শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৪:২২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে তিনদিন ব্যাপি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন ব্রিটেনের নির্বাচনে আফসানার বড় জয়ে জগন্নাথপুরে উৎসবের আমেজ ব্রিটিশ পালার্মেন্টে ঝড় তুলবে বিজয়ী বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ৪ নারী এমপি ব্রিটেনের নির্বাচনে একটি আসনে বিশাল জয় পেয়েছেন জগন্নাথপুরের আফসানা বেগম অপরাধীদের প্রতি মহানবীর আচরণ যেমন ছিল সুদখোরদের ধরতে জেলা ও উপজেলায় মাঠে নামছে প্রশাসন জগন্নাথপুরে হাওরের জরিপ কাজ শেষ, কাজের তুলনায় বরাদ্দ কম, প্রকল্প কমিটি হয়নি একটিও জগন্নাথপুরে ডিজিটাল বাংলাদেশ উপলক্ষ্যে র‌্যালি, চিত্রাঙ্কন ও কুইজ প্রতিযোগিদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ জগন্নাথপুরে শিশু সাব্বির হত্যার ঘটনার গ্রেফতার-১ এনটিভি ইউরোপের জগন্নাথপুর প্রতিনিধি নিয়োগ পেলেন আব্দুল হাই

মসজিদে ঢুকে সন্ত্রাসীরা কোপাল এক ইউপি সদস্যকে

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ১৭ মে, ২০১৭
  • ৫৩ Time View

দক্ষিন সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা :
দক্ষিণ সুনামগঞ্জের পাগলায় সেতু’র কাজে অনিয়মের ছবি ফেইসবুকে দেখে শেয়ার দেওয়ায় ইউপি সদস্য রঞ্জিত সুত্রধরকে বেধরক মারপিট করা হয়েছে। ঠিকাদারের আত্মীয় স্বজনের ধাওয়া খেয়ে মসজিদে ঢুকেও রক্ষা পেলেন না ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য রঞ্জিত সুত্রধর। মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৪ টায় এ ঘটনা ঘটেছে। মারধরের আঘাতে রঞ্জিতের মাথা ফেটে মসজিদের বারান্দা রক্তে ভেসে যেতে দেখা গেছে। গুরুতর আহত পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য রনজিত সূত্রধর (৩৫) কে আশংকাজনক অবস্থায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
জানা যায়, পশ্চিমপাগলা ইউনিয়নের শত্রুমর্দন গ্রামের মিস্ত্রী হাটির সামনে একটি সেতু’র কাজ করেছিলেন এই ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান রেজাউল আলম নিক্কু। কাজটি নি¤œমানের হচ্ছে এমন কথা বলে সেতুর ছবি তুলে ফেইসবুকে স্ট্যাটাস দেন মহল্লার অ্যাডভোকেট রাধা কান্ত সূত্রধর। পরে ইউপি সদস্য রঞ্জিত সুত্রধরও এই সেতুর নি¤œমানের কাজ নিয়ে ছবিসহ ফেইসবুকে পোস্ট দেন। এই অপরাধে রেজাউল আলম নিক্কুর আত্মীয়-স্বজনরা রঞ্জিত সুত্রধরকে বেধরক পেটায়। দৌঁড়ে রঞ্জিত পাশের একটি মসজিদে (কান্দিগাঁও মসজিদে) ঢুকেও রক্ষা পাননি। সেখানে ঢুকেও তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়। গুরুতর আহত রঞ্জিতকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তার অবস্থা আশংকাজনক। ঘটনার পর উত্তেজিত এলাকাবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়ে রেজাউল আলম নিক্কুর বাড়ির দিকে রওয়ানা দেয়। পুলিশ পথে বিক্ষুব্ধ লোকজনদের আটকে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেওয়ায় উত্তেজিত এলাকাবাসী ফিরে আসেন।
ঘটনার সময় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক (রফিক গ্রুপ) মুনসুর আলম সুজন উপস্থিত ছিলেন বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।
মুনসুর আলম সুজন এ প্রতিবেদককে মুঠোফোনে বলেন, ‘আমি জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক রফিক গ্রুপের উপজেলা কমিটির আহ্বায়ক। ঘটনার সময় আমি বাজারে ছিলাম। দৌঁড়ে গিয়ে দেখেছি লোকজন মারামারি ফিরাচ্ছেন।’
শুনেছি মসজিদে মারা হয়েছে, আপনিও ছিলেন মারধরে? এমন প্রশ্নের জবাবে সুজন বলেন, ‘মসজিদে মারামারি হয়েছে বলে শুনেছি আমি। যারা ঘটনায় যুক্ত ছিল তারা আমার আত্মীয়। এজন্য অনেকে আমাকে এই পক্ষের বলছেন। আপনার আত্মীয়দের নাম কী? এই প্রশ্নের উত্তরে সুজন বললেন, ‘এরা বয়সে অনেক ছোট, নাম জানি না।’
কান্দিগাঁও গ্রামের মসজিদের সাবেক মোতাওয়াল্লি আব্দুন নূর বলেন, ‘মসজিদের ভেতরেই ইউপি সদস্যকে কোপানো হয়েছে। এখনও (রাত ৮ টা) রক্তের দাগ রয়েছে। এটি দুঃখজনক।’
পশ্চিম পাগলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল হক বলেন, ‘সেতু’র কাজ নি¤œমানের হয়েছে উল্লেখ করে গ্রামের অ্যাড. রাধা কান্ত সুত্রধরের ফেইসবুক স্ট্যাটাসে শেয়ার দিয়েছিলেন রঞ্জিত। এজন্য তাকে মারপিট করা হয়েছে। এ ঘটনায় উত্তেজনা দেখা দিয়েছিল। থানার ওসি এসে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আসামী গ্রেপ্তারের আশ্বাস দেওয়ায় পরিস্থিতি শান্ত হয়েছে।’
রেজাউল আলম আলম নিক্কু বলেন, রাধাকান্ত সূত্রধর আমার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের নির্মিত একটি ব্রীজের কাজে অনিয়ম হয়েছে বলে ফেইসবুকে একটি লিখা আপলোড করেছে। আমি রাধাকান্তের সাথে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছি, সে বলেছে আমার সম্পর্কে কিছু লেখেনি, এটি অন্য একজনকে ইঙ্গিত করেছে জানিয়ে লেখা ডিলিট করার আশ্বাস দেয় সে। কিন্তু ইউপি সদস্য রঞ্জিত আমার নামসহ দুর্নীতির কথা উল্লেখ করে পোস্ট দেয়। আমি তাকে পোস্টটি ডিলিট করার জন্যে অনুরোধ করেছি। সে ডিলিট করে নি। আমার গোষ্ঠী অনেক বড়। ইতোমধ্যে এটি সারা এলাকায় ছড়িয়ে যায়। আমার আত্মীয়দের অনেকেই এ বিষয়টি নিয়ে উত্তেজিত হন। দুপুরের দিকে দুই জন ছাত্রলীগ কর্মী ও আমার ভাগ্না পোস্টটি ডিলিট করার জন্যে তাকে (রঞ্জিতকে) পাগলা বাজারে অনুরোধ করে, কিন্তু রঞ্জিত এটি ডিলিট করেনি। বিকেলের দিকে আমি ঘুমিয়েছিলাম, শুনলাম আমার গোষ্ঠীর মানুষ রঞ্জিতকে বাড়ি যাওয়ার পথে মসজিদে মারধর করেছে। আমাকে নিয়ে ঘটনাটি হওয়ায় আমি বিব্রত।’
দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার ওসি আলামিন বলেন, ‘এই ঘটনায় কেউ অভিযোগ নিয়ে আসেনি। অভিযোগ দিলে মামলা নেব।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24