বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ০৬:০৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে ভ্রাম্যমান আদালতের টের পেয়ে পেঁয়াজ ১৭০ থেকে নেমে এলে ১২০ টাকা কেজি জগন্নাথপুর উপজেলাকে মাদকমুক্ত করতে মতবিনিময়সভা অধ্যক্ষকে পানিতে নিক্ষেপ: ছাত্রলীগের আরো পাঁচজন গ্রেফতার নবীজীর কাছে যে সকল বেশে হাজির হতেন জিবরাইল (আ.) অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে পণ্য পরিবহন মালিক শ্রমিক লবনের গুজব জগন্নাথপুরের সর্বত্রজুড়ে,ক্রেতা সামলাতে না পেরে দোকান বন্ধ, চলছে মাইকিং জগন্নাথপুর বাজারে লবন নিয়ে গুজব জগন্নাথপুরে আমনের ফলনে কৃষক খুশি জগন্নাথপুরে দুই মেধাবী শিক্ষার্থীর সহায়তায় এগিয়ে এলেন লন্ডন প্রবাসী মোবারক আলী জগন্নাথপুরে ৬ দিন ধরে মাদ্রাসার নৈশ্য প্রহরী নিখোঁজ

সুনামগঞ্জের আমিরপুরে মাদকের অভিযোগ দিয়ে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করার ঘটনায় উত্তেজনা : হয়রানীর শিকার ওমর আলী

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ২৯ জুন, ২০১৮
  • ১০০ Time View

আল-হেলাল,সুনামগঞ্জ থেকে : সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার সুরমা ইউনিয়নের আমিরপুর গ্রামে মাদক সরবরাহের মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে প্রতিপক্ষকে হয়রানীর ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। গ্রামের বৃদ্ধ নজরুল ইসলাম ও তার পুত্র বালু পাথর ব্যবসায়ী ওমর আলীকে উদ্দেশ্যমূলক অভিযোগ ও মামলায় ফাঁসিয়ে প্রতিপক্ষরা বিশেষ ফায়দা হাছিল করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। আমিরপুরের জিল্লুর রহমান এবং সদরগড়ের ওসমান গনি ও আমিরুল ইসলাম র‌্যাব পুলিশে অভিযোগ দায়ের করত: গ্রামের নিরীহ লোকজনকেও হয়রানী করছে বলে জানিয়েছেন এলাকার নিরীহ লোকজন। এলাকাবাসী জানান,গত ১৮ এপ্রিল বুধবার সকাল ৯টায় আমিরপুর মসজিদের পাশর্^বর্তী রাস্তায় পূর্ব বিরোধের জের ধরে ওমর আলীর ভাই নজরুল ইসলাম ও তাদের আত্মীয় হাজী মাছুম আলীর পুত্র আব্দুল হাইকে বেদম মারপিঠক্রমে গুরুতর আহত করার পাশাপাশি আহতদের কাছ থেকে তাদের ব্যবসায়ের লক্ষাধিক টাকা লুটতরাজ করে প্রতিপক্ষরা। এ ঘটনায় জখমী আব্দুল হাইয়ের স্ত্রী মিনা বেগম বাদিনী হয়ে বাংলাদেশ দন্ডবিধি আইনের ৩২৩/৩২৫/৩২৬/৩৭৯/৩০৭ ধারায় আমল গ্রহনকারী জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সিআর ১৮৪/২০১৮ নং মামলা দায়ের করেন। গত ২৬ এপ্রিল মামলাটি সদর মডেল থানায় ২১নং মামলা হিসেবে এফআইআর হয়। মামলার আসামীরা হলেন আমিরগঞ্জ গ্রামের ফুরকান আলীর পুত্র অলি মিয়া,মৃত গুলচান আলীর পুত্র শামীম আহমদ ও আইনুল হক,গুলফর আলীর পুত্র শামছুল আলম এবং সদরগড় গ্রামের গুলজার আলীর পুত্র মনির ও লুকমান মিয়া প্রমুখ। এদের মধ্যে কোন কোন আসামীরা ভাদেরটেক গ্রামের কামাল হোসেনের দায়েরকৃত সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার মামলা নং ২৫ (জিআর ২৫৭/২০১৫) তাং ২৪/৮/২০১৫ইং এবং কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর থানার রাহিলা গ্রামের বলগেড চালক আলম মিয়ার দায়েরকৃত মামলা নং ৭ (জিআর ২৩৯/২০১৫) তাং ৬/৮/২০১৫ইং এর এজাহারভূক্ত চুরি চাঁদাবাজী ও ছিনতাই মামলার আসামী বলে জানা যায়।
তাদের বিরুদ্ধে উক্ত মামলাগুলো আদালতে বিচারাধীন থাকাবস্থায় মামলার আসামীরা একজোট বেধে কাউন্টার মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে ব্যবসায়ী ওমর আলীকে হয়রানী করতে উঠেপড়ে লেগেছে। গত ৬ মে রবিবার সকাল সাড়ে ১১টায় ইব্রাহিমপুর খালের মুখে শাহপরান-২ নামের একটি স্টীলবডি ভলগেড পরিবহণ আটক করে ১লক্ষ টাকা চাঁদা দাবী করে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় বিশ^ম্ভরপুর উপজেলার সলুকাবাদ ইউনিয়নের ভাদেরটেক গ্রামের বালু পাথর ব্যবসায়ী তৈয়বুর রহমান,সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় বাংলাদেশ দন্ডবিধি আইনের ৩৮৫/৩৭৯/৫০৬ ধারায় গত ৭ মে মামলা নং ৮ (জিআর ১০৯/২০১৮) মামলা দায়ের করেন। এই মামলায় বর্ণিত ঘটনার সাথে জড়িত না থাকার পরও কুচক্রীমহল ব্যবসায়ী ওমর আলীর বৃদ্ধ পিতা নজরুল ইসলাম নইদ্যা মিয়াকে ১০নং আসামী অন্তর্ভূক্ত করে। বাদী তৈয়বুর রহমান বলেন,আমি পূর্ব সদরগড় ও ইব্রাহিমপুর গ্রামের ৯ জনের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট মামলা করেছি। আমার মামলার এজাহারে হাতে লেখা ১০ নং আসামী আমিরপুর নিবাসী জাতীয় পার্টির কর্মী ওমর আলীর বৃদ্ধ পিতা নজরুল ইসলামের নাম দেখে আমি নিজেও বিস্মিত। অথচ তিনি আমার মামলায় বর্ণিত ঘটনার সাথে আদৌ জড়িত নন। আমি আমার কম্পোজকৃত লিখিত অভিযোগে তাকে আসামীও করিনি। এরপরও প্রতিপক্ষরা পুলিশ নিয়ে মাদক পাঁচারের মিথ্যে অভিযোগ দিয়ে জোর করে ধরিয়ে দিয়েছে বৃদ্ধ নজরুল ইসলাম নইদ্যা মিয়াকে। পরে বিজ্ঞ আদালত কথিত মাদকের অভিযোগ থেকে ঐ বৃদ্ধকে যথারীতি জামিন দিয়েছেন। গত ১৮ এপ্রিল বুধবার সকাল সাড়ে ৮টায় সদরগড়-সোনাপুর সড়কে সদরগড় গ্রামের মৃত গুলচান আলীর ছেলে মোঃ রবিন এর সাথে মারামারির ঘটনা সংগঠিত হয়। এ ঘটনায় জখমী রবিন বাদী হয়ে গত ২৯ এপ্রিল সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় বাংলাদেশ দন্ডবিধি আইনের ৩২৬/৩৭৯/৩০৭ ধারায় মামলা নং ২৬ (জিআর ১০০/২০১৮) দায়ের করেন। এ মামলায় ব্যবসায়ী ওমর আলী ও তার পিতাভাইসহ ৩ জনকে আসামী করা হয়। উক্ত কাউন্টার মামলায় বর্ণিত ঘটনার সাথেও তারা পিতাপুত্র জড়িত ছিলেননা। এরপরও বিরোধীয় দুপক্ষের এসব মামলার জের ধরে গত ২৫ জুন ধরাছোঁয়ার বাইরে সদরগড়ের মাদক ব্যবসায়ীরা শীরোনামে বিভিন্ন প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ায় অপপ্রচার দিয়ে উদ্দেশ্যমূলক মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করা হয়। এলাকাবাসী জানান,কথিত সংবাদে বর্ণিত ওমর আলী আদৌ মাদক ব্যবসায়ী নন। সে একজন বালু পাথর ব্যবসায়ী ও সুরমা ইউনিয়ন যুব সংহতির সভাপতি হিসেবে এলাকায় তার পরিচিতি রয়েছে। স্থানীয় কিছু সুদখোর দাদন ব্যবসায়ীরা মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে তাকে অন্যায়ভাবে হয়রানী করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। ভূক্তভোগী ওমর আলী ও তার পিতা নজরুল ইসলাম মিথ্যা অভিযোগ দায়েরকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য পুলিশ প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। বিষয়টি শেষ পর্যন্ত কোন দিকে মোড় নেয় সেদিকে দৃষ্টি এখন সকলের।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24