সোমবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২০, ০১:৫১ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
৪০ দিনের যুদ্ধের জন্য সামরিক সরঞ্জামের মজুদ গড়ছে ভারত দ. সুনামগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধে হামলা ও লুটপাট, আটক ১ বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থান নিয়ে যা বললেন পরিকল্পনামন্ত্রী জগন্নাথপুরে সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলন সম্পন্ন পিইসিইর উত্তরপত্র পুনঃনীরিক্ষা ও প্রত্যাশা’ জগন্নাথপুরে শতবর্ষ: ব্রজেন্দ্র নারায়নের উত্তরসূরীদের আবেগাপ্লুত স্মৃতিচারণ জগন্নাথপুরে এসোসিয়েশন কাপ বঙ্গবন্ধু ফুটবল লীগ টুর্নামেন্টের উদ্বোধন সমাজে শান্তি বজায় রাখতে যেসব স্বভাব ত্যাগ করতে বলে ইসলাম জগন্নাথপুরের সৈয়দপুরে প্রবাসির অর্থায়নে শহীদ মিনার নির্মাণ জগন্নাথপুরের বিএন হাইস্কুলের শতবর্ষ উৎসবে-পরিকল্পনামন্ত্রী, বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা কেউ থামাতে পারবে না

৫ বার জন্ম গ্রহণকারী খালেদা জিয়া এবারও ১৫ আগষ্টে কেক কাটবেন

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১৪ আগস্ট, ২০১৫
  • ২৮৬ Time View

স্টাফ রিপোর্টার:: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার দু’টি পাসপোর্টের ছবিই ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। গত বছরের মে মাসে মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়া প্রথম পাসপোর্টে দেখা যায়, বেগম জিয়ার জন্মদিন ১৯৪৬ সালের আগস্ট মাসের ৫ তারিখ। একই জন্মতারিখ উল্লেখ আছে দ্বিতীয় পাসপোর্টেও।
ডেউলি স্টারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাসপোর্টের এই ছবিগুলো মিথ্যা না হলে খালেদা জিয়ার জন্মদিন বছরে ৫ বার। আগস্ট ৫, ১৯৪৪; আগস্ট ৫, ১৯৪৬; আগস্ট ১৯, ১৯৪৭; সেপ্টেম্বর ৫, ১৯৪৬ এবং আগস্টের ১৫ তারিখ (তবে এখানে সাল উল্লেখ করা নেই)। তারপরও আগামী ১৫ আগষ্ট শনিবার ৭০তম জন্মদিন পালন করবেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। আর এ জন্য ৭০ পাউন্ড ওজনের কেকের অর্ডার দেয়া হয়েছে। বিএনপির মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা বলেন, আমরা ম্যাডামের ৭০তম জন্মদিন উদযাপনের জন্য কেক অর্ডার দিয়েছি। ছাত্রদল দলের পক্ষ থেকেও খালেদার জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে ৭০ পাউন্ড কেকের অর্ডার দেওয়া হয়েছে। শনিবার সকাল ৮টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে কেক কেটে জন্মদিন পালন করবে ছাত্রদল। নব্বইয়ের দশকের মাঝামাঝি সময়েরে আগে বেগম খালেদা জিয়া আনু্ষ্ঠানিকভাবে কোন জন্মদিন পালন করেন নি। তখন থেকেই তিনি ১৫ই আগস্ট তাঁর জন্মদিন পালন করে আসছেন। কিন্তু ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী যেদিন দেশজুড়ে পালিত শোক দিবস। সেই একইদিনে পালিত হচ্ছে বেগম খালেদা জিয়ার বিতর্কিত জন্মদিন।এর আগে বিভিন্ন মিডিয়াতেও খালেদা জিয়ার বিভিন্ন জন্মদিনের তারিখ উল্লেখ করা হয়েছে। তবে একটি মাধ্যমে বলা হয়, তাঁর পরীক্ষার ফর্মে ১৯৪৬ সালের সেপ্টেম্বরের ৫ তারিখ উল্লেখ করা আছে। বিয়ের সার্টিফিকেটে জন্মদিন উল্লেখ আছে ১৯৪৪ সালের আগস্টের ৫ তারিখ এবং প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেয়ার সময় খালেদা জিয়ার জন্মদিন ১৯৪৭ সালের ১৯ আগস্ট উল্লেখ করা হয়।
১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনা দেশের ক্ষমতায় আসার পর ১৫ই আগস্টকে জাতীয় শোক দিবসের সঙ্গে সেদিন সরকারি ছুটি হিসেবে ঘোষণা করেন। অপরদিকে ২০০১ সালে বিএনপি পুনরায় ক্ষমতায় আসলে খালেদা জিয়া ১৫ই আগস্টকে জাতীয় শোক দিবসের পরিবর্তে জাতীয় ছুটির দিন হিসেবে ঘোষণা করেন। ২০০৯ সালে আবার ক্ষমতার পালাবদল হলে ১৫ই আগস্টকে পুনরায় শোক দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়।
কিন্তু বিতর্কের আরেকটি বিষয় হলো, ১৯৯৫ কিংবা ১৯৯৬ এর আগে খালেদা জিয়া ১৫ই আগস্টে কখনই জন্মদিন পালন করেন নি। আর এ কারণেই অনেকে মনে করেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানকে খাটো করতেই খালেদা জিয়া তাঁর জন্মদিন পালনে এই দিনটিকে বেছে নিয়েছেন।এবার জন্মদিন পালন না করতে ব্যাপক প্রতিবাদের ঝড় উঠছে মিডিয়ায়। আশা করা হয়েছিলন তার শুভবুদ্ধির উদোয় হবে। কিন্তু যেই সেই ৫ বার জন্মগ্রহণকারী খালেদা জিয়াকে দলীয় নেতাকমীদের চাপে জন্মদিন পালন করতে হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24