1. forarup@gmail.com : jagannthpur25 :
  2. jpur24@gmail.com : Jagannathpur 24 : Jagannathpur 24
সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৫৪ পূর্বাহ্ন

জগন্নাথপুরে কৃষকের খুশির বৃষ্টি, পিআইসির দুশ্চিন্তা

  • Update Time : রবিবার, ৭ মার্চ, ২০২১
  • ২০৫ Time View

বিশেষ প্রতিনিধি::

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় শনিবার রাত থেকে রোববার সকাল পর্যন্ত হালকা ও মাঝারি  বৃষ্টি হয়েছে। এ বৃষ্টিতে কৃষকেরমুখে হাসির ঝিলিক দেখা দিলেও হাওরের ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধ নির্মাণ সংস্কার কমিটি পিআইসিদের দুশ্চিন্তায় পড়তে দেখা যায়।

কৃষকরা জানান,জগন্নাথপুর উপজেলার কৃষকরা একমাত্র বোরো ফসলের ওপর নির্ভরশীল। এখন বোরোর সবুজ চারা থেকে ধান বের হওয়ার উপযুক্ত সময়। বৃষ্টি না হওয়ায় খড়ায় অনেক সবুজ চারা লালচে হয়ে যাচ্ছিল।গত ১৫ দিন ধরে বৃষ্টির জন্য কৃষকরা মসজিদ মন্দিরে প্রার্থনা ও শিরনীর আয়োজন করেন। দেখা মিলে বৃষ্টির।
জগন্নাথপুর উপজেলার স্বজনশ্রী গ্রামের কৃষক ইলিয়াস আহমেদ বলেন,আমি এবার ছয় কেদার বোরোধান আবাদ করেছি। বৃষ্টি না হওয়ায় চারাগুলো খড়ায় লালচে(জ্বলে) হয়ে যাচ্ছিল এ নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে দুশ্চিন্তায় ভূগছিলাম। বৃষ্টি হওয়ায় এখন খুশি। আশা করছি চারা থেকে ধান বের হবে।
উপজেলার হাওর বাঁচাও আন্দোলনের যুগ্ম আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা নির্মল দাশ বলেন, বৃষ্টিতে কৃষকরা খুশি হলেও ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধের অনেক প্রকল্পের সদস্যদের দুশ্চিন্তায় পড়তে দেখা গেছে। যারা বালু মাটি দিয়ে বেড়িবাঁধের কাজ করছেন তাদের বাঁধে ফাটল দেখা দিয়েছে। হাওরঘুরে দেখা গেছে ৩,৫,৬,৭ নং সহ কয়েকটি প্রকল্পে এক দিনের বৃষ্টিতে কিছু অংশে ফাটল দেখা গেছে বলে তিনি জানান।
পানি উন্নয়ন বোর্ড জগন্নাথপুর উপজেলার মাঠ কর্মকর্তা উপ সহকারী প্রকৌশলী হাসান গাজী বলেন, বৃষ্টি কৃষক ও বেড়িবাঁধের জন্য আশীর্বাদ হয়ে এসেছে। বৃষ্টির পর যেসব বেড়িবাঁধে কিছু ত্রুটি দেখা দিয়েছে সেগুলো সংস্কার করা হবে। তিনি বলেন হাওর ঘুরে বড় ধরনের কোন ফাটল কিংবা ধসের ঘটনা চোখে পড়েনি। ছোটখাটো ত্রুটি পিআইসিদের বলা হয়েছে ঠিক করার জন্য।
জগন্নাথপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শওকত ওসমান মজুমদার বলেন, বোরোধানের জন্য এই মুহূর্তে বৃষ্টি খুবই প্রয়োজন ছিল। এই বৃষ্টির ফলে চারা থেকে ধান বের হবে। তিনি বলেন এবার জগন্নাথপুর উপজেলায় ২০ হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ করা হয়েছে।
জগন্নাথপুর উপজেলা হাওরের ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধ নির্মাণ সংস্কার তদারক কমিটির সভাপতি ইউএনও মেহেদী হাসান বলেন, উপজেলায় ৩৭টি প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির মাধ্যমে ফসল রক্ষা বেড়িবাঁধ নির্মাণ সংস্কার কাজ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। সার্বিক অগ্রগতি ৭০ ভাগ। তিনি বলেন বৃষ্টিতে বোরোধান ও বেড়িবাঁধের ভালো হয়েছে। বাঁধের মাটি শক্ত হয়ে বসবে।তেমন কোন ক্ষতি হয়নি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১
Design & Developed By ThemesBazar.Com
%d bloggers like this: