শুক্রবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ০২:৫৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে ২২তম ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন সম্পন্ন জগন্নাথপুরে সেই সড়কে ২৩ কোটি টাকার টেন্ডার সম্পন্ন, নতুন বছরের শুরুতেই কাজ শুরু হতে পারে জগন্নাথপুরে ১৫ দিন পর অবশেষে ধান কেনা শুরু জগন্নাথপুরে গলায় ফাঁস দিয়ে দুর্বৃত্তরা হত্যা করল স্টুডিও’র মালিক আনন্দকে সিলেট জেলা আ’লীগের নেতৃত্বে লুৎফুর-নাসির, মহানগরে মাসুক-জাকির প্রতিবন্ধীদের জন্য প্রতিটি উপজেলায় সহায়তা কেন্দ্র: প্রধানমন্ত্রী জগন্নাথপুর পৌরশহরে স্টুডিও দোকানদারের মরদেহ পাওয়া গেছে হিন্দুরাষ্ট্রের পথে ভারত: সংসদে বিজেপি নেতা জামিন শুনানি পেছালো, এজলাসে হট্টগোল, আইনজীবীদের অবস্থান মানবজাতির প্রতি কোরআনের অমূল্য উপদেশ

জগন্নাথপুরের মইয়ার হাওরে ধান কাটার ধুম, কৃষকের সঙ্গে ফসলের মাঠে শিশুরাও

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ৭ এপ্রিল, ২০১৮
  • ৮৮ Time View

আলী আহমদ ::
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরের দ্বিতীয় বৃহৎ মইয়ার হাওরে বোরো ধান কাটার ধুম পড়েছে। শনিবার মইয়ার হাওর সরেজমিনে ঘুরে এমন দৃশ্যে দেখা গেছে।
গত দুই বছর কষ্ঠার্জিত ফসল হারিয়ে কৃষকদের মধ্যে এ সময় হাহাকার ছিল। নিশেহারা হয়ে পড়েন কৃষকরা। শত প্রতিকুলতা ডিঙ্গিয়ে আবারও চাষাবাদ শুরু করেন তারা। এবার ফলন ভালো হওয়ায় কৃষকদের চোখে-মুখে ফুটে উঠেছে আনন্দের ঝিলিক। স্বপ্নের লালিত ফসল গোলায় তোলতে ব্যস্ত এখন কৃষক পরিবার।

স্থানীয় কৃষকরা জানান, দুই বছরের ফসলহারা কৃষকরা এখন ফসল ধানক্ষেত্রের পাকা ফসল কর্তনে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। ধান কাটা, ধান মাড়াই, ধান শুকানো এসব কাজে কৃষক/কৃষানী ও তাদের পরিবারের ছোড় বড় সবাই গোলায় ধান তুলতে সর্বাক্ষনিক কাজ করছেন আনন্দ খুশিতে। চার-পাঁচ দিন আগ থেকে ধান কাটা শুরু হয়েছে এ হাওরে। আরও দশ বারো দিনের মধ্যেই পুরো হাওরের ধানকাটা শেষ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে কৃষকরা জানিয়েছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, শিশু সন্তানরাও ধানক্ষেত্রে সহযোগিতা করছে কৃষকদের। আবহাওয়া অনুকুলে থাকলেও শিলাবৃষ্টির ভয় রয়েছে। তাই পাকাধান কোনভাবে হারাতে রাজি নয় কৃষকরা। পর্যাপ্ত পরিমানে ধান কাটার শ্রমিক না থাকায় ৫/৬জন শ্রমিক ও পরিবারের লোকজন নিয়ে ক্ষেত্রের ধান কাটছেন ভবানীপুর গ্রামের কৃষক তাজ উল্লা।
তিনি জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম’র এ প্রতিবেদক বলেন, অকাল বন্যায় ও শিলাবৃষ্টির তান্ডবে টানা দুই বছর ফসল এক ছটাকও পাইনি। এবার ১৬ কেদার জমিতে বোরো আবাদ করেছি। সব ফসলই পেকে গেছে। তাই পরিবারের লোকজন নিয়ে ধান কাটা শুরু করেছি। দুই বছর পর ফসল দেখে খুশি লাগছে।

আরেক কৃষক উস্তার উল্লাহ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, গত বছর ২৫ কেদারা জমিতে আবাদ করেছিলাম। বন্যারপানিতে বিনষ্ট হয়ে যায় সব ফসল। শত কষ্টের পরও আবার আবাদ শুরু করি। এখন পাকা ধান কর্তন করতে পারায় সকল কষ্ট যেন হারিয়ে গেছে।
হাওরে দেখা হয় যাত্রাপাশা গ্রামের কৃষক বকুল গোপের সঙ্গে। তিনি তার জমিনের পাকা ধান দেখছিলেন। এ সময় তার সঙ্গে আলাপকালে হলে তিনি জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, শ্রমিক সংকটের কারনে একটু বিলম্ব হচ্ছে ধান কাটতে। অনেক খোঁজাখুজির পর অবশেষে আজ শ্রমিক পেয়েছি। আজ (রোববার) ধান কাটা শুরু হবে।
প্রকৃতি অনুকুলে থাকলে হাওরের সব ফসল দশ বারো দিনের মধ্যে কৃষকরা গোলায় ধান তোলতে পারবেন বলে তিনি জানিয়েছেন।

উপজেলার বিভিন্ন হাওর ঘুরে দেখা যায়, মইয়ার হাওরের পাশাপাশি, জগন্নাথপুরের সর্ববৃহ নলুয়া হাওরের এখনও পুরাদমে ধান কাটার উৎসব শুরু হয়নি। সামান্য কিছু উচু অংশে ধান কাটা শুরু করছেন কৃষকরা। আধা-পাকা ধানের শীষ দুলছে। পহেলা বৈশাখ থেকে নলুয়া হাওরে ফসল কাটার ধুম পড়বে বলে জানান কৃষকরা। এছাড়া পিংলার হাওর, ইছগাঁও, নারিকেলতলা, মোমিনপুর হাওরসহ বিভিন্ন হাওরে ধান কাটা চলছে। হাওর বাচাঁও সুনামগঞ্জ বাচাঁও আন্দোলনের জগন্নাথপুর উপজেলা কমিটির আহবায়ক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, মইয়ার হাওরসহ উপজেলার উচু এলাকার কয়েকটি হাওরে ধান কাটা শুরু হয়েছে। এখনও জগন্নাথপুরের প্রধান নলুয়া হাওরের কাচাঁ আধা পাকা ফসল রয়েছে। শ্রমিক সংকটও রয়েছে। তিনি বলেন, এবারের ফসল বাম্পার হবে। তাই কৃষকদের মধ্যে হাসি-খুশি লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা যায়, এবছর উপজেলার নলুয়া, মইয়া ও পিংলার হাওরসহ উপজেলার ছোট বড় ১৫টি হাওরে ২২ হাজার ৫০০ হেক্টর ফসল আবাদ করা হয়েছে। এর মধ্যে মইয়ার হাওরে প্রায় দুই হাজার হেষ্টর বোরো ফসল চাষাবাদের আওতায় