রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৬:০৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে প্রবাসি সংগঠনের উদ্যেগে দরিদ্র মানুষের মধ‌্যে ত্রাণ বিতরণ দিরাইয়ে সংঘর্ষ, গুলিতে নিহত ১, গুলিবিদ্ধসহ আহত ২০ ফ্রান্স আওয়ামী লীগের উদ্যাগে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালিত ভারতীয় মুসলিমদের পাশে থাকার আহবান ভারত থেকে ৯ পণ্য আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার বাংলাদেশের সমাজ মেরামতের দায়িত্ব আলেমদের জগন্নাথপুরে ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাস্টের রিসোর্স সেন্টারের কাজ পরিদর্শনে ট্রাস্টের প্রতিনিধিদল জগন্নাথপুরে একদিনে ১১ জন ডাক্তারের যোগদান জগন্নাথপুরে বেড়িবাঁধের ৩০ প্রকল্প অনুমোদন কাল কাজ শুরু হতে পারে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবসে জগন্নাথপুরে প্রশাসনের উদ্যোগে শ্রদ্ধা নিবেদন ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত

আব্দুস সামাদ আজাদের স্বপ্ন পূরণ করলেন এম এ মান্নান

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ১১ অক্টোবর, ২০১৫
  • ৯২ Time View

স্টাফ রিপোর্টার:: ১৯৯৬ সালে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় এলে জগন্নাথপুর-দক্ষিন সুনামগঞ্জ নিয়ে গঠিত সুনামগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য জাতীয় নেতা আব্দুস সামাদ আজাদ কে পররাষ্ট্রমন্ত্রনালয়ের দায়িত্ব দেয়া হয়। নির্বাচনী এলাকাবাসীসহ সুনামগঞ্জ জেলাবাসীর দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্নের বাস্তবায়ন করতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুস সামাদ আজাদ ১৯৯৮ সাল থেকে স্বল্প সময়ে সুনামগঞ্জবাসীকে রাজধানীতে যাতায়াত করতে পাগলা-জগন্নাথপুর-রানীগঞ্জ-আউশকান্দি-আঞ্চলিক মহাসড়কের স্বপ্ন দেখান। ১৯৯৯ সাল থেকে শুরু হয় সেই স্বপ্নের বাস্তবায়ন। শতকোটি টাকা ব্যায়ে শুরু হয় আঞ্চলিক এই মহাসড়কের কাজ। জমি অধিগ্রহণ থেকে শুরু করে এনিয়ে কত ঝামেলায় পড়তে হয়। জাতীয় এই নেতাকে। যদিও তারপক্ষে স্থানীয় এসব প্রতিকূলতা মোকাবিলা করে সড়কের কাজকে ত্বরান্ধিত করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করেন সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগ সহ-সভাপতি সিদ্দিক আহমদ। তাঁর প্রচেষ্ঠায় রানীগঞ্জ ও জগন্নাথপুরবাসী নিজের জমি সরকারীভাবে অধিগ্রহণ ছাড়াই স্বেচ্ছায় দান করেন এই মহাসড়কের জন্য। জগন্নাথপুর উপজেলা সদর থেকে রানীগঞ্জ বাজার পর্যন্ত পুরো সড়কটি মইয়ার হাওরের ওপর দিয়ে নিতে হয়েছে। ফলে বার বার হুছট খেতে হয়েছে সড়ক নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর কে। বানের পানিতে ভেসে গেছে সেতুসহ সড়কের অংশ বিশেষ। ২০০১ সালে ক্ষমতার পালা বদলে সেই স্বপ্ন ভেঙ্গে খান খান হয়ে যায়। চারদলীয় জোট সরকার ক্ষমতায় এসেই এই মহাসড়কের প্রয়োজনীয়তা নিয়ে প্রশ্ন তুলে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়া হয়। সংসদ সদস্য হিসেবে প্রবীণ এই আওয়ামীলীগ নেতার কিছু করার ছিল না। জীবনের শেষ সায়েন্সে এসে যখন তিনি হাসপাতালে মৃত্যু যন্ত্রনায় কাতর তখন তাকে দেখতে যান তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। সেই সময় তিনি তার স্বপ্নের পাগলা-জগন্নাথপুর-রানীগঞ্জ-আউশকান্দি আঞ্চলিক মহাসড়কের অসমাপ্ত কাজ শেষ করার আকুতি জানান। বেগম জিয়া তাকে কথা দিলেও কাজের কাজ আর হয়নি। ২০০৫ সালে তিনি মৃত্যু বরণ করলে এ আসনে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। তখন তাঁর সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে উপ-নির্বাচনে অংশ নেন আওয়ামীলীগ ঘরনার প্রার্থী হিসেবে এম এ মান্নান। নির্বাচনে অল্পভোটে তিনি পরাজিত হলে চারদলীয় জোট প্রার্থী হিসেবে জমিয়ত কেন্দ্রীয় নেতা এডভোকেট শাহীনুর পাশা চৌধুরী সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। অল্পদিনের সংসদ সদস্য হিসেবে চেষ্ঠা করেও তিনিও কোন কাজ করতে পারেননি। পরবর্তীতে ওয়ান ইলেভেনের সরকার উক্ত সড়কে কিছু সংস্কার কাজ শুরু করে। ২০০৮ সালের নির্বাচনে আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসে। আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন এম এ মান্নান। শুরু করেন প্রয়াত জাতীয় নেতা আব্দুস সামাদ আজাদের সেই স্বপ্নের বাস্তবায়ন। অসমাপ্ত কাজ আবার শুরু হয়। আবার নানা প্রাকৃতিক প্রতিবন্ধকতা। বানের পানিতে ভেসে যায় সেতু। কাজ বার বার পেছায় হাল ছাড়েনি তিনি। সর্বশেষ একনেকে ওই সড়কটি অর্ন্তভূক্ত করে ৫২ কোটি টাকা অনুমোদন করান। প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার তালিকায় নাম তুলেন এই মহাসড়কের। তারপরও কাজ চলে ধীরগতিতে। এঅবস্থায় আবারও জাতীয় সংসদ নির্বাচন। আওয়ামীলীগ প্রার্থী হিসেবে তুমুল প্রতিদ্বন্ধিতা করে দ্বিতীয় বারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পান। এবার কাজে গতি আসে। অসমাপ্ত কাজ শেষ করতে শুরু হয় তৎপরতা। রানীগঞ্জে কুশিয়ারা নদীতে সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নিয়ে ১২৭ কোটি টাকা একনেকে অনুমোদন করান মন্ত্রী। সেই সেতুর টেন্ডার হয়েছে। এবার উক্ত সড়ক দিয়ে ঢাকা যাওয়ার পালা। সেতু হতে তিন বছর সময় লাগবে। তাই রানীগঞ্জে ফেরী সার্ভিস চালু করে ঢাকা যেতে হবে। আনুসাঙ্গিক অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করে শনিবার চালু করা হয় ফেরী। এখন ওই সড়ক দিয়ে সরাসরি রাজধানীতে যাতায়াতে আর কোন প্রতিবন্ধকতা নেই। জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রবীণ নেতা নুরুল ইসলাম বলেন, জাতীয় নেতা আব্দুস সামাদ আজাদ শুরু করেছিলেন আর আমাদের বর্তমান মন্ত্রী আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় নেতা এম এ মান্নান সেই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করলেন। রানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মজলুল হক জানান ফেরীপারাপার চালুর মাধ্যমে আঞ্চলিক এ মহাসড়কের সফল যাত্রা শুরু হয়েছে। তিনি এজন্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন,তাঁর মতো নেতা না পেলে আমাদের সেই স্বপ্ন পূরন হতো না। একই অভিমত ব্যক্ত করে ইউনিয়ণ আওয়ামীলীগ সভাপতি সুন্দর আলী বলেন,আমাদের দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়িত হওয়ায় আমরা আনন্দিত। তিনি বলেন, মাঝে মধ্যে হতাশ হয়ে যেতাম জীবদ্দশায় সেই স্বপ্নের বাস্তবায়ন দেখে যেতে পারব কীনা। আজ দেখে যেতে পেরে আমি অভিভূত। কৃতজ্ঞ মাননীয় মন্ত্রী এম এ মান্নানের প্রতি। জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু বলেন, জগন্নাথপুরবাসীর স্বপ্ন আজ পূরণ হয়েছে। আমরা প্রয়াত জাতীয় নেতা আব্দুস সামাদ আজাদের রুহের মাগফেরাত কামনা ও বর্তমান অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ারুল আমীন জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, পাগলা-জগন্নাথপুর-রানীগঞ্জ-আউশকান্দি আঞ্চলিক মহাসড়কটি যান চলাচলের জন্য উন্মুখ হয়ে গেল। এখন জেলা শহর থেকে এ সড়ক দিয়ে সরাসরি রাজধানীতে যাতায়াত করা যাবে কমপক্ষে দুই ঘন্টা সময় বাঁচবে। তিনি জানান, সিলেট, সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জ জেলার বেশ কয়েকটি উপজেলার মানুষ এ সড়ক দিয়ে যাতায়াত করতে পারবে স্বল্প সময়ে। জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তাদীর আহমদ বলেন, এ মহাসড়কটি চালুর মধ্যদিয়ে সুনামগঞ্জবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্নের দোয়ার খুলে গেল। তাই আমরা উক্ত মহাসড়ক কাজ বাস্তবায়নের রূপকার অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান ও সেই সড়কের স্বপ্নদ্রষ্টা প্রয়াত জাতীয় নেতা আব্দুস সামাদ আজাদ, হুমায়ুন রশীদ চৌধুরীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞ। জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আকমল হোসেন বলেন, আওয়ামীলীগের আমলে শুরু হয়েছিল আবার আওয়ামীলীগের আমলেই বাস্তবায়িত হচ্ছে এথেকেই প্রমাণ পাওয়া যায় আওয়ামীলীগ সরকার উন্নয়নের সরকার। তিনি বলেন, প্রয়াত আওয়ামীলীগ জাতীয় নেতা আব্দুস সামাদ আজাদ শুরু করেছিলেন আর শেষ করলেন আওয়ামীলীগ কেন্দ্রীয় নেতা মন্ত্রী এম এ মান্নান তাই জগন্নাথপুরবাসী তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24