছে ১২৫-১৩০টাকা
এছাড়া সবজি বাজারে সপ্তাহখানিক পূর্বে টমেটো প্রতি কেজি বিক্রি হতো ৪০ টাকা এখন বিক্রি হচ্ছে ৬০-৭০ টাকা, বেগুন প্রতি কেজি ৬০ টাকা, শশা প্রতিকেজি ৬০-৬৭ টাকা, গাঁজর প্রতিকেজি ৬০-৭০টাকা, চিঙ্গা প্রতিকেজি ৫৫-৬০টাকা, চিচিঙ্গা প্রতিকেজি ৬০টা মূল্যে বিক্রি হয়েছে।
এদিকে মাছ বাজারে মাছের তীব্র সংকট রয়েছে। দেশী মাছ চোখেই পড়েনি। অস্বাভাবিক চড়াদামে ফিসারির মাছ বিক্রি হতে দেখা যায়। নাম প্রকাশ না করে একজন শিক্ষক বলেন,আমাদেও মতো মধ্যম আয়ের মানুষের মাছ ক্রয় করা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। রোজার জন্য মাছ কিনতে গিয়ে অস্বাভাবিক দামের কারণে না কিনেই ফিরতে হয়েছে।
জগন্নাথপুরের ইউএনও মোহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, রোজাকে সামনে রেখে যারা বাজার অস্থিতিশীল করছে তাদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার মাধ্যমে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24