বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:১০ অপরাহ্ন

রাধারমণ দত্তের মৃত্যু শতবার্ষিকী পালনে ৮ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে রাষ্ট্রীয়ভাবে তিন দিনের উৎসব

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০১৫
  • ৩৯ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক:: গীতি কবি রাধারমণ দত্ত পুরকায়স্থের মৃত্যু শতবার্ষিকী উপলক্ষে প্রথম বারের মতো রাষ্ট্রিয়ভাবে কবির জন্মভূমি জগন্নাথপুর ও জেলা শহর সুনামগঞ্জে রাধারমণ উৎসব পালন করার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। সংষ্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের পৃষ্টপোষকতায় উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ৮ নভেম্বর উপমহাদেশের প্রখ্যাত এই মরমী সাধক গীতি কবির জন্মভূমি জগন্নাথপুরে অনুষ্ঠিত হবে। তিন দিনব্যাপী উৎসবের দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিন জেলা শহর সুনামগঞ্জে অনুষ্ঠিত হবে। সুনামগঞ্জ জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত উৎসবকে প্রান্তবন্ত করতে দেশ বিদেশের রাধারমণ অনুরাগী শিল্পীরা সঙ্গীত পরিবেশনার পাশাপাশি রাধারমণ দত্তের লোক সংষ্কৃতির ভান্ডার নিয়ে আলোচনা করবেন। ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসন উৎসবের প্রস্তুুতি শুরু করেছেন। জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, উৎসবকে স্মরনীয় করে রাখার জন্য ডাক বিভাগের মাধ্যমে স্মারক ডাক টিকেট ও জেলা প্রশাসন একটি স্মারকগ্রস্থ প্রকাশের উদ্যোগ নিয়েছে। জেলা পর্যায়ে শিশু কিশোরদের বিভিন্ন গ্রুপে ভাগ করে সাংষ্কৃতিক প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হবে। উৎসবের সমাপনী দিনে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হবে। উৎসবের রং কে রঙ্গিন করে তুলতে স্থানীয় শিল্পীদের পাশাপাশি জাতিয় আর্ন্তজাতিক শিল্পীদের আমন্ত্রন জানানো হবে। উৎসব অঙ্গন এলাকায় পুতুল নাচ, নাগর দোলা,বাঙ্গালী সংস্কৃতির বিভিন্ন উপকরন নিয়ে ষ্টল,দেশী খাবারের ষ্টল ও শিশু কিশোরদের খেলনার ষ্টলসহ লোক মেলার আয়োজন থাকবে। কবির স্মৃতি রক্ষার্থে একটি ডকুমেন্টারী ও শহরে কবির ভাস্কর্য নির্মাণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। তিন দিনব্যাপী উৎসবকে সুন্দর সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করতে একটি উপদেষ্ঠা পরিষদ ও উৎসব উদযাপন কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির প্রধান উপদেষ্ঠা রাখা হয়েছে কবির স্মৃতি বিজড়িত উপজেলা নিয়ে গঠিত নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান,অন্য উপদেষ্ঠারা হলেন, প্রবীণ রাজনীতিবীদ আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত, সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক, সংসদ সদস্য মোয়াজ্জে হোসেন রতন, পীর ফজলুর রহমান মিছবা ও শামসুন্নাহার শাহানা রব্বানী। উৎসব উদযাপন কমিটির প্রধান হলেন জেলা প্রশাসক শেখ রফিকুল ইসলাম, সদস্যরা হলেন,পুলিশ সুপার হারুনুর রশীদ, জেলা পরিষদ প্রশাসক ব্যারিষ্টার এম এনামুল কবির ইমন,সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আইয়ুব বখত জগলুল,সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাহসিনা বেগম, জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির,সুনামগঞ্জ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী,জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নিজাম উদ্দিন,প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হযরত আলী, সরকারি জুবিলি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক এডঃ শামসুল আবেদীন,জেলা শিশু বিয়ষক কর্মকর্তা বাদল চন্দ্র বর্মন,উৎযাপন কমিটির সদস্য সচিব হলেন,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শিক্ষা ও (তথ্য প্রযুক্তি) ড.আহমেদ উল্যাহ এছাড়া আলোচনাসভা,সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিচালনা উপকমিটি মেলা মঞ্চ,প্যান্ডেল সাউন্ড ব্যবস্থাপনা উপ-কমিটি স্মারক ডাক টিকেট স্মারকগ্রস্থ প্রকাশনা উপ কমিটি,ডকুমেন্টারী ও ভাস্কর্য নির্মাণ উপ কমিটি,প্রচার উপ কমিটি,আইন শৃঙ্খলা উপ কমিটি অর্থ উপ কমিটি গঠন করা হয়েছে। জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির বলেন, বৃহস্পতিবার জগন্নাথপুরে একদিনের উৎসব পালন করতে প্রস্তুুতি সভার আয়োজন করা হয়েছে। এতে উপজেলার রাধারমণ অনুরাগীদের উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। অপরদিকে জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে সভায় তিন দিনব্যাপী উৎসবের বিভিন্ন কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়।
সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক দেবজিৎ সিংহ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম কে বলেন,রাধারমণ দত্ত পুরকায়েস্থের মৃত্যু শতবার্ষিকী উদযাপন করতে জেলা প্রশাসন ব্যাপক প্রস্তুুতি শুরু করেছে। সংষ্কৃতি মন্ত্রনালয়ের অর্থায়নে আমরা তিনদিন ব্যাপী উৎসবের সূচনা কবির জন্মভূমি জগন্নাথপুর থেকে করতে চাই। অপর দুই দিন সুনামগঞ্জে পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24