জগন্নাথপুরের কুশিয়ারা নদীর বুকে চর, যে কোন মুর্হুতে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ার আশঙ্কা

বিশেষ প্রতিনিধি::
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় কুশিয়ার নদীতে চর জেগে উঠায় রানীগঞ্জ ফেরি চলাচল যে কোনো সময় বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এছাড়া নদীপথের নৌযান চলাচল হুমকির মুখে পড়বে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি বিজরিত রানীগঞ্জ বাজারের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়ায় সিলেটের অন্যতম দীর্ঘতম নদী কুশিয়ারা নদী। এ নদীর বুকে রানীগঞ্জ বাজার এলাকায় কিছু অংশে ছোট ছোট চর জেগে উঠেছে। এতে করে নদী পারাপারে রানীগঞ্জ ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে নদীটি খনন না হওয়ায় খরস্রোতা এ নদী তার আপন রূপ হারিয়ে তার বুকে অসংখ্যা চর-ডুবাচরে জেগে উঠছে ।
স্থানীয়রা জানান, জগন্নাথপুর-পাগলা-রানীগঞ্জ-আউশকান্দি আঞ্চলিক মহাসড়কের (আব্দুস সামাদ আজাদ সড়ক) যানবাহন চলাচলের জন্য রানীগঞ্জ বাজার এলাকায় কুশিয়ারা নদীর ওপর প্রায় ৪ বছর পূর্বে ফেরি স্থাপন করা হয়। ফেরিপারাপারের মাধ্যমে জগন্নাথপুরতথা জেলাবাসী সিলেটের বিভিন্ন অঞ্চলের পাশাপাশি রাজধানীসহ দেশের স্থানে যোগাযোগ করে থাকেন। এছাড়াও কুশিয়ারা নৌপথে সিলেটের শেরপুর-বালাগঞ্জ,ওসমানিনগর, আজমেরীগঞ্জ ও ভৈবরসহ বিভিন্নএলাকায় লঞ্চ-কার্গো, ইঞ্চিল চালিত নৌ যানবাহন চলাচল করে আসছে। এরমধ্যে নৌ-বন্দর হিসেবে আজমেরিগঞ্জ ও ভৈরবে বানিজ্যিক হাট হিসেবে ব্যবহার করে আসছেন ব্যবসায়ীরা।
কুশিয়ারা নদীর পাশবর্তী বাসিন্দা রানীগঞ্জ ইউনিয়নের সালেহ আহমদ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, অনেক বছর ধরে কুশিয়ারা নদী
খনন কাজ না হওয়ায় নদীটি নাব্যতা হারাতে বসেছে। বর্ষা মৌসুমে ভারি বৃষ্টিপাতে নদীর তীরবর্তী এলাকার বাসিন্দারা বন্যা কবলিত হয়ে পড়েন। সম্প্রতি নদীর বুকে বিভিন্ন স্থানে চর জেগে
উঠায় ফেরিচলাচল বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়ে উঠেছে। নদীর বুকে চরের কারনে গত মাসদেড় ধরে লঞ্চ ষ্টিমারসহ বড় বড় নৌযান বন্ধ হয়ে পড়েছে।
রানীগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী সুহেল আহমদ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডকমকে বলেন, যুগ যুগ ধরে কুশিয়ারা’র নদীপথে আমরা ভৈরবসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ব্যবসা বানিজ্য চালিয়ে আসছি। গত ৪ বছর আগে পূর্বে রানীগঞ্জ বাজার সংলগ্ন স্থানে ফেরি স্থাপন করায় সড়ক পথেও বানিজ্যিক কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। কুশিরারা নদীতে চর জেগে উঠায় সড়ক ও নৌ-পথে যাতায়াত ব্যবস্থা হুমকির মুখে পড়বে। সম্প্রতিকালে নদীটির বুকে অসংখ্যা চর জেগে উঠায় বড় বড় নৌযান বন্ধ হয়ে গেছে বলে তিনি জানিয়েছেন।
রানীগঞ্জ ফেরীঘাটের ইজাদারদার আবুল কাসেম জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ফেরি পারাপারের মাধ্যমে রানীগঞ্জ-আউশকান্দি আঞ্চলিক মহাসড়ক দিয়ে প্রতিদিনই শত শত যানবাহন চলাচল করে আসছে রাজধানীশহরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে। নদীতে পলি ভরাট হয়ে চর ভেসে উঠায় ফেরিচলাচলে বিঘিœত হচ্ছে। যে কোন সময় বন্ধ হয়ে যেতে পারে ফেরি পারাপার। দ্রত নদী খনন করা না হলেও এ নদীতে বন্ধ হয়ে পড়বে নৌযান চলাচল।
রানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম রানা জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, সিলেটের দীর্ঘতম কুশিয়ারা নদীটি আমাদের জগন্নাথপুরের রানীগঞ্জ, পাইলগাঁও ও আশারকান্দি ইউনিয়নের ওপর দিয়ে বয়ে গেছে। এ নদীটি নাব্যতা হারাতে বসেছে। খননের জন্য আমি উপজেলা প্রশাসনের নিকট দাবী জানিয়েছি।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহফুজুল আলম জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, সস্প্রতি পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের সচিব কবির বিন আনোয়ার স্যার নদীটি পরির্দশন করে খননের জন্য একটি প্রকল্প গ্রহনের নির্দেশ দিয়েছেন। কুশিয়ারা নদীটি খননের জন্য আমরা পদক্ষেপ গ্রহণ কররো।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» আসসালামু আলাইকুম বলে পার্লামেন্টে বক্তব্য দিলেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

» সুনামগঞ্জে ছুরিকাঘাতে আ.লীগ নেতা খুন, আটক-৩

» আ.লীগের দু’পক্ষের গোলগুলি, নিহত ২

» ওসির বিরুদ্ধে ৫ লাখ টাকা ঘুষ দাবী’র অভিয়োগ আ.লীগ প্রার্থীর

» জগন্নাথপুরে ছাত্রলীগের উদ্যোগে যুক্তরাজ্য আ.লীগ নেতাকে সংবর্ধনা

» বালাগঞ্জে নৌকার প্রার্থী মফুর নির্বাচিত

» নেদারল্যান্ডসে যাত্রীবাহী ট্রামে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ১

» রাঙ্গামাটিতে সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ারে প্রিজাইডিং কর্মকর্তাসহ নিহত ৫

» জগন্নাথপুরে ‘বাঁধা’ দেয়ায় হাওরের সড়কের কাজ বন্ধ

» জগন্নাথপুরে সড়ক থেকে মাইক্রোবাস দোকানে, আহত ৩

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

জগন্নাথপুরের কুশিয়ারা নদীর বুকে চর, যে কোন মুর্হুতে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ার আশঙ্কা

বিশেষ প্রতিনিধি::
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় কুশিয়ার নদীতে চর জেগে উঠায় রানীগঞ্জ ফেরি চলাচল যে কোনো সময় বন্ধ হয়ে যাওয়ায় আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এছাড়া নদীপথের নৌযান চলাচল হুমকির মুখে পড়বে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি বিজরিত রানীগঞ্জ বাজারের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়ায় সিলেটের অন্যতম দীর্ঘতম নদী কুশিয়ারা নদী। এ নদীর বুকে রানীগঞ্জ বাজার এলাকায় কিছু অংশে ছোট ছোট চর জেগে উঠেছে। এতে করে নদী পারাপারে রানীগঞ্জ ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে নদীটি খনন না হওয়ায় খরস্রোতা এ নদী তার আপন রূপ হারিয়ে তার বুকে অসংখ্যা চর-ডুবাচরে জেগে উঠছে ।
স্থানীয়রা জানান, জগন্নাথপুর-পাগলা-রানীগঞ্জ-আউশকান্দি আঞ্চলিক মহাসড়কের (আব্দুস সামাদ আজাদ সড়ক) যানবাহন চলাচলের জন্য রানীগঞ্জ বাজার এলাকায় কুশিয়ারা নদীর ওপর প্রায় ৪ বছর পূর্বে ফেরি স্থাপন করা হয়। ফেরিপারাপারের মাধ্যমে জগন্নাথপুরতথা জেলাবাসী সিলেটের বিভিন্ন অঞ্চলের পাশাপাশি রাজধানীসহ দেশের স্থানে যোগাযোগ করে থাকেন। এছাড়াও কুশিয়ারা নৌপথে সিলেটের শেরপুর-বালাগঞ্জ,ওসমানিনগর, আজমেরীগঞ্জ ও ভৈবরসহ বিভিন্নএলাকায় লঞ্চ-কার্গো, ইঞ্চিল চালিত নৌ যানবাহন চলাচল করে আসছে। এরমধ্যে নৌ-বন্দর হিসেবে আজমেরিগঞ্জ ও ভৈরবে বানিজ্যিক হাট হিসেবে ব্যবহার করে আসছেন ব্যবসায়ীরা।
কুশিয়ারা নদীর পাশবর্তী বাসিন্দা রানীগঞ্জ ইউনিয়নের সালেহ আহমদ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, অনেক বছর ধরে কুশিয়ারা নদী
খনন কাজ না হওয়ায় নদীটি নাব্যতা হারাতে বসেছে। বর্ষা মৌসুমে ভারি বৃষ্টিপাতে নদীর তীরবর্তী এলাকার বাসিন্দারা বন্যা কবলিত হয়ে পড়েন। সম্প্রতি নদীর বুকে বিভিন্ন স্থানে চর জেগে
উঠায় ফেরিচলাচল বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়ে উঠেছে। নদীর বুকে চরের কারনে গত মাসদেড় ধরে লঞ্চ ষ্টিমারসহ বড় বড় নৌযান বন্ধ হয়ে পড়েছে।
রানীগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী সুহেল আহমদ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডকমকে বলেন, যুগ যুগ ধরে কুশিয়ারা’র নদীপথে আমরা ভৈরবসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ব্যবসা বানিজ্য চালিয়ে আসছি। গত ৪ বছর আগে পূর্বে রানীগঞ্জ বাজার সংলগ্ন স্থানে ফেরি স্থাপন করায় সড়ক পথেও বানিজ্যিক কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। কুশিরারা নদীতে চর জেগে উঠায় সড়ক ও নৌ-পথে যাতায়াত ব্যবস্থা হুমকির মুখে পড়বে। সম্প্রতিকালে নদীটির বুকে অসংখ্যা চর জেগে উঠায় বড় বড় নৌযান বন্ধ হয়ে গেছে বলে তিনি জানিয়েছেন।
রানীগঞ্জ ফেরীঘাটের ইজাদারদার আবুল কাসেম জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ফেরি পারাপারের মাধ্যমে রানীগঞ্জ-আউশকান্দি আঞ্চলিক মহাসড়ক দিয়ে প্রতিদিনই শত শত যানবাহন চলাচল করে আসছে রাজধানীশহরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে। নদীতে পলি ভরাট হয়ে চর ভেসে উঠায় ফেরিচলাচলে বিঘিœত হচ্ছে। যে কোন সময় বন্ধ হয়ে যেতে পারে ফেরি পারাপার। দ্রত নদী খনন করা না হলেও এ নদীতে বন্ধ হয়ে পড়বে নৌযান চলাচল।
রানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম রানা জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, সিলেটের দীর্ঘতম কুশিয়ারা নদীটি আমাদের জগন্নাথপুরের রানীগঞ্জ, পাইলগাঁও ও আশারকান্দি ইউনিয়নের ওপর দিয়ে বয়ে গেছে। এ নদীটি নাব্যতা হারাতে বসেছে। খননের জন্য আমি উপজেলা প্রশাসনের নিকট দাবী জানিয়েছি।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহফুজুল আলম জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, সস্প্রতি পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের সচিব কবির বিন আনোয়ার স্যার নদীটি পরির্দশন করে খননের জন্য একটি প্রকল্প গ্রহনের নির্দেশ দিয়েছেন। কুশিয়ারা নদীটি খননের জন্য আমরা পদক্ষেপ গ্রহণ কররো।

© 2018 জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

error: ভাই, কপি করা বন্ধ আছে।