সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ১২:০৫ অপরাহ্ন

চার বছরের শিশু সেনা সদস‌্য!

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৯ মে, ২০১৯
  • ২৪৩ Time View

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::

মাত্র চার বছর বয়সী শিশু। তাদের হাতে এম-১৬ বন্দুকের মডেল। সেনাবাহিনীর নির্ধারিত পোশাক পরনে। তাদেরকে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে সেনাবাহিনীর মার্চপাস্ট। রাশিয়ার এসব ছেলেমেয়েকে এ প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের স্মৃতি ও দেশপ্রেমকে জাগ্রত রাখতে। বৃহস্পতিবার ক্রেমলিনে সেনাবাহিনীর বার্ষিক কুচকাওয়াজ। তাতে অংশ নেয়ার কথা এসব শিশুর। রাশিয়ায় এটিই সবচেয়ে বড় আয়োজনে সেনাবাহিনীর কুচকাওয়াজ।

এ খবর দিয়েছে লন্ডনের একটি ট্যাবলয়েড পত্রিকার অনলাইন সংস্করণ।

রাশিয়ায় একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। তাতে দাবি করা হচ্ছে, দেশটি ক্রমশ সামরিকীকরণের দিকে ধাবিত হচ্ছে। জার্মানিতে এক সময় হিটলারের ইয়ুথ নামে একটি সেনাবাহিনী গড়ে উঠেছিল। তাতে আট বছর থেকে ১৮ বছরের মধ্যে বয়সীদের সেনা প্রশিক্ষণ দেয়া হতো। সমালোচকরা তার সঙ্গে তুলনা করছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের ‘ইয়ুনারমিয়া’কে। এটি হলো টিনেজ বা কিশোর বয়সীদের নিয়ে গড়ে তোলা পুতিনের কমপক্ষে ৫ লাখ সদস্যের একটি বাহিনী। এর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে।

বৃহস্পতিবারের ইভেন্টকে সামনে রেখে যেসব কিন্ডারগার্টেন ও প্রাইমারি স্কুল পড়ুয়া শিক্ষার্থীদের ব্যতিক্রমী সেনা প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে তা ঘটেছে পাইতিগোরস্ক শহরে। সেখানে শিশুদের সাজানো হয়েছে ইনফ্যানট্রিম্যান, পাইলট, সেনা, আর্টিলারি সেনা ও সেনাবাহিনীর নার্স হিসেবে। স্থানীয় কর্মকর্তারা বলছেন, শিশুদের দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে প্রাণ উৎসর্গের বিষয়ে শিক্ষা দেয়াটা জরুরি। ওই যুদ্ধে কয়েক কোটি সোভিয়েত সেনা ও বেসামরিক মানুষ নিহত হয়েছেন। তাদের প্রতি শ্রদ্ধা ও দেশপ্রেমকে জাগ্রত করাই এসব শিশুকে এমন প্রশিক্ষণ দেয়ার উদ্দেশ্য। রাশিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় সেনাবাহিনীর নির্দেশনায় এসব শিশুকে ওই প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। এমন প্রশিক্ষণ নিয়েছে প্রায় ৫০০ শিশু।

শিক্ষা বিষয়ক প্রধান নাটালিয়া ভাস্যুতিনা বলেছেন, যত দ্রুত দেশপ্রেমের শিক্ষা শুরু হবে ততই তাড়াতাড়ি একটি সুস্থ সমাজ গড়ে উঠবে। এটা কোনো মজা করার গেম নয়। এটা হলো কৃতজ্ঞতা, আমাদের গর্ব।
পাইতিগোরস্ক শহরের মেয়র অ্যান্দ্রে স্ক্রিপনিক বলেছেন, এ প্রশিক্ষণে অংশ নিয়েছে কয়েক শত শিশু। এর অর্থ হলো প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে এখনও বন্ধন রয়েছে। এ বন্ধন বিচ্ছিন্ন হওয়ার নয়। একই রকম প্যারেড অন্য শহরগুলোতে হওয়ার কথা রয়েছে।
আজ বৃহস্পতিবার রেড স্কয়ারে ভিক্টরি ডে’র বিশাল আয়োজনে স্যালুট গ্রহণ করার কথা রয়েছে ভøাদিমির পুতিনের। এ সময় ১৩০০০ সেনা সদস্য বিভিন্ন রকম কুচকাওয়াজ প্রদর্শন করবেন। প্রদর্শন হবে ক্রেমলিনে ক্রমবর্ধমান সামরিক অস্ত্রের ভান্ডার।
কিন্তু সামরিক কুচকাওয়াজে এসব কোমলমতি শিশুদের ব্যবহারের সমালোচনা করেছেন তামারা প্লেটনেভা। তিনি বলেন, তাদেরকে জানিয়ে দিন এটা ঠিক নয়। এসব শিশুদেরকে দিয়ে অস্ত্রসমেত প্যারেড করানো ঠিক নয়। এমন কুচকাওয়াজে এত্ত ছোট্ট শিশুদের জড়িত করবেন না।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24