আইনি জটিলতা নিরসন :মীরপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে আর বাঁধা নেই, ইউনিয়নবাসীর আনন্দসভা

বিশেষ প্রতিনিধি ::
সীমানা সংক্রান্ত আইনি জটিলতা নিরসন হওয়ায় সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার মীরপুর ও সিলেটের বিশ^নাথ উপজেলার দশঘর ইউনিয়নে নির্বাচনী হাওয়া বইছে। এদিকে নির্বাচন বঞ্চিত মীরপুর ইউনিয়নবাসী শুক্রবার বিকেল তিন টার দিকে আনন্দসভা করেছেন।
ইউনিয়নবাসীর নিয়ে গঠিত ‘সর্বদলীয় নির্বাচন বাস্তবায়ন পরিষদ’র উদ্যোগে স্থানীয় মীরপুর বাজারে পরিষদের আহবায়ক মাওলানা মহিউদ্দিন এমরানের সভাপতিত্বে ও পরিষদের সদস্য ফয়সল আহমদের পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন, মাঈন উদ্দিন খান, নুরুল ইসলাম, আবুল হোসেন, রফিক উদ্দিন, মোজাক্কির হোসেন, মিজানুর রহমনা, জহুর মিয়া, লিতু খান, শামসুজ্জামান শামিম, আনু মিয়া, মঞ্জুরুল আমিন দোয়েল, সুলতান মিয়া প্রমুখ।

এলাকাবাসীর সঙ্গে আলাপ করে জানা যায়, ২০০৩ সালে সর্বশেষ মীরপুর ও দশঘর ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। মীরপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উপজেলা আওয়ামীলীগ বর্তমান সভাপতি আকমল হোসেন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। আর দশঘর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন বিএনপি নেতা সফিক উদ্দিন। ২০০৮ সালে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিতে মীরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে আকমল হোসেন পদত্যাগ করে নির্বাচনে অংশ নিয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এর পর থেকে ইউপি সদস্য জমির উদ্দিন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। অপরদিকে ২০১৩ সালে দশঘর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রাজনৈতিক মামলার আসামি হয়ে যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমালে এ ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ইউপি সদস্য ছাতির মিয়া।
জগন্নাথপুর ও বিশ^নাথ উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্র জানায়, ২০১১ সালের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করা হলে উপজেলার সব’কটি ইউনিয়নের মতো মীরপুর ও দশঘর ইউনিয়নের প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। নির্বাচনী প্রচারনা চলাকালে বিশ^নাথের দশঘর গ্রামের মানিক মিয়া বাদী হয়ে হাইকোটে ওয়ান ইলেভনের সময় সারাদেশে ভোটার তালিকা ও জাতীয় পরিচয়পত্র প্রনয়নকালে মীরপুর ও দশঘর ইউনিয়নের সীমান্তের লহরী গ্রামের কিছু ভোট বিশ^নাথ উপজেলার দশঘর ইউনিয়ন থেকে মীরপুর ইউনিয়নে অর্šÍভুক্ত হওয়ায় ক্ষুব্দ হয়ে সীমানা নির্ধারণ সংক্রান্ত মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আদালত মীরপুর ও দশঘর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন স্থগিতের আদেশ দেন। সেই থেকে উচ্চ আদালতে মামলা চলায় এ দুটি ইউনিয়নে নির্বাচন হচ্ছে না। ২০১৬ সালে সারাদেশে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে ও মীরপুর ও দশঘর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন হয়নি।
মীরপুর ইউনিয়নের সর্বদলীয় নির্বাচন বাস্তবায়ন পরিষদ’র আহবায়ক মাওলানা মহিউদ্দিন এমরান জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, মীরপুর ও দশঘর এ দুটি ইউনিয়নের সীমানা নির্ধারণ নিয়ে হাইকোটের্ বিচারাধীন থাকারিট পিটিশন ৮৫২৬/২০১৩ খারিজ করে দিয়ে আগামী ৬ মাসের মধ্যে ইউনিয়ন দ’ুটিতে নির্বাচন করতে নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বিচারপতি মোাঃ আশরাফুল ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর বেঞ্চ গত ২৮ আগষ্ট এই আদেশ দেন। তিনি বলেন, ইউনিয়ন দুটির বাসিন্দাদের মধ্যে আনন্দের বণ্যা দেখা দিয়েছে। ইতিমধ্যে নির্বাচনে আগ্রহী সম্ভাব্য অনেকই প্রার্থীই মাঠে প্রচারনায় নেমে পড়েছেন। দীর্ঘ ১৫ বছর পর নির্বাচনী পরিবেশ তৈরী হওয়ায় ইউনিয়নবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরেছে। তাই আমরা আনন্দ সভা করেছি।
মীরপুর ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জমির উদ্দিন জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, পরিষদের ১৩ জন নির্বাচিত প্রতিনিধিরমধ্যে চেয়ারম্যানপদত্যাগের পর ১২ জন থাকার কথা থাকলেও ৫নং ওয়ার্ড সদস্য আরশ আলী ও ৩নং ওয়ার্ড সদস্য হারুন মিয়া নির্বাচনের দুইবছর পর থেকে যুক্তরাজ্যে চলে যান। গত চার-পাঁচবছর থেকে ১নং ওয়ার্ড সদস্য আব্দুলকাদির ও ৮নং ওয়ার্ড সদস্য আব্দুস ছোবহান অসুস্থ হয়ে পরিষদে আসতে পারছেন না। অন্য আটজনকে নিয়ে জোড়াতালি দিয়ে পরিষদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। তবে তিনি সার্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করছেন বলে জানান।
অপরদিকে বিশ^নাথ উপজেলার দশঘর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ছাতির মিয়া জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, চেয়ারম্যান সফিক উদ্দিন ও ৫ নং ওয়ার্ড সদস্য সায়েস্তা মিয়া যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমিয়েছেন। এ দু’জন জনপ্রতিনিধি ছাড়া অন্য সবাই আমরা দায়িত্ব পালন করছি। নির্বাচন সংক্রান্ত মামলা খারিজ হয়েছে বলে শুনেছি। এখনো কাগজ পত্র কিছু পাইনি।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান ও বিশ^নাথ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা গোলাম সারোয়ার জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, মীরপুর ও দশঘর ইউনিয়ন নির্বাচন বিষয়ে এখনো আদালত কিংবা নির্বাচন কমিশনের কোন নির্দেশনা পাইনি। তবে শুনেছি নির্বাচনের প্রতিবন্ধকতা সীমানা সংক্রান্ত মামলা খারিজ হয়েছে। আমরা নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা পাওয়ার সাথে সাথে নির্বাচন আয়োজন করব।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» সুনামগঞ্জ -৩ আসনে মনোনয়নযুদ্ধে এক ডজন ‘লন্ডনী’

» জগন্নাথপুরের পাটলীতে নির্বাচনী প্রস্তুতিসভা

» নারায়ণগঞ্জের চাঞ্চল্যকর ৭ খুন মামলার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ

» সাবেক ১০ সেনা কর্মকর্তা যোনদান করলেন গণফোরামে

» এসএসসির ফরম পূরণ অতিরিক্ত টাকা আদায় বন্ধের নির্দেশ শিক্ষামন্ত্রীর

» তারেকের কার্যক্রম আচরণবিধি লঙ্ঘনের মধ্যে পড়ে না : ইসি সচিব

» ঐক্যের ডাক দিলেন জগন্নাথপুরের আ.লীগ পরিবারের অভিভাবক সিদ্দিক আহমদ

» সাভারে নারীসহ তিনজনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

» কাল থেকে দলীয় চড়ান্ত প্রার্থীদের চিঠি দেবে আ.লীগ

» সুনামগঞ্জ-৩ আসনে হ্যাট্রিক নৌকার মাঝি এম এ মান্নান

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

আইনি জটিলতা নিরসন :মীরপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে আর বাঁধা নেই, ইউনিয়নবাসীর আনন্দসভা

বিশেষ প্রতিনিধি ::
সীমানা সংক্রান্ত আইনি জটিলতা নিরসন হওয়ায় সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার মীরপুর ও সিলেটের বিশ^নাথ উপজেলার দশঘর ইউনিয়নে নির্বাচনী হাওয়া বইছে। এদিকে নির্বাচন বঞ্চিত মীরপুর ইউনিয়নবাসী শুক্রবার বিকেল তিন টার দিকে আনন্দসভা করেছেন।
ইউনিয়নবাসীর নিয়ে গঠিত ‘সর্বদলীয় নির্বাচন বাস্তবায়ন পরিষদ’র উদ্যোগে স্থানীয় মীরপুর বাজারে পরিষদের আহবায়ক মাওলানা মহিউদ্দিন এমরানের সভাপতিত্বে ও পরিষদের সদস্য ফয়সল আহমদের পরিচালনায় এতে বক্তব্য রাখেন, মাঈন উদ্দিন খান, নুরুল ইসলাম, আবুল হোসেন, রফিক উদ্দিন, মোজাক্কির হোসেন, মিজানুর রহমনা, জহুর মিয়া, লিতু খান, শামসুজ্জামান শামিম, আনু মিয়া, মঞ্জুরুল আমিন দোয়েল, সুলতান মিয়া প্রমুখ।

