রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ০৯:২৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
সুনামগঞ্জে বিতর্কিতদের আওয়ামী লীগে স্হান না দিতে তৃণমূল নেতাদের দাবি প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী পরীক্ষা:জগন্নাথপুরে প্রথম দিনে অনুপস্থিত ২৬০ যুক্তরাজ্য বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে জগন্নাথপুর বিএনপির অভিনন্দন পেঁয়াজ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করলেন কাদের সিদ্দিকী ‘ব্রিটিশ বাংলাদেশী হুজহু’র প্রকাশনা ও এওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানের বারোতম আসর বর্ণাঢ্য আয়োজনে সম্পন্ন পেঁয়াজ খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছি:প্রধানমন্ত্রী জগন্নাথপুর পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড আ.লীগের কমিটি গঠন জগন্নাথপুরে অগ্নিকাণ্ডে নি:স্ব ৮ পরিবার আশ্রয় নিলেন স্কুলে.মানবেতর জীবন যাপন মিশর থেকে কার্গো বিমানে পেঁয়াজ আসছে মঙ্গলবার যুক্তরাজ্যে বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটি

গরুর পরিচয়পত্র

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২৫ এপ্রিল, ২০১৭
  • ৫৮ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: ভারতের সব গরুর কানে লাগানো হবে পরিচয়পত্রের ধাঁচে বিশেষ একটি ট্যাগ। চোরাচালান বন্ধে কেন্দ্রীয় নরেন্দ্র মোদি সরকার এমন উদ্যোগ নিয়েছে। সুপ্রিম কোর্টে এ-সংক্রান্ত একটি প্রস্তাব দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

কলকাতার বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে আজ মঙ্গলবার এ-সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।

ওই প্রস্তাবে বলা হয়েছে, গরুর জন্য ১২ সংখ্যার বিশেষ শনাক্তকরণ নম্বর (ইউআইডি) চালু করতে চায় কেন্দ্রীয় সরকার। প্রতিবেদনে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে গরু পাচারের বিষয়টিও তুলে ধরা হয়েছে। এ ছাড়া পাচার বন্ধে প্রতিটি জেলায় ৫০০ আশ্রয়হীন গরুর জন্য গোশালা নির্মাণেরও প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। শুধু তা-ই নয়, দুধ দেওয়ার বয়স পেরিয়ে যাওয়া গরুদের বিশেষ যত্ন নেওয়ার জন্যও সুপারিশ করা হয়েছে। সরকার মনে করছে, এই প্রকল্পের ফলে গরুর বংশবৃদ্ধি হবে। দুধের উৎপাদন বাড়বে।

হলুদ রঙের বিশেষ ট্যাগটি লাগানো থাকবে গরুসহ বিভিন্ন গবাদিপশুর কানে। এতে অবশ্য গরু বা অন্যান্য পশুর কানেরÿক্ষতি হবে না। পলিইউরেথিনে তৈরি হওয়া এই ট্যাগগুলো সহজে নষ্ট হবে না। গরুর কান থেকে এগুলো সহজে খোলাও যাবে না। একেকটি ট্যাগের খরচ পড়বে আট টাকা করে। ওজন হবে আট গ্রাম। সব মিলিয়ে এই প্রকল্পে খরচ হবে ১৪৮ কোটি রুপি।

সরকারি হিসাব বলছে, ভারতে এখন গরু রয়েছে ৮ কোটি ৮০ লাখ। কেন্দ্রীয় সরকার চাইছে এ বছরের মধ্যেই সব গরুর কানে বিশেষ ট্যাগ বা বিশেষ শনাক্তকরণ নম্বর ঝুলিয়ে দিতে। এই নম্বরগুলো অনলাইন ডেটাবেইস তোলা থাকবে। প্রযুক্তিবিদেরা অনলাইনে ডেটাবেইস আপডেট করবেন।

প্রতিটি গরুর মালিককে একটি করে অ্যানিমেল হেলথ কার্ড দেওয়া হবে। এই কার্ডে মালিকের পরিচয়, গরুকে টিকা বা ওষুধ দেওয়ার সময়, প্রজননের বিবরণের তথ্য লেখা থাকবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24