শুক্রবার, ২৩ অগাস্ট ২০১৯, ০৭:৪৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে সরকারি গাছ কাটায় সেই যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ভারত-পাকিস্তান গুলি বিনিময় প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা ১৭ নভেম্বর টমটম গাড়ীর জন্য জগন্নাথপুরের এক চালককে রশিদপুরে নিয়ে খুন,গ্রেফতার-১ জেলা আ.লীগের গণমিছিল ৫ বছরেও শেষ হয়নি জগন্নাথপুরের ভবেরবাজার-গোয়ালাবাজার সড়কের কাজ,দুর্ভোগ লাখো মানুষের “জুম্মু কাশ্মীরে,গণতহ্যা শুরু করেছে মোদী সরকার” জগন্নাথপুরে আগুনে পোড়ানো হলো সাত হাজার মিটার নিষিদ্ধ কারেন্টজাল প্রকল্পের টাকা সঠিকভাবে ব্যয় করতে হবে:পরিকল্পনামন্ত্রী রোহিঙ্গাদের থেকে যাওয়ার প্ররোচনা দিলে ব্যবস্থা: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সুনামগঞ্জে উন্নয়ন মেলা-২০১৮ এর দ্বিতীয় দিনের আলোচনায় দেলোয়ার বখত : লক্ষ্য স্থির করে আগাতে না পারলে লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা যাবেনা

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ১৩ জানুয়ারী, ২০১৮
  • ৪১ Time View

আল-হেলাল,সুনামগঞ্জ থেকে :

সুনামগঞ্জের কৃতিসন্তান মন্ত্রীপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব দেলোয়ার বখত সুনামগঞ্জকে এগিয়ে নিতে সরকারের পাশাপাশি সুনামগঞ্জবাসীকেও এগিয়ে আসার উদাত্ত আহবাণ জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এটা সত্য যে দেশের যেকোন অঞ্চলের তুলনায় সুনামগঞ্জ অনেক পিছিয়ে আছে। কিন্তু সরকারের পাশে থাকলে পশ্চাৎপদ এই জেলাকে এগিয়ে নেয়া সম্ভব। এজন্য টার্গেট নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। তিনি বলেন লক্ষ্য স্থির করে আগাতে না পারলে লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা যাবেনা। এ সরকারের প্রথম স্বপ্নই হচ্ছে সোনার বাংলা বাস্তবায়ন করা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ বিশে^র বুকে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে দাড়িয়েছে। আগামী ২০২১ সালে বাংলাদেশ হবে উন্নত বিশে^র একটি অন্যতম দেশ। যেখানে ক্ষুধা ও দারিদ্র্যতা বলতে কিছুই থাকবেনা। উন্নয়নের এ অগ্রয়াত্রায় তথ্য প্রযুক্তি যোগাযোগ অবকাঠামোসহ সুনামগঞ্জে ফৌর লেন বাস্তবায়ন হবে। শুক্রবার সন্ধ্যায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন উপলক্ষে সুনামগঞ্জ সরকারী জুবিলী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উন্নয়ন মেলা-২০১৮ এর দ্বিতীয় দিনের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন। জেলা প্রশাসক মোঃ সাবিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আমিমুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য রাখেন সড়ক ও যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মনিন্দ্র কিশোর মজুমদার,সিলেট সড়ক বিভাগের তত্ত¡াবধায়ক প্রকৌশলী চন্দন কুমার বসাক,অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার মোঃ হাবিবুল্লাহ,জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ আশুতোষ দাস ও জেলা পরিবার পরিকল্পনা বিভাগের উপ-পরিচালক ডাঃ মোজাম্মেল হক প্রমুখ। এসময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ কামরুজ্জামান,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও উন্নয়ন) মোঃ সফিউল আলম,জেলা কালাচারাল অফিসার আহমেদ মঞ্জুরুল ইসলাম চৌধুরী পাভেল,প্রতিবন্দী অফিসার তোফাজ্জল ইসলাম জেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারন সম্পাদক এডভোকেট শামসুল আবেদীন,পদক্ষেপ মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্রের কোÑঅর্ডিনেটর মোঃ মুজিবুল হক আকন্দসহ বিভিন্ন জিও এনজিও প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা কর্মচারীগন উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে ও পরে ম্যাজিস্ট্রেট অঞ্জন কুমার দাসের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা,মুক্তিযুদ্ধ,উন্নয়ন ও গণতন্ত্র নিয়ে দেশাত্ববোধক গান পরিবেশন করেন বাউল জবান আলী,বাউল তছকীর আলী,বাউল জুবায়ের বখত সেবুল,বাউল আমজাদ পাশা,সাংবাদিক বাউল আল-হেলাল,বাউল শাহানা আক্তার ও বাউল রাজন মিয়াসহ স্থানীয় শিল্পীবৃন্দ।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় অতিরিক্ত সচিব দেলোয়ার বখত আরোও বলেন,বর্তমান সরকার শুধু তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতেই নয় সর্বক্ষেত্রেই উন্নয়নের দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে। লাল ফিতার দৌরাত্ব্য বন্ধে ই-নথী চালু হয়েছে। এর ফলে আমেরিকায় বসেও প্রধানমন্ত্রী অনেক জরুরী ফাইলে স্বাক্ষর করেছেন। জনগনকে সহজে সেবাদানের জন্য সরকার আরোও চেষ্টা করে যাচ্ছে। সরকারের ২০২১ সালের টার্গেট ছিল সুশাসন নিশ্চিত করা। জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল প্রণয়ন ও বার্ষিক কর্ম সম্পাদন চুক্তি বাস্তবায়নসহ বিভিন্নমুখী কর্মযজ্ঞের মাধ্যমে সরকার সুশাসন নিশ্চিত করেছে। তিনি প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন,জেলা প্রশাসন আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন বলেই আমি নিজের বাড়ীতে উন্নয়ন মেলায় আসতে পেরেছি। এরকম সুযোগ হলে সুনামগঞ্জের উন্নয়নে অবশ্যই অবদান রাখতে পারবো।

যুগ্ম সচিব মনিন্দ্র কিশোর মজুমদার বলেন,৩ শত কোটি টাকা ব্যয়ে সুনামগঞ্জ -মোহনগঞ্জ সড়ক সংযোগ স্থাপন,পাগলা থেকে আউশকান্দি পর্যন্ত ৭টি বেইলী ব্রীজের উন্নয়ন, ১৪২ কোটি টাকা ব্যায়ে জুন ২০১৮ এর মধ্যে রানীগঞ্জ সেতুর কাজ সম্পাদনসহ উন্নয়নের রোল মডেল শেখ হাসিনার বাংলাদেশকে এখন সবাই অনুসরণ করছে। এখন বর্ষায় নাও হেমন্তে পাও বলে আর কোন কিংবদন্তীর মুখোমুখি কাউকে হতে হবেনা। সুনামগঞ্জের সব উপজেলায় এখন সড়কপথে যাওয়া যায়। ১০ বছর পরে হাওর নামটি বাতি দিয়ে খুজতে হবে।

সভাপতির বক্তৃতায় জেলা প্রশাসক মোঃ সাবিরুল ইসলাম বলেন,সুনামগঞ্জ জেলার উন্নয়নে বিশেষ করে গত বছরের ফসলহানীর কথা বিবেচনা করে সরকার ১ লক্ষ ৬৮ হাজার কৃষক পরিবারকে আগামী এপ্রিল পর্যন্ত ভিজিএফ সুবিধা প্রদান করে যাচ্ছে। ৩ লক্ষ কৃষি পরিবারকে ৬০ কোটি টাকার কৃষি ভর্তুকী দিয়ে সার বীজ সরকরাহ করেছে। ১০৯৬ টা পিআইসির মাধ্যমে হাওর উন্নন কাজ করার জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডের মাধ্যমে একশত কোটি টাকা বরাদ্ধ প্রদান করেছে। এই বরাদ্দের টাকায় পিআইসিভূক্ত কমপক্ষে ৭ হাজার লোক হাওরের কাজে সরাসরি সম্পৃক্ত হচ্ছে। আমরা কাগজে কলমে নয় বাস্তবেই সকল উন্নয়ন কাজ সমাপ্ত করতে চাই। প্রশাসন ও

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24