এলাকাবাসীর সঙ্গে আলাপ করে জানা যায়, ২০০৩ সালে সর্বশেষ মীরপুর ও দশঘর ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। মীরপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উপজেলা আওয়ামীলীগ বর্তমান সভাপতি আকমল হোসেন চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। আর দশঘর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন বিএনপি নেতা সফিক উদ্দিন। ২০০৮ সালে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশ নিতে মীরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে আকমল হোসেন পদত্যাগ করে নির্বাচনে অংশ নিয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। এর পর থেকে ইউপি সদস্য জমির উদ্দিন ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। অপরদিকে ২০১৩ সালে দশঘর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রাজনৈতিক মামলার আসামি হয়ে যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমালে এ ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ইউপি সদস্য ছাতির মিয়া।
জগন্নাথপুর ও বিশ^নাথ উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্র জানায়, ২০১১ সালের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করা হলে উপজেলার সব’কটি ইউনিয়নের মতো মীরপুর ও দশঘর ইউনিয়নের প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। নির্বাচনী প্রচারনা চলাকালে বিশ^নাথের দশঘর গ্রামের মানিক মিয়া বাদী হয়ে হাইকোটে ওয়ান ইলেভনের সময় সারাদেশে ভোটার তালিকা ও জাতীয় পরিচয়পত্র প্রনয়নকালে মীরপুর ও দশঘর ইউনিয়নের সীমান্তের লহরী গ্রামের কিছু ভোট বিশ^নাথ উপজেলার দশঘর ইউনিয়ন থেকে মীরপুর ইউনিয়নে অর্šÍভুক্ত হওয়ায় ক্ষুব্দ হয়ে সীমানা নির্ধারণ সংক্রান্ত মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আদালত মীরপুর ও দশঘর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন স্থগিতের আদেশ দেন। সেই থেকে উচ্চ আদালতে মামলা চলায় এ দুটি ইউনিয়নে নির্বাচন হচ্ছে না। ২০১৬ সালে সারাদেশে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে ও মীরপুর ও দশঘর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন হয়নি।
মীরপুর ইউনিয়নের সর্বদলীয় নির্বাচন বাস্তবায়ন পরিষদ’র আহবায়ক মাওলানা মহিউদ্দিন এমরান জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, মীরপুর ও দশঘর এ দুটি ইউনিয়নের সীমানা নির্ধারণ নিয়ে হাইকোটের্ বিচারাধীন থাকারিট পিটিশন ৮৫২৬/২০১৩ খারিজ করে দিয়ে আগামী ৬ মাসের মধ্যে ইউনিয়ন দ’ুটিতে নির্বাচন করতে নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বিচারপতি মোাঃ আশরাফুল ইসলাম ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলীর বেঞ্চ গত ২৮ আগষ্ট এই আদেশ দেন। তিনি বলেন, ইউনিয়ন দুটির বাসিন্দাদের মধ্যে আনন্দের বণ্যা দেখা দিয়েছে। ইতিমধ্যে নির্বাচনে আগ্রহী সম্ভাব্য অনেকই প্রার্থীই মাঠে প্রচারনায় নেমে পড়েছেন। দীর্ঘ ১৫ বছর পর নির্বাচনী পরিবেশ তৈরী হওয়ায় ইউনিয়নবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরেছে। তাই আমরা আনন্দ সভা করেছি।
মীরপুর ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জমির উদ্দিন জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, পরিষদের ১৩ জন নির্বাচিত প্রতিনিধিরমধ্যে চেয়ারম্যানপদত্যাগের পর ১২ জন থাকার কথা থাকলেও ৫নং ওয়ার্ড সদস্য আরশ আলী ও ৩নং ওয়ার্ড সদস্য হারুন মিয়া নির্বাচনের দুইবছর পর থেকে যুক্তরাজ্যে চলে যান। গত চার-পাঁচবছর থেকে ১নং ওয়ার্ড সদস্য আব্দুলকাদির ও ৮নং ওয়ার্ড সদস্য আব্দুস ছোবহান অসুস্থ হয়ে পরিষদে আসতে পারছেন না। অন্য আটজনকে নিয়ে জোড়াতালি দিয়ে পরিষদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। তবে তিনি সার্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করছেন বলে জানান।
অপরদিকে বিশ^নাথ উপজেলার দশঘর ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ছাতির মিয়া জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, চেয়ারম্যান সফিক উদ্দিন ও ৫ নং ওয়ার্ড সদস্য সায়েস্তা মিয়া যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমিয়েছেন। এ দু’জন জনপ্রতিনিধি ছাড়া অন্য সবাই আমরা দায়িত্ব পালন করছি। নির্বাচন সংক্রান্ত মামলা খারিজ হয়েছে বলে শুনেছি। এখনো কাগজ পত্র কিছু পাইনি।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান ও বিশ^নাথ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা গোলাম সারোয়ার জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, মীরপুর ও দশঘর ইউনিয়ন নির্বাচন বিষয়ে এখনো আদালত কিংবা নির্বাচন কমিশনের কোন নির্দেশনা পাইনি। তবে শুনেছি নির্বাচনের প্রতিবন্ধকতা সীমানা সংক্রান্ত মামলা খারিজ হয়েছে। আমরা নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা পাওয়ার সাথে সাথে নির্বাচন আয়োজন করব।

© 2018 জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

error: ভাই, কপি করা বন্ধ আছে।