1. forarup@gmail.com : jagannthpur25 :
  2. jpur24@gmail.com : Jagannathpur 24 : Jagannathpur 24
শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০১:১৩ পূর্বাহ্ন

প্রসঙ্গ – সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থান নির্ধারণে বিতর্ক – হরমুজ আলী

  • Update Time : শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর, ২০২০
  • ৩১২ Time View

প্রসঙ্গ – সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থান নির্ধারণে বিতর্ক –

‘উনারাইয়া যেবায় জায় উফতা বয়ারে তারে পায়’ – (কপালপোড়া), এজনমে বোধহয় আর এই রিপুর আছর কাটানো সম্ভব হলোনা! বেশকিছু দিন থেকে বলতে গেলে মুখে তালা দিয়েই বসে আছি, বিশেষকরে জগন্নাথপুর আর সুনামগঞ্জের ব্যাপারে। সুনামগঞ্জে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপিত হচ্ছে এই ভাবনায় আন্দোলিত হবেনা এমন মানুষ সুনামগঞ্জে নাই; এমনটা বাজিধরেই বলা যায়। আমিতো অতি অবশ্যই আন্দোলিতদের দলে। কিন্তু, ইদানিং স্থান নির্ধারণের বিষয়ে যে দৃষ্টিকটু এবং মাঝেমাঝে শ্রুতিকটুও বাহাস চলছে তার থেকে ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও নিজেকে দূরে রাখতে পারছিনা।

পাঠক, ম্যাপের দিকে একটু খেয়াল করুনঃ সুনামগঞ্জ সদরের সাথে বর্ডার হচ্ছে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ, দোয়ারা বাজার, বিশম্ভরপুর ও জামালগঞ্জের; অপরদিকে দক্ষিণের সাথে বর্ডার হচ্ছে জগন্নাথপুর, ছাতক, দোয়ারা বাজার, সদর, জামালগঞ্জ ও দিরাই’র। বাকি তিন উপজেলার মধ্যে ধর্মপাশার জন্য সদর আর দক্ষিণ একই। সদরে হলে শাল্লা দূরে আর দক্ষিণে হলে তাহিরপুর দূরে। এই হলো মুটামুটি ভৌগোলিক চিত্র। মোটাদাগে দেখলে দক্ষিণই হচ্ছে সুনামগঞ্জের এগারো উপজেলার মধ্যবর্তী স্থান। যাতায়াতের দিক থেকে সুনামগঞ্জ-সিলেট আঞ্চলিক মহাসড়কের লাগোয়া; যা বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো একটা স্থাপনার জন্যে অন্যতম পূর্বশর্ত। সুতরাং, এখানে শান্তিগঞ্জের দোহাই তুলে একটি বিশেষ অঞ্চলের মানুষের উন্নয়ন-উন্নতির বিরুদ্ধাচারণ আমার মাথায় আসেনা। আমি জগন্নাথপুরের মানুষ, বলতেই পারতাম বিশ্ববিদ্যালয় আমাদের এখানে হউক। অন্য উপজেলার যারা, তারাও একই দাবি তুলতে পারেন। কিন্তু বিষয়টা সার্বিক বিচারে কতোটা যুক্তিযুক্ত তাতো ভেবে দেখতে হবে!

মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় দক্ষিণ সুনামগঞ্জের মানুষ। তাঁর আমলে তুলনামূলকভাবে দক্ষিণে একটু বেশি করে হাওয়া লাগবে, এটাই স্বাভাবিক। সাইফুর রহমান সাহেবের সময় মৌলভীবাজারে দেখেছি, কিবরিয়া সাহেবের সময় হবিগঞ্জে দেখেছি, মুহিত সাহেবের সময় সিলেট সদরেও দেখেছি। এমনটাই হয়ে এসেছে সবসময় এবং ভবিষ্যতেও এর ব্যতিক্রম হবে বলে মনেহয়না। তবে, আমি এসব ব্যাপারে নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করিনা। বিশ্ববিদ্যালয়ের উছিলায় দক্ষিণ সুনামগঞ্জ বা শান্তিগঞ্জে উন্নয়নের হাওয়া লাগলে তাতো আমাদের সুনামগঞ্জেই। সমস্যা কোথায়?

পরিশেষে আরেকটা সিলেটি প্রবাদ দিয়ে শেষ করি – ‘হতিত পুত আর পরিত ভাত অইলে কামে আয়’ (প্রতিবেশী সচ্ছল হলে ক্ষতির থেকে লাভই বেশি)।

লেখক- মোহাম্মদ হরমুজ আলী রাজনীতিবীদ ও শিক্ষাবীদ। লেখাটি লেখকের ফেসবুক ওয়াল থেকে

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১
Design & Developed By ThemesBazar.Com
%d bloggers like this: