শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৩৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
যুক্তরাজ্য বিএনপি থেকে সাবেক ছাত্র নেতা এম এ কাদিরের পদত্যাগ জগন্নাথপুরে শনিবার সকাল ৮টা থোক বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ থাকবে বিদেশে থেকেও তিনি ‘হত্যা’ মামলার দুই নম্বর আসামী! সন্মেলনকে সামনে রেখে কলকলিয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের সভা অনুষ্ঠিত ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষে জগন্নাথপুরে মোবারক র‌্যালি জগন্নাথপুর পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ড আ.লীগের কমিটি গঠন তাহিরপুরকে হারিয়ে বিজয়ী জগন্নাথপুর,ম‌্যাচ সেরা অলি বাস-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৭ জগন্নাথপুরের রসুলপুর আর্দশ ক্রিকেট ক্লাবের জার্সি উম্মোচন শাহারপাড়ায় মেডিকেল সেন্টার উদ্ধোধন ও মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত

সরিষাবাড়ীতে দু’পক্ষের সংঘর্ষ, ১০ বাড়িতে অগ্নিসংযোগ

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৮
  • ৮৯ Time View

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক:: জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, সংঘর্ষ, ১০ বাড়িঘরে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে লাঠিচার্জ ও ১০ রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে পুলিশ।

শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে উপজেলার পিংনা ইউনিয়নের নরপাড়া গ্রামে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় ৪ জন গুলিবিদ্ধসহ অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন।

পুলিশ জানায়, যমুনা নদী থেকে বালি উত্তোলন নিয়ে উপজেলার পিংনা ইউনিয়নের নরপাড়া গ্রামের তোফাজ্জল হোসেনের সঙ্গে একই গ্রামের নুরুল ইসলাম আকন্দের বিরোধ চলে আসছিল। এই বিরোধকে কেন্দ্র করে ৬ মাস আগে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে ঘটনায় নুরুল ইসলাম আকন্দের ছেলে জাহিদ হোসেন নামে একজন ছুরিকাঘাতে নিহত হন। এ ঘটনায় নুরুল ইসলাম আকন্দ বাদী হয়ে তোফাজ্জল হোসেনকে প্রধান আসামমি করে ৪০জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। র্দীঘ ৬ মাস পালিয়ে থাকার পর আসামিদের মধ্যে ১৬ জন্য এক সপ্তাহ আগে জামিন পেয়ে এলাকায় আসেন। শুক্রবার সকালে জামিনে আসা আসামি শাহিন মিয়া, ফরহাদ হোসেন, মজনু মিয়া ও হারুন মেম্বারসহ কয়েক জন বাদী পক্ষের সর্মথক ইউসুফ আলী, সাদ্দাম হোসেন, মোস্তফা ও জনি মিয়ার ওপর অর্তকিত হামলা চালিয়ে এলোপাথারি কুপিয়ে রক্তাক্ত করেন। পরে দু’পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও সংঘর্ষ হয়। এ সময় উভয় পক্ষের সমর্থকরা পাল্টাপাল্টি ১০টি বাড়িঘরে হামলা, ভাঙচুর চালায় ও অগ্নিসংযোগ করে। সংবাদ পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যাপক লাঠিচার্জ করে এবং নুরুল ইসলাম আকন্দের সমর্থক নাসির উদ্দিনকে আটক করে । আটকের প্রতিবাদে নুরুল ইসলামের সমর্থকরা পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এছাড়াও তারাকান্দি-ভুঁয়াপুর সড়কে গাছের গুড়ি ফেলে ও টায়ার জ্বালিয়ে আবরোধ করে রাখে। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ১০ রাউন্ড গুলি ছুঁড়ে।

স্থানীয়রা জানান, পুলিশের গুলিতে ৪ জন বিদ্ধ হয়েছেন। তারা হলেন- নুরুল ইসলাম, জনি মিয়া, আকতার হোসেন ও কাওসার। এ ছাড়া সংঘর্ষে ইউসুফ আলী, মোস্তফা, সাদ্দাম হোসেন ও জনি মিয়াসহ অন্তত ২০ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ইউসুফ আলীকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও মোস্তফাকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সরিষাবাড়ী থানার ওসি মাজেদুর রহমান বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে ১০ রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছোঁড়া হয়েছে।
সুত্র-সমকাল

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24