বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৫৯ অপরাহ্ন

২৫ জুলাই থেকে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদের কাজ শুরু হচ্ছে

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২ জুলাই, ২০১৫
  • ১৭৭ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক::২৫ জুলাই থেকে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদের কাজ শুরু হচ্ছে । এক্ষেত্রে ২০০০ সালের ১ জানুয়ারি বা তার আগে জন্মগ্রহণকারী নাগরিকদের তথ্য সংগ্রহ করা হবে।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) ইতিহাসে এবারই প্রথম ১৫-১৭ বছর বয়সী নাগরিকদেরও নিবন্ধনের আওতায় আনার সিদ্ধান্ত হয়েছে। নির্বাচন কমিশন সচিব জানান, ২ জানুয়ারি ২০১৫ সালে যাদের বয়স ১৫ বছর হয়েছে তাদেরকেও নিবন্ধনের আওতায় আনতে তথ্য সংগ্রহ করা হবে।
বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশনের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সচিব সিরাজুল ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের মহা পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সুলতানুজ্জামান মো. সালেহ উদ্দীন, ইসির অতিরিক্ত সচিব মোখলেছুর রহমান, যুগ্ম সচিব জেসমিন টুলী ও জনসংযোগ পরিচালক এস এম আসাদুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।

ইসি সচিব বলেন, এবার একইসঙ্গে ১৫-১৭ বছর বয়সীদের তথ্যও সংগ্রহ করা হবে। ভোটারযোগ্য হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তাদেরকে চূড়ান্ত তালিকাভুক্ত করা হবে। দেশের ৫১৪ উপজেলা/থানায় এ কার্যক্রম সম্পন্ন করতে তিন ধাপে তথ্য সংগ্রহ চলবে। সেক্ষেত্রে ২৫ জুলাই ১৮৯ উপজেলায়, ১৬ আগস্ট ১৮৪ উপজেলায় এবং ৭ সেপ্টেম্বর ১৪১ উপজেলায় কাজ শুরু হবে।

সচিব বলেন, নাগরিকদের তথ্য সংগ্রহের এ কার্যক্রমে অর্ধলক্ষাধিক তথ্যসংগ্রহকারী বাড়ি বাড়ি গিয়ে দুই সপ্তাহের মধ্যে ৪৬০০ ইউনিয়ন পরিষদ, ৩২০ পৌরসভা, ১২টি ক্যান্টমেন্ট বোর্ড ও ১১টি সিটি করপোরেশনে নাগরিকদের নিবন্ধনের আওতায় আনবেন। পরে ছবি তোলা ও আঙুলের ছাপ দিতে নাগরিকদের নির্ধারিত নিবন্ধন কেন্দ্রে যেতে হবে।

সর্বশেষ ২০১৪ সালে ভোটার তালিকা হালনাগাদ করা হয়। আগামী বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২০১৮ সালের ১ জানুয়ারি মধ্যে যাদের বয়স ১৮ বছর বা তার বেশি হবে তাদের তথ্যও সংগ্রহ করা হবে।

বর্তমানে ৯ কোটি ৬২ লাখের বেশি ভোটার রয়েছেন। এবার হালনাগাদে আরো প্রায় ৭২ লাখ নতুন ভোটারযোগ্য নাগরিক নিবন্ধনের আওতায় আসবেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

হালনাগাদ কাজে নাগরিকদের সঠিক তথ্য দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে ইসি সচিব বলেন, তথ্যসংগ্রহকারীদের বিরুদ্ধে অনেক এলাকায় বাড়ি বাড়ি না যাওয়ার অভিযোগ রয়েছে। এবার যেন এ ধরনের অভিযোগ না আসে সে বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নাগরিকদেরও এ কাজে সহায়তা করতে হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কোনোভাবে রাজনৈতিক কার্যালয় বা কাউন্সিল অফিসে বসে ভোটার তালিকার জন্য তথ্য সংগ্রহের সুযোগ নেই। অবশ্যই তথ্যসংগ্রকারীদের বাড়ি বাড়ি যেতে হবে।

ইসি সচিব বলেন, ইসি চায় একটি নির্ভুল জাতীয় তথ্যভাণ্ডার তৈরি করতে। এজন্য সবাইকে সঠিক তথ্য দিতে হবে। এই তথ্য নিয়েই নাগরিকদের স্মার্ট কার্ড দেওয়ার পরিকল্পনা আছে। তাই সবাইকে সঠিক তথ্য দিয়ে জাতীয় পরিচয়পত্র তৈরিতে সহযোগিতা করতে হবে।

তিনি জানান, রোহিঙ্গাদের ভোটার হওয়া রোধে বিশেষ কমিটি বিশেষ ফরমে তথ্য সংগ্রহ করবে। সেই সঙ্গে ছিটমহল বিনিময় চুক্তির বাস্তবায়ন সম্পন্ন হলে ছিটমহলবাসীদের ভোটার করার উদ্যোগও আগামীতে থাকবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24