কেরলের শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করতে দেয়া হলো না নারীদের

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::
কেরলের শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করতে দেয়া হল না নারীদের। অথচ ভারতের সুপ্রিম কোর্টর্ সব বয়সের নারীদের অবাধ প্রবেশাধিকারের রায় দেয়ার পরে বুধ ও বৃহষ্পতিবার চেষ্টা করেও রায় বিরোধী বিক্ষোভকারিদের বাধায় কোনও নারী মন্দিরে প্রবেশ করতে পারেন নি। এদের মধ্যে দুজন নিউইয়র্ক টাইমসের ভারতীয় সংবাদদাতা এবং তার বিদেশি সহকর্মী ছিলেন। প্রথা মেনে পাঁচ দিন ধরে পুজোর জন্য বুধবারই শবরীমালা মন্দির খুলে দেয়া হযেছে। শবরীমালা মন্দিরের পুরোহিতরা কোনও ঋতুবতী নারীকে মন্দিরে প্রবেশ করতে দিতেন না। ফলে ১০ থেকে ৫০ বছরের কোনও নারীর প্রবেশাধিকার এত দিন নিষিদ্ধ ছিল। বহু আন্দোলনের পরে সুপ্রিম কোর্ট এক রায়ে জানিয়েছে, মন্দিরের এই প্রবেশ বিধি মানবাধিকার লঙ্ঘনের সামিল। উপাসনালয়ে সব মানুষের ঢোকার অধিকার থাকা উচিত।
সেই রায়ের পরে বুধবার লিবি সিএস নামে এক সাংবাদিক ও মাধবী নামে অন্ধ্রের বছর ৪০-এর এক মহিলা মন্দিরের উদ্দেশে পায়ে হেঁটে রওনা হলেও বিক্ষোভকারীরা তাঁদের ঘিরে ধরে হেনস্থা করে। পুলিশ তাঁদের উদ্ধার করার পরে দুই মহিলা ফিরে আসেন। বৃহষ্পতিবারও নিউইয়র্ক টাইমসের ভারতীয সংবাদদাতা সুহাসিনী রাজ ও তার বিদেশি সহকর্মীকে নিয়ে মন্দিরের উদ্দেশে পাহাড়ে ওঠার চেষ্টা করলে প্রবল বিক্ষোভ ও অবরোধের মুখে তাদেরও ফিরে আসতে হয়েছে। অথচ মন্দিরের রাস্তায় কড়া প্রহরার ব্যবস্থা রয়েছে। এমনকি বিক্ষোভ ঠেকাতে ১৪৪ ধারা জারি করাও হয়েছে। কিন্তু তবু নারী পুণ্যার্থীদের শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করার বন্দোবস্ত করতে পারেনি প্রশাসন। অভিযোগ, প্রশাসনের কর্তারা নারীদের মন্দিরে না-যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এই কারণেই তাঁরা ফিরে আসতে বাধ্য হযেচেন। ‘শবরীমালা বাঁচাও কমিটি’ নামে একটি সংগঠন আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছিল। বৃহষ্পতিবার গোটা এলাকায় বনধ ডাকা হযেছে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ব্রেক্সিট চুক্তি প্রত্যাখ্যান

» জেলা আইনজীবি সমিতির নির্বাচন, সভাপতি চাঁন মিয়া, সেক্রেটারী সাহারুল

» জগন্নাথপুর ক্রিকেট এসোসিয়েশনের বিরুদ্ধে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করায় সৈয়দপুর ইয়াংম্যান ক্রিকেট ক্লাবকে ৫ বছরের জন্য নিষিদ্ধ

» সামাদ আজাদের ৯৭ তম জন্মবার্ষিকী তাঁর জন্মভূমি জগন্নাথপুরে পালিত

» জগন্নাথপুরে ঘোড়দৌড় সম্পন্ন: মায়ের আদেশকে হারিয়ে রাজমুকুট চ্যাম্পিয়ান, উৎসুক মানুষের ঢল

» যে ১০ ক্যাটাগরির আবেদনকারী কানাডার যেতে পারবে সহজে

» কাদেরকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে বললেন ফখরুল

» ১২ বছর দল না করলে উপজেলায় মনোনয়ন দেবে না আ. লীগ

» জগন্নাথপুরে ভারতীয় নিষিদ্ধ বিড়িসহ র‌্যাবের হাতে আটক-১

» সবার সাথে বন্ধুত্বসুলভ সম্পর্ক রেখেই আমরা চলতে চাই: ড.মোমেন

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

কেরলের শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করতে দেয়া হলো না নারীদের

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::
কেরলের শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করতে দেয়া হল না নারীদের। অথচ ভারতের সুপ্রিম কোর্টর্ সব বয়সের নারীদের অবাধ প্রবেশাধিকারের রায় দেয়ার পরে বুধ ও বৃহষ্পতিবার চেষ্টা করেও রায় বিরোধী বিক্ষোভকারিদের বাধায় কোনও নারী মন্দিরে প্রবেশ করতে পারেন নি। এদের মধ্যে দুজন নিউইয়র্ক টাইমসের ভারতীয় সংবাদদাতা এবং তার বিদেশি সহকর্মী ছিলেন। প্রথা মেনে পাঁচ দিন ধরে পুজোর জন্য বুধবারই শবরীমালা মন্দির খুলে দেয়া হযেছে। শবরীমালা মন্দিরের পুরোহিতরা কোনও ঋতুবতী নারীকে মন্দিরে প্রবেশ করতে দিতেন না। ফলে ১০ থেকে ৫০ বছরের কোনও নারীর প্রবেশাধিকার এত দিন নিষিদ্ধ ছিল। বহু আন্দোলনের পরে সুপ্রিম কোর্ট এক রায়ে জানিয়েছে, মন্দিরের এই প্রবেশ বিধি মানবাধিকার লঙ্ঘনের সামিল। উপাসনালয়ে সব মানুষের ঢোকার অধিকার থাকা উচিত।
সেই রায়ের পরে বুধবার লিবি সিএস নামে এক সাংবাদিক ও মাধবী নামে অন্ধ্রের বছর ৪০-এর এক মহিলা মন্দিরের উদ্দেশে পায়ে হেঁটে রওনা হলেও বিক্ষোভকারীরা তাঁদের ঘিরে ধরে হেনস্থা করে। পুলিশ তাঁদের উদ্ধার করার পরে দুই মহিলা ফিরে আসেন। বৃহষ্পতিবারও নিউইয়র্ক টাইমসের ভারতীয সংবাদদাতা সুহাসিনী রাজ ও তার বিদেশি সহকর্মীকে নিয়ে মন্দিরের উদ্দেশে পাহাড়ে ওঠার চেষ্টা করলে প্রবল বিক্ষোভ ও অবরোধের মুখে তাদেরও ফিরে আসতে হয়েছে। অথচ মন্দিরের রাস্তায় কড়া প্রহরার ব্যবস্থা রয়েছে। এমনকি বিক্ষোভ ঠেকাতে ১৪৪ ধারা জারি করাও হয়েছে। কিন্তু তবু নারী পুণ্যার্থীদের শবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করার বন্দোবস্ত করতে পারেনি প্রশাসন। অভিযোগ, প্রশাসনের কর্তারা নারীদের মন্দিরে না-যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এই কারণেই তাঁরা ফিরে আসতে বাধ্য হযেচেন। ‘শবরীমালা বাঁচাও কমিটি’ নামে একটি সংগঠন আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছিল। বৃহষ্পতিবার গোটা এলাকায় বনধ ডাকা হযেছে।

© 2018 জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

error: ভাই, কপি করা বন্ধ আছে।