বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ১১:২৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে হাওরের জরিপ কাজ শেষ, কাজের তুলনায় বরাদ্দ কম, প্রকল্প কমিটি হয়নি একটিও জগন্নাথপুরে ডিজিটাল বাংলাদেশ উপলক্ষ্যে র‌্যালি, চিত্রাঙ্কন ও কুইজ প্রতিযোগিদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ জগন্নাথপুরে শিশু সাব্বির হত্যার ঘটনার গ্রেফতার-১ এনটিভি ইউরোপের জগন্নাথপুর প্রতিনিধি নিয়োগ পেলেন আব্দুল হাই আইসিটি লানিং প্রশিক্ষণে থাইল্যান্ড যাচ্ছেন পরিচালক প্রতাপ চৌধুরী ওয়াজ মাহফিল যেন কারো কষ্টের কারণ না হয় জগন্নাথপুরে সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি গ্রেফতার বাসুদেব মন্দিরে শ্রী অদ্বৈত গীতা সংঘের উদ্যাগে অষ্টপ্রহর ব্যাপী নাম সংকীর্তন শুরু এক সপ্তাহে জগন্নাথপুরের চার যুবকের মৃত্যুতে উদ্বেগ, উৎকণ্ঠা সৎ সাহস থাকলে প্রমাণ নিয়ে বসুন, প্রয়োজনে লাইভ হবে: ইলিয়াস কাঞ্চন

জগন্নাথপুরের ইউনিয়ন নির্বাচনে অংশ নিতেে মাঠে নেমেছেন বসন্তের কোকিলরা

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ২১ মার্চ, ২০১৬
  • ১৩৫ Time View

স্টাফ রিপোর্টার::‘বছরের পর বছর এলাকায় থেকে দিনরাত ইউনিয়নবাসীর সুখে দুঃখে আপদে বিপদে কাজ করি, ইলেকশন আইলে বসন্তের কোকিলের মতো এক শ্রেণির প্রবাসী কালো টাকা নিয়ে দেশে এসে প্রাথী হয়ে ভোটারদের বিভ্রান্ত করেন। সুনামগঞ্জের প্রবাসী অধ্যুষিত জগন্নাথপুর উপজেলায় এবারও ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এক ডজন নবাগত প্রবাসী প্রাথীদের বসন্তের কোকিল আখ্যা দিয়ে রানীগঞ্জ ইউনিয়নের সার্বক্ষণিক দেশে থাকা ইউনিয়ন নির্বাচনের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রাথীরা এমন মন্তব্য করেন। উপজেলাবাসী জানান, প্রবাসী অধ্যুষিত এ উপজেলায় কোন নির্বাচন মানে প্রবাসীদের অংশগ্রহণ। স্থানীয়ভাবে প্রবাসীদের বিভিন্ন অবদান থাকায় জনগণও এসব প্রবাসী প্রাথীদের বিজয়ী করেন। পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, যেসব প্রবাসীর নির্বাচন করার ইচ্ছে থাকে তারা দীঘদিন ধরে টার্গেট করে ইউনিয়নবাসীর সেবায় কাজ করেন। যার ফলশ্রুতিতে ইলেকশনের সময় জনগণ তাদের মূল্যায়ন করেন। গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জগন্নাথপুর উপজেলার সাতটি ইউনিয়নের মধ্যে ৫টিতে প্রবাসী প্রাথীরা জয়ী হন। বিজয়ী চেয়ারম্যান প্রাথীরা জনগনের সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন বিধায় ভোটাররা তাদের নির্বাচিত করেন। এবার আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে এই সাত টি ইউনিয়নে কমপক্ষে এক ডজন প্রবাসী প্রাথী হতে পারেন বলে প্রচারণায় নেমেছেন। তাদের অনেককেই ইউনিয়নবাসী ভালো করে চিনেন না, আবার কেউ কেউ গত নির্বাচনে পরাজিত হয়ে প্রবাসে চলে গিয়ে জনগণের সাথে আর কোন সর্ম্পক রাখেননি। এসব প্রাথীদের এবার বসন্তের কোকিল হিসেবে দেখছেন ভোটাররা। আওয়াজ উঠেছে বসন্তের কোকিলদের প্রধান দুই রাজনৈতিক দল আওয়ামীলীগ ও বিএনপি থেকে যাতে মনোনয়ন না দেয়া হয়। অনুসন্ধানে জানা
গেছে, জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন লাভের জন্য ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফখরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক দ্বীপক কান্তি দে দীপালের নাম রয়েছে। এই দুজই দেশে থেকে ইউনিয়নবাসীর সুখ দুঃখে মাঠে আছেন। আওয়ামীলীগের আরেক প্রাথী সাবেক ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুল হাশিম। যদিও তিনি প্রবাসী কিন্তু ইউনিয়নবাসীর সাথে তাঁর সুসর্ম্পক থাকায় তাকে বসন্তের কোকিল বলা যাচ্ছে না। মাঠে রয়েছে তারও জনসমর্থন। এ ইউনিয়নে বিএনপি থেকে প্রাথী হতে মাঠে এসেছেন গত নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধী প্রবাসী বিএনপি নেতা জাবেদ আলম ও যুক্তরাজ্য থেকে আগত বিএনপি নেতা রফিক মিয়া। অনেকটা বসন্তের কোকিলের মতো ইলেকশনে প্রাথী হচ্ছেন বলে ভোটাররা মনে করছেন।
এ প্রসঙ্গে কলকলিয়া ইউনিয়ন বিএনপি নেতা আঙ্গুর আলী বলেন, আমরা কষ্ট করে রাজনীতি করি আর ইলেকশন আইলে তারা এসে প্রাথী হন। এসব কারণে দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হয় বলে তিনি মন্তব্য করেন। পাটলী ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান সিরাজুল হক যুক্তরাজ্য প্রবাসী হিসেবে গত নির্বাচনে অংশ নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তিনি একজন সফল জনপ্রতিনিধি হিসেবে সুপরিচিত। নির্বাচনের আগে তিনি এলাকাবাসীর সাথে সুসর্ম্পক বজায় রেখে চলেছেন। এছাড়া তাঁর পিতা ছিলেন একজন সুপরিচিত সালিস ব্যক্তিত্ব। একজন যোগ্য প্রাথী হিসেবে তার জুড়ি নেই। যদিও এ ইউনিয়নে সাবেক চেয়ারম্যান আঙ্গুর মিয়া শক্ত প্রতিদ্বন্ধী হিসেবে আবার নির্বাচনে অংশ নিতে চাইছেন। এছাড়াও প্রবাসী আব্দুর রকিব অনেকটা বসন্তের কোকিলের মতো আগমন করেছেন। তিনি দীঘদিন ধরে কোন ধরনের জনসম্পৃক্ততা না রেখে আওয়ামীলীগের প্রাথী হতে লবিং শুরু করেছেন। এ ইউনিয়নে বিএনপির প্রাথী হারুন মিয়া প্রবাসে রয়েছেন। একজন শিক্ষিত ও সজ্জন প্রাথী হিসেবে তার প্রতি মানুষের ভালোবাসা থাকলেও নির্বাচনে পরাজিত হয়ে প্রবাসে চলে গেলে আর কোন যেগাযোগ না থাকায় জনগণ তাকে মেনে নিতে পারে না। এবার রপু মিয়া নামে একজন বিএনপি থেকে প্রাথী হতে পারেন বলে শোনা যাচ্ছে। এখানে মাঠের নেতা হিসেবে জাতীয় পাটির প্রাথী দবির মিয়া রয়েছেন। চিলাউড়া-হলদিপুর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান যুক্তরাজ্য প্রবাসী আরশ মিয়া সফল চেয়ারম্যান হিসেবে আবারও আওয়ামীলীগের প্রাথী হিসেবে নির্বাচন করতে চান। এখানে আওয়ামীলীগের প্রাথী হতে প্রবাস থেকে বসন্তের কোকিলের মতো ছুটে এসেছেন আব্দুল মোমিন। যিনি যুক্তরাজ্যে কর্মজীবি লীগের সাথে সম্পৃক্ত বলে দাবি করছেন। ইউনিয়নবাসী তাকে ভালো করে না চিনলেও তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করতে প্রচারণায় নেমেছেন। অথচ এ ইউনিয়নে প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতা যিনি বছরের পর বছর মানুষের সুখ দুঃখে দিনরাত কাজ করেন সেই শহীদুল ইসলাম বকুলের ভাগ্যে নৌকা জুটবে কীনা সন্দেহ রয়েছে। রানীগঞ্জ ইউনিয়নে এবার নৌকা নিয়ে নির্বাচন করতে চান উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু। যিনি জনপ্রতিনিধি না হলেও অনেক জনপ্রতিনিধির চেয়ে বেশী ইউনিয়নবাসীর উপকারে নিজেকে নিয়োজিত রাখেন। এখানে আওয়ামীলীগের প্রাথী হতে চান বর্তমান চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মজলুল হক। তিনি দীঘদিন ধরে ইউনিয়ন বাসীর সাথে রয়েছেন। দুই বারের জনপ্রতিনিধি হিসেবে তার পরিচিতি রয়েছেন। নির্বাচনে অংশ নিতে আমেরিকা থেকে দেশে এসেছেন আব্দুল হাফিজ। সাবেক এই চেয়ারম্যান গত নির্বাচনে পরাজিত হয়ে আমেরিকা চলে যান। এখন নির্বাচন করতে দেশে এসেছেন। এ ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ছদরুল ইসলাম গত নির্বাচনে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করে ভালো অবস্থানে থাকায় এবার তিনি নৌকা নিয়ে ইলেকশন করতে চান। বিএনপি থেকে আনহার মিয়া, সামছুল হক সহ অনেকেই নির্বাচন করতে চান। যাদের মাঠে কোন তৎপরতা নেই। সৈয়দপুর শাহারপাড়া ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল হাসান উন্নয়নের দিক দিয়ে এগিয়ে থেকে ইউনিয়নবাসীর মন জয় করলেও এবার তাকে টেক্কা দিতে মাঠে নেমেছেন তৈয়ব কামালী নামে এক প্রবাসী। অভিযোগ শুনা যাচ্ছে যুক্তরাজ্যে মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত ওই প্রবাসী শুধু মাত্র অর্থবিত্তের ক্ষমতায় তিনি আওয়ামীলীগের প্রাথী হিসেবে নৌকা নিয়ে নির্বাচন করতে চান। জীবনে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসহযোগী সংগঠনের সাথে নাম না থাকলেও আওয়ামীলীগের অনেক নেতা তাকে গোপনে বা প্রকাশ্যে সহায়তা করছেন। অথচ বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল হাসান একজন সফল জনপ্রতিনিধিই নন ইউনিয়নবাসীর উন্নয়নে তিনি আপোষহীন। সৈয়দপুর-গোয়ালাবাজার রাস্তার নিম্নমানের কাজ নিয়ে প্রতিবাদ করায় একটি প্রভাবশালী গোষ্ঠীর রোষানলে পড়ে তাকে দলের পদ পদবী হারাতে হয়েছে। অথচ ইউনিয়নবাসীর স্বার্থে তিনি কোন আপোষ করেননি। এ ইউনিয়নে যুক্তরাজ্য প্রবাসী বিএনপি নেতা ছালিক মিয়া ও বিএনপি নেতা মোছাব্বির মিয়া মাঠে রয়েছেন। আশারকান্দি ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আইয়ুব খান দেশে থেকেই জনসেবা করার মাধ্যমে দুইবার চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। ইউনিয়নবাসীর সুখে দুঃখে আছেন তিনি । এ ইউনিয়নে অংশ নিতে সাবেক চেয়ারম্যান আমেরিকা প্রবাসী আবু ঈমানী অতি সম্প্রতি মাঠে এসেছেন। তার পরিবারের বিরুদ্ধে স্বাধীনতা ও আওয়ামীলীগের বিরোধিতা অভিযোগ রয়েছে। তার পিতা মতছির আলী রাজাকার ছিলেন যা স্বাধীনতা পরবর্তী প্রকাশিত বিভিন্ন বইয়ে উল্লেখ রয়েছে। গত নির্বাচনের পর থেকে তিনি মাঠেও নেই। ইউনিয়নবাসী তাকে বিএনপি ঘরানার হিসেবে জানলেও জেলা আওয়ামীলীগের এক নেতার প্রভাবে তিনি সদস্যপদ লাভ করেন্। এনিয়ে এলাকায় ব্যাপক প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। এ ইউনিয়নে সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল আহাদ মদরিছ মিয়াও নৌকা নিয়ে নির্বাচন করতে চান। এছাড়াও স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা তরুণ সমাজকর্মী হোসাঈন মোহম্মদ রাজন দলীয় প্রতীকে নির্বাচন করতে মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন। পাইলগাঁও ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আপ্তাব উদ্দিন দেশে থেকেই জনসেবায় লিপ্ত। কিন্তু এ ইউনিয়নে সাবেক দুই জনপ্রতিনিধির জনপ্রিয়তা রয়েছে ব্যাপক। গত নির্বাচনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হাজী সুন্দর উদ্দিন শক্তিশালী প্রাথী হিসেবে অবতীর্ণ হয়েছেন। এছাড়াও সাবেক চেয়ারম্যান প্রবাসী মঞ্জুর আলী আফজলও শক্ত অবস্থানে রয়েছেন। এ ইউনিয়নে বসন্তের কোকিলের মতো প্রাথী হতে মাঠে নেমেছেন বিএনপি নেতা জালাল উদ্দিন। তিনি শোডাউনের মাধ্যমে এলাকায় এলেও তার জনসমর্থন শূন্যের কোঠায়।
সুশাসনের জন্য নাগরিক সুজনের জগন্নাথপুর উপজেলা আহ্বায়ক মানস রঞ্জন রায় বলেন, জনগণের প্রতিনিধিকে যদি জনগণ ভালোভাবে চিনেন না তাহলে জনগণের ভাগ্যে দুঃখ ছাড়া কিছু থাকার কথা নয়। তাই সবার উচিৎ বসন্তের কোকিলদেরকে বর্জন করে সত্যিকারের জনগণের সাথে সম্পৃক্তদের নির্বাচিত করা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24