শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৩৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
যুক্তরাজ্য বিএনপি থেকে সাবেক ছাত্র নেতা এম এ কাদিরের পদত্যাগ জগন্নাথপুরে শনিবার সকাল ৮টা থোক বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ থাকবে বিদেশে থেকেও তিনি ‘হত্যা’ মামলার দুই নম্বর আসামী! সন্মেলনকে সামনে রেখে কলকলিয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের সভা অনুষ্ঠিত ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষে জগন্নাথপুরে মোবারক র‌্যালি জগন্নাথপুর পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ড আ.লীগের কমিটি গঠন তাহিরপুরকে হারিয়ে বিজয়ী জগন্নাথপুর,ম‌্যাচ সেরা অলি বাস-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৭ জগন্নাথপুরের রসুলপুর আর্দশ ক্রিকেট ক্লাবের জার্সি উম্মোচন শাহারপাড়ায় মেডিকেল সেন্টার উদ্ধোধন ও মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত

শাহীনুর পাশার পাশে নেই বিএনপির মনোনয়ন বঞ্চিতরা

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৮
  • ৪১ Time View

বিশেষ প্রতিনিধি::
সুনামগঞ্জ- ৩ (জগন্নাথপুর ও দক্ষিণ সুনামগঞ্জ)
আসনে বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীর পক্ষে এখনও মাঠে নামেনি বিএনপির মনোনয়ন বঞ্চিত অভিমানি প্রার্থীরা।
এ আসনে মহাজোটের প্রার্থীর পক্ষে বিভেদ ভুলে একাট্টা হয়েছে আওয়ামী লীগের সকল পক্ষ। ঐক্যবদ্ধ হয়ে প্রচার প্রচারনা করছেন তারা । অন্যদিকে ভোটের দিন ঘনিয়ে আসলেও নির্বাচনী মাঠে দেখা যাচ্ছে না বিএনপির মনোনয়ন বঞ্চিতদের।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-৩ আসনে প্রথম থেকেই বিএনপির দলীয় প্রার্থী দেওয়ার জন্য হাই কমান্ডে দাবী জানিয়ে আসছিল এলাকার নেতা-কর্মীরা। এ দাবীতে স্থানীয় বিএনপি ছিল একাট্টা। বিএনপি তথা ঐক্যফ্রন্টের মনোনয়ন প্রত্যাশি যুক্তরাজ্য বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এম কয়ছর আহমদ, যুক্তরাজ্য বিএনপির অর্থ সম্পাদক এমএ সাত্তার, বিএনপি নেতা এম এ মালেক খান ও রফিকুল ইসলাম মনোনয়ন ফরম জমা দিলেও শেষ পর্যন্ত বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত হন জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য এডভোকেট মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরী।
এ আসনে ঐক্যফ্রন্টের মনোনয়ন বঞ্চিত আরেক প্রার্থী গণফোরাম নেতা নজরুল ইসলাম তিনিও প্রার্থীর পাশে নেই। এছাড়াও সম্প্রতি জগন্নাথপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবু হোরায়রা ছাদ মাষ্টার ও যুবদল নেতা রাসেল বক্স গ্রেপ্তার হওয়ার পর থেকে গ্রেপ্তার আতংকে মাঠে দেখা যাচ্ছেনা বিএনপির নেতাকর্মীদের। ফলে ভোটের মাঠে প্রচারণায় পিছিয়ে রয়েছেন ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী।
বিএনপির মনোনয়ন বঞ্চিত এমএ মালেক খান বলেন, ২০০১ সালে জাতীয় সংসদ বিএনপির মনোনয়ন জমা দিয়েছিলাম। বিএনপির হাইকমান্ডের নির্দেশে জোটের স্বার্থে প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে সেই থেকে মাঠে আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছি। এবারও আমরা প্রথম থেকেই বিএনপি থেকে দলীয় প্রার্থী দেওয়ার জন্য দাবী জানিয়ে আসছিলাম। যাকে এ আসনে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী দেওয়া হয়েছে তিনি নানা কারণে বির্তকিত। তিনি এখন পর্যন্ত আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেননি।
বিএনপির আরেক মনোনয়ন বঞ্চিত সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, তৃণমূলের দাবী উপেক্ষা করে প্রার্থী দেওয়ায় বিএনপির নেতাকর্মীরা হতাশ হয়েছেন। কারো সঙ্গে পরামর্শ না করেই প্রার্থী তাঁর নিজের সিদ্ধান্তেই কাজ করছেন।
ঐক্যফ্রেন্টের মনোনয়ন বঞ্চিত গণফোরাম নেতা মোঃ নজরুল ইসলামের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করেও তাঁকে পাওয়া যায়নি।
এ প্রসঙ্গে জানতে বিএনপি তথা ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী সাবেক এমপি এডভোকেট মাওলানা শাহীনুর পাশা চৌধুরী বলেন, সবার সাথে সমন্বয় করেই মাঠে কাজ করছি। যারা মনোয়ন পাননি তাঁদের সঙ্গেও আলাপ আলোচনা করেই বিএনপির নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রচার প্রচারণা চলছে। আমাদের মধ্যে কোনো বিভেদ নেই। ধানের শীষের বিজয়ে সবাই ঐক্যবদ্ধ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24