সোমবার, ২০ জানুয়ারী ২০২০, ০৭:৫০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
’সরকারি চাকরিতে ৩ লাখ ১৩ হাজার পদ শূন্য’ জগন্নাথপুরের মিরপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলন আজ জগন্নাথপুরের লহরী গ্রামে শীতবস্ত্র বিতরণ আদালতের আদেশে জগন্নাথপুরের বিএন উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষ উৎসব আবারো স্থগিত মিরপুরে বর্নিল সাজে দুইদিন ব্যাপি প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন মৌলভীবাজারে স্ত্রী-মাসহ ৪ জনকে হত্যার পর আত্মহত্যা জগন্নাথপুরে ইউনিয়ন আ,লীগের সম্মেলন সফল করার লক্ষে প্রস্তুতিসভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে ডাক্তার-নার্সের অবহেলায় শিশুর মৃত্যুের অভিযোগে তদন্ত কমিটি গঠন মুঠোফোনে প্রেমের ফাঁদে ফেলে কিশোরগঞ্জের তরুণী কে জগন্নাথপুর এনে ধর্ষণ নান্দনিক আয়োজনে ঐতিহ্যবাহি মিরপুরের উচ্চ বিদ্যালয়ে সাবেক শিক্ষার্থীদের মিলনমেলায় বাঁধাভাঙা উচ্ছ্বাস

একটি নৃশংস হত্যাকাণ্ড নাড়িয়ে দিল জগন্নাথপুরবাসীকে, ক্রাইম সিন ইউনিটের ঘটনাস্থল পরিদর্শন

বিশেষ প্রতিনিধি::
  • Update Time : শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ২১৬৫ Time View

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌরশহরে একটি স্টুডিওর  ভেতরে মালিককে নৃশংসভাবে জবাই করে হত্যার  পর দোকানে তালা লাগিয়ে হত্যাকারীরা পালিয়ে যায়। এঘটনাটি পুরো জগন্নাথপুর উপজেলাবাসীকে নাড়িয়ে দিয়েছে।

লোক মুখে একটাই কথা, কেন এই হত্যাকাণ্ড? কারা মারল তাকে? এসব প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে মানুষের মধ্যে।

শুক্রবার  দুপুরে হত্যাকাণ্ডের শিকার আনন্দ সরকারের মরদেহ ময়না তদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

এর আগের দিনে  গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ৯টায় দিকে সুনামগঞ্জের পুলিশের সিআইডির ক্রাইম সিন ইউনিটের একটি দল ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছে। তবে কোন ধরনের আলামত পাওয়া গেছে এ বিষয়ে সুনিশ্চিত কোন তথ্য পাওয়া  যায়নি।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় দুই বছর পূর্বে নেত্রকোনা জেলার মোহনগঞ্জ থানার বটতলা গ্রামের  সুনিল সরকারের ছেলে আনন্দ সরকার (২৩) জগন্নাথপুর পৌরশহরে কাজের সন্ধানে আসে। বছর খানেক  শহরের একটি স্টুডিও দোকানে কাজ করেন।

প্রায় ৮/৯মাস পূর্বে আনন্দ সরকার জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের পাশে শহরের কামাল কমিউনিটি সেন্টার এলাকায় ভাড়া দোকান নিয়ে ‘আনন্দ ডিজিটাল স্টুডিও’ নামে দোকান পরিচালনা করে আসছিলেন।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানান, গত তিন দিন ধরে আনন্দ সরকারের মোবাইল ফোন  বন্ধ পেয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) দুপুরে তার মা ও বড় ভাই জগন্নাথপুরে খোঁজতে এসে স্টুডিওতে গিয়ে দেখেন তা তালাবদ্ধ। পরে স্থানীয়রা তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে  দেখেন রক্তাক্ত অবস্থায় আনন্দের নিথর দেহ পড়ে আছে।দিনভর পুলিশ ঘটনাস্থল ঘিরে রাখে।এখবর পেয়ে শতশত জনতা ঘটনাস্থলে জড়ো  হন।মুর্হুতের মধ্যে শহর থেকে‌ খবরটি জগন্নাথপুরের সর্বত্র জুড়ে ছড়িযে পড়ে। রাত ৯ টার দিকে সুনামগঞ্জ থেকে পুলিশের ক্রাইম সিন ইউনিট’র একটি সিআইডি দল ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছেন।

পুলিশ জানায় , জবাই করে নৃশংসভাবে আনন্দকে হত্যা করে দোকান ঘরের বাহিরে তালাবদ্ধ করে ঘাতকরা পালিয়েছে।

এদিকে গত ২ ডিসেম্বর স্থানীয় এনজিও সংস্থা আশা, জগন্নাথপুর শাখা থেকে ৩০ হাজার টাকা ঋন উত্তোলন করেন আনন্দ এই তথ্য আশা’র সহকারি ম্যানেজার মনোয়ার হোসেন খান জানিয়েছেন।

নিহতের বড় ভাই জীবন সরকার জানান, তিনদিন ধরে আমার ভাইয়ের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় আমরা দুশ্চিন্তায় ভুগছিলাম। ভাইয়ের খোঁজে এসে তার দোকান ঘরে রক্তাক্ত অবস্থায় মৃত দেহ পড়ে থাকতে দেখতে পাই। কে আমার ভাইকে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে এবং কোন করেছে তা কিছুই বুঝতে পারছি না। এঘটনায তিনি বাদি হয়ে থানায় মামলা করেছেন বলে তিনি জানান।

ঘটনাস্থল থেকে সিআইডি দল কোন ধরনের আলামত পেয়েছে কি না, এবিষয়ে জানতে চাইলে জগন্নাথপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, তদন্তের স্বার্থে এইমু কিছু বলা সম্ভব নয়। তবে স্টুডিও থেকে একটি ডিএসএলআর ক্যামেরা পাওয়া যায়নি বলে নিহতের ভাই দাবীক  এ ব্যাপারে থানায় অজ্ঞাতনামা একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এদিকে আজ বিকেল তিনটার দিকে সহকারি পুলিশ সুপার (জগন্নাথপুর সার্কেল) মাহমুদুল হাসানসহ জগন্নাথপুর থানার একদল পুলিশআবারও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

সহকারি পুলিশ সুপার মাহমুদুল হাসান চৌধুরী জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, জবাই করে স্টুডিওর মালিককে করা হয়েছে হত্যার পর গলায় ফাঁসের মতো কাপড় দিয়ে পেছিয়ে রেখে দোকান তালাবদ্ধ করে দুর্বৃত্তরা পালিয়েছে।

তিনি জানান, দোকানঘরের বিভিন্ন স্থানে রক্তের ছাপ রয়েছে। দ্রুত অপরাধীদের ধরতে পুলিশ গুরুত্বসহকারে মাঠে কাজ করছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24