বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:০৪ পূর্বাহ্ন

সুনামগঞ্জে রগকাটার ঘটনায় আটককৃত তপুকে ছেড়ে দিয়ে জখমী নজরুলকে আসামী করে মামলা

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ২২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৬
  • ৬১ Time View

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জে রগ কাটার ঘটনায় রামদাসহ হাতেনাতে আটককৃত সন্ত্রাসী মাহবুব আশরাফ তপুকে ছেড়ে দিয়ে পঙ্গু জখমী নজরুল ও তার ছোট ভাই জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নিরীহ কর্মচারী সিরাজুল ইসলামকে আসামী করে কাউন্টার মিথ্যা মামলা এফ আইআরের অভিযোগ উঠেছে সদর মডেল থানা পুলিশ প্রশাসনের বিরুদ্ধে। পুলিশের এ নেতিবাচক ভূমিকায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। জানা যায়,সুনামগঞ্জ পৌরসভার হাছননগর ময়নার পয়েন্ট আবাসিক এলাকায় ভূমি সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জের ধরে সন্ত্রাসীরা এক পরিবারের ৭ জনকে রামদা দিয়ে কোপিয়ে জখম করেছিলো। ১৬ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার সকাল ১১টায় পৌর এলাকার ৪নং ওয়ার্ডের হাছননগর ময়নার পয়েন্ট আবাসিক এলাকায় আহত নজরুলের বসতবাড়ি সংলগ্ন উত্তর পশ্চিমে সরকারী রাস্তায় এ ঘটনা ঘটে। নজরুল ইসলামের ক্রয়কৃত ভিটেবাড়ির জায়গা গ্রাস করার অসদুদ্দেশ্যে তাদের উপর বারংবার হামলা চালিয়ে যাচ্ছিলো প্রতিপক্ষ সন্ত্রাসীরা। সংবাদ পেয়ে সদর থানার এসআই সৈয়দ বশির আহমদের নেতৃত্বে একদল পুলিশ তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে মারনাস্ত্রসহ হাছননগর ময়নার পয়েন্ট এলাকার মৃত ইলিয়াছ আলীর পুত্র সামছুল হক ও তার শ্যালক মাহবুব আশরাফ তপু নামের ২ সন্ত্রাসীকে আটক করেন। ঘটনার ব্যাপারে আহত নজরুলের পক্ষে তার পিতা ব্যাংক কর্মচারী মোঃ ইয়াদত আলী পুলিশের হাতে আটককৃত ২ সন্ত্রাসীসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে একই দিন রাতে থানায় মামলার অভিযোগ দায়ের করেন। একই ঘটনায় সন্ত্রাসীদের নাশকতার শিকার নাছির উদ্দিনও থানায় আরেকটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। মামলার বিবাদীরা হচ্ছে হাছননগর ময়নারপয়েন্ট আবাসিক এলাকার নিসর্গ ৩৫ নং বাসভবনের বাসিন্দা ইলিয়াছ আলীর পুত্র সামছুল হক (৪২),সামছুল হকের স্ত্রী নারগিস বেগম (৩৫),মৃত সাদত আলীর পুত্র ময়না মিয়া (৪৮), ময়নার স্ত্রী নীরু বেগম (৪৮), পুত্র বাপ্পু মিয়া (২২) হেপ্পু মিয়া (২২), সুলতানপুর আবাসিক এলাকার ৩৫/১নং বাসভবনের বাসিন্দা আশরাফ উদ্দিনের পুত্র মাহবুব আশরাফ তপু (৩৫) প্রমুখ। দায়েরকৃত অভিযোগ দুটি তাৎক্ষনিকভাবে এফআইআর না করে ঘটনার ২ দিনের ব্যাবধানে বাংলাদেশ দন্ডবিধি আইনের ৩২৬/৩০৭/৩৫৪/৩৭৯ ধারায় সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার মামলা নং ১৫ (জিআর ৪৪/২০১৬) হিসেবে জখমী নজরুল ইসলামের পিতার দায়েরকৃত অভিযোগটি এফআইআর করা হয়। এফআইআরকৃত মামলার ২নং আসামী হচ্ছে পুলিশ কর্তৃক তাৎক্ষনিকভাবে আটককৃত রগকাটা সন্ত্রাসী মাহবুব আশরাফ তপু। কিন্তু সন্ত্রাসী তপুকে ঘটনার দিন রাতেই ছেড়ে দিয়েছেন ওসি (তদন্ত) মাসুক আলী। স্থানীয় লোকজন জানান, মোটা অঙ্কের টাকা উৎকোচের বিনিময়ে রগকাটা সন্ত্রাসী বিএনপি সমর্থক মাহবুব আশরাফ তপুকে ওসি তদন্ত মাসুক আলী ছেড়ে দিয়েছেন। এলাকাবাসীর অভিযোগ, মঙ্গলবার পরিকল্পিত হামলা চালিয়ে এরা নিরীহ নজরুল ইসলামের পায়ের রগ কেটে দিয়েছে। তার পরিবারের সকল সদস্যকে রামদা দিয়ে কূপিয়ে জখম করেছে। ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি হারুন-অর রশীদ চৌধুরী ঘটনার দায়ে আটককৃত ২ জনকে গ্রেফতারের কথা মিডিয়ার কাছে স্বীকারও করেছেন। অথচ ওসি হারুন অর রশীদ চৌধুরী থানায় না থাকার সুযোগে ওসি তদন্ত মাসুক আলী মোটা অঙ্কের টাকা ঘুষের বিনিময়ে রগকাটা সন্ত্রাসী তপুকে ছেড়ে দিয়েছেন। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মাসুক আলী বলেন,ঐদিন ওসি সাহেব ও এএসপি সার্কেল মহোদয় থানায় ছিলেন। আমি কোন আসামী ছেড়ে দেইনি। যারা আটক করেছিলেন তারাই জামিনে জিম্মায় মাহবুবুর আশরাফ তপুকে ছেড়ে দিয়েছেন। অন্যদিকে বুধবার বিকেলে মাহবুব আশরাফ তপুর ভগ্নিপতি সামছুল ইসলামকে সুনামগঞ্জ সদর থানার জিডি নং ৮৭৫ তাং ১৬/২/২০১৬ইং মূলে ফৌজদারী কার্যবিধির ১৫১ ধারার অপরাধ সংগঠনের দায়ে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে প্রেরন করা হয়। বৃহস্পতিবার আমল গ্রহনকারী জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামিন পায় সামছুল। পরে জখমী নজরুলের পিতার দায়েরকৃত মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মোঃ এমরান হোসেন আদালতে আবেদন করলে বিজ্ঞ আদালত জিআর ৪৪/২০১৬ নং মামলায় সামছুলকে জেলহাজতে প্রেরনের আদেশ দেন বলে আদালত সুত্রে জানা যায়। ভূক্তভোগীরা জানান,আটককৃত ২ সন্ত্রাসীর মধ্যে সামছুল হচ্ছে দুলাভাই এবং মাববুব আশরাফ তপু তার শ্যালক। আদালতের আদেশে দুলাভাই জেলহাজতে গেলেও তার শ্যালক রগকাটা সন্ত্রাসী তপুকে জেলহাজতে না পাটিয়ে জামাই আদর করে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ। পাশাপাশি ২ দিনের ব্যাবধানে জখমী নজরুলসহ তার পরিবারের ৯ জনের বিরুদ্ধে মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন ও কাল্পনিক ঘটনা উল্লেখক্রমে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় বাংলাদেশ দন্ডবিধি আইনের ৩২৩/৩২৬/৩০৭/৪২৭ ধারায় কাউন্টার মিথ্যা মামলা নং ১৬ (জিআর ৪৫/২০১৬) তাং ১৭/২/২০১৬ ইং দায়ের করে। পুলিশের শেল্টারে কাউন্টার মিথ্যা মামলা দায়ের করে বুক ফুলিয়ে বেড়াচ্ছে রগকাটা সন্ত্রাসী তপু। অন্যদিকে তপুর হামলা ও মিথ্যা মামলার শিকার নজরুল ইসলাম পঙ্গুত্ব বরন করার পাশাপাশি মিথ্যা মামলায় আতঙ্কে দিনাতিপাত করছেন। অবিলম্বে রগকাটা সন্ত্রাসী মাহবুব আশরাফ তপুকে গ্রেফতারের দাবী এলাকাবাসীর কাছে এখন প্রানের দাবীতে পরিণত হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24