রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের নামাজ শেখানো হয় যে বিদ্যালয়ে পানির নিচে প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দিতে গিয়ে মৃত্যু! সিলেটে চারদিনের রিমান্ডে পিযুষ যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ২ জগন্নাথপুরে ৩৯টি মন্ডপে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি,চলছে প্রতিমা তৈরীর কাজ জগন্নাথপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কমিটির বিরুদ্ধে অপপ্রচারে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে ৬ মাসেও বকেয়া টাকা মিলেনি, ঋণের চাপে দিশেহারা পিআইসিরা জগন্নাথপুরে ৬ মাসেও বকেয়া টাকা মিলেনি, ঋণের চাপে দিশেহারা পিআইসিরা বেড়াতে গিয়ে বাড়ি ফেরার পথে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল জগন্নাথপুরের এক যুবকের মাথায় ৪ ইঞ্চি লম্বা শিং এই বৃদ্ধের!

বাল্যবিয়ের অপরাধে যুবক ও কাজী গ্রেফতার

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ১২ জুলাই, ২০১৭
  • ৩৬ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: রাজশাহীর তানোরে বাল্যবিয়ের অপরাধে প্রেমিক ও কাজীসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

নবম শ্রেণির ছাত্রীকে তুলে নিয়ে বিয়ে করায় যুবকের বিরুদ্ধে অপহরণের মামলা করেন মেয়ের বাবা।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ও রাতে পৃথক স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

বুধবার বেলা ১২টার দিকে তাদের আদালতে পাঠানো হয়।

মামলার বিবরণ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ভাগনা মানিককন্যা গ্রামের খলিলুর রহমানের কলেজ পড়ুয়া ছেলে শাকিল (১৯) একই উপজেলার মোহর গ্রামের সাহাবুদ্দিনের নবম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়ে সারমিন আক্তার শিক্কার (১৩) সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রেমের টানে চলতি মাসের ৭ জুন স্কুল থেকে তারা পালিয়ে যায়।

পরে মেয়ের বাবা খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন জেলার মোহনপুর উপজেলার সইপাড়া গ্রামের বিবাহ রেজিস্ট্রার (কাজী) মোকাদ্দিন হোসেন তাদের বালাবিয়ে রেজিস্ট্রি করেছেন।

এনিয়ে মেয়ের সাহাবুদ্দিন বাদী হয়ে মঙ্গলবার তানোর থানায় অপহরণ ও বাল্যবিয়ে দেয়ার অপরাধে মামলা দায়ের করেন। এতে শাকিল, তার বাবা খলিলুর রহমান, খালু আইনাল হক এবং তার বন্ধু রফিকুলসহ কাজী মোকাদ্দিনকে আসামি করা হয়।

পরে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রাজশাহীর নগরীর জিয়াপার্ক থেকে শাকিল ও তার বন্ধু রফিকুলকে গ্রেফতার ও তাদের সঙ্গে থাকা শিক্কাকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরে শাকিলকে জিজ্ঞাসাবাদের পর মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৪টার দিকে কাজী মোকাদ্দিন হোসেনকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার হওয়া শাকিল বলেন, আমরা পরস্পরকে ভালোবাসি। দু’জনের সম্মতিতেই বিয়ে হয়েছে।

স্কুলছাত্রী সারমিন আক্তার শিক্কার বলেন, আমি শাকিলকে ভালোবাসি,তার সঙ্গে আমার সম্মতিতেই বিয়ে হয়েছে। সে আমাকে অপহরণ করেনি।

তানোর থানার ওসি রেজাউল ইসলাম বলেন, তিনজনকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24