কৃষিতে বরাদ্দ বেড়েছে সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অব্যাহত রাখতে এবার কৃষি খাতে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে আগের বছরের চেয়ে ৩ হাজার ৫৯৫ কোটি টাকা বরাদ্দ বাড়িয়েছে সরকার।

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে নতুন বছরের জন্য ১৩ হাজার ৯১০ কোটি টাকা বরাদ্দ প্রস্তাব করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। যা মোট বাজেটের ২ দশমিক ৯৯ শতাংশ। আগের বছরের সংশোধিত বাজেটে কৃষি খাতের বরাদ্দ ছিল ১০ হাজার ৩১৫ কোটি টাকা। যা ছিল মোট বাজেটের ২ দশমিক ৭৮ শতাংশ।

কৃষিতে ভর্তুকি কমাতে দাতা সংস্থা ও দেশের কয়েকটি বিদেশী সাহায্য নির্ভর এনজিও চাপ দিলেও সরকার কৃষি উন্নয়ন ও কৃষকের স্বার্থে আমলে নেয়নি তা। ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে কৃষি খাতে বরাদ্দের পাশাপাশি ভর্তুকিও বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। বৈরী প্রকৃতি ও আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানী ও সারের ঊর্ধ্বমুখী মূল্য বিবেচনায় ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে ভর্তুকি ৯ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। গত অর্থ বছরের সংশোধিত বাজেটে যা ছিল ৬ হাজার কোটি টাকা। এ বছর ৩ হাজার কোটি টাকা বাড়ানো হয়েছে। খাদ্য উৎপাদন বাড়াতে বাজেটে কৃষি খাতকে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। খাদে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অব্যাহত ও সবার জন্য খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার এ খাতকে গুরুত্ব দিয়েছে।

বাজেট উপস্থাপনায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, আবাদযোগ্য জমি ক্রমশ কমতে থাকা সত্ত্বেও আমাদের কৃষিবান্ধব নীতিকৌশল ও কর্মসূচি গ্রহণের ফলে কৃষিখাতের উৎপাদন বহুলাংশে বেড়েছে। কৃষি ভর্তুকি, সার-বীজসহ অন্যান্য কৃষি উপকরণ প্রণোদনা ও সহায়তা কার্ড, সেচ সুবিধা ও খামার যান্ত্রিকীকরণ, শস্য বহুমুখীকরণ ও বিপণন, কৃষি পুনর্বাসন সহায়তা ইত্যাদি সফল কার্যক্রমসমূহ আমরা প্রয়োজনীয় মাত্রায় অব্যাহত রাখবো। তবে প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে এক্ষেত্রে দক্ষতা আরো বাড়ানো হবে। ইতোমধ্যে মোবাইল ব্যাংকিং-এর মাধ্যমে নগদ আর্থিক সহায়তা সরাসরি কৃষকের নিকট পৌঁছানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে এবং কৃষি উপকরণ সহায়তা কার্ডধারী কৃষকগণের তালিকা হালনাগাদ করা হচ্ছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» ইসলামী আন্দোলনের নেতা প্রিন্সিপাল মাও. হাবিবুর রহমান আর নেই, বিকেলে জানাজা

» ক্ষমতায় গেলে প্রধানমন্ত্রী কে হবেন, যানতে চাইলেন কূটনীতিকরা

» জগন্নাথপুরের বিভিন্ন পূজা মণ্ডপ পরিদর্শনকালে এমএ মান্নান-শেখ হাসিনার সরকার সকল ধর্মের মানুষের ধর্মীয় উৎসব পালনের নিশ্চয়তা দিয়েছে

» জগন্নাথপুরে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশি কর্নেল সৈয়দ আলী আহমদের গনসংযোগ

» জগন্নাথপুরে প্রতিবন্ধির দোকানঘর পোড়ানোর মামলায় গ্রেফতার -১

» জগন্নাথপুরের ইটাখোলাসহ ১২ খাল খনন কাজ শুরু হচ্ছে

» ইসিতে ইইউ’র প্রতিনিধি দল

» কেরলের শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করতে দেয়া হলো না নারীদের

» সঙ্গীতশিল্পী আইয়ুব বাচ্চু আর নেই

» নতুনত্বের ছোঁয়ায় সজ্জিত জগন্নাথপুর কেন্দ্রীয় পূজা মন্ডপ, উপচেপড়া ভীড় পূর্ণার্থীদের

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

কৃষিতে বরাদ্দ বেড়েছে সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অব্যাহত রাখতে এবার কৃষি খাতে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে আগের বছরের চেয়ে ৩ হাজার ৫৯৫ কোটি টাকা বরাদ্দ বাড়িয়েছে সরকার।

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে নতুন বছরের জন্য ১৩ হাজার ৯১০ কোটি টাকা বরাদ্দ প্রস্তাব করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। যা মোট বাজেটের ২ দশমিক ৯৯ শতাংশ। আগের বছরের সংশোধিত বাজেটে কৃষি খাতের বরাদ্দ ছিল ১০ হাজার ৩১৫ কোটি টাকা। যা ছিল মোট বাজেটের ২ দশমিক ৭৮ শতাংশ।

কৃষিতে ভর্তুকি কমাতে দাতা সংস্থা ও দেশের কয়েকটি বিদেশী সাহায্য নির্ভর এনজিও চাপ দিলেও সরকার কৃষি উন্নয়ন ও কৃষকের স্বার্থে আমলে নেয়নি তা। ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে কৃষি খাতে বরাদ্দের পাশাপাশি ভর্তুকিও বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। বৈরী প্রকৃতি ও আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানী ও সারের ঊর্ধ্বমুখী মূল্য বিবেচনায় ২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে ভর্তুকি ৯ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। গত অর্থ বছরের সংশোধিত বাজেটে যা ছিল ৬ হাজার কোটি টাকা। এ বছর ৩ হাজার কোটি টাকা বাড়ানো হয়েছে। খাদ্য উৎপাদন বাড়াতে বাজেটে কৃষি খাতকে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। খাদে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অব্যাহত ও সবার জন্য খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার এ খাতকে গুরুত্ব দিয়েছে।

বাজেট উপস্থাপনায় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, আবাদযোগ্য জমি ক্রমশ কমতে থাকা সত্ত্বেও আমাদের কৃষিবান্ধব নীতিকৌশল ও কর্মসূচি গ্রহণের ফলে কৃষিখাতের উৎপাদন বহুলাংশে বেড়েছে। কৃষি ভর্তুকি, সার-বীজসহ অন্যান্য কৃষি উপকরণ প্রণোদনা ও সহায়তা কার্ড, সেচ সুবিধা ও খামার যান্ত্রিকীকরণ, শস্য বহুমুখীকরণ ও বিপণন, কৃষি পুনর্বাসন সহায়তা ইত্যাদি সফল কার্যক্রমসমূহ আমরা প্রয়োজনীয় মাত্রায় অব্যাহত রাখবো। তবে প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে এক্ষেত্রে দক্ষতা আরো বাড়ানো হবে। ইতোমধ্যে মোবাইল ব্যাংকিং-এর মাধ্যমে নগদ আর্থিক সহায়তা সরাসরি কৃষকের নিকট পৌঁছানোর উদ্যোগ নেয়া হয়েছে এবং কৃষি উপকরণ সহায়তা কার্ডধারী কৃষকগণের তালিকা হালনাগাদ করা হচ্ছে।

© 2018 জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

error: ভাই, কপি করা বন্ধ আছে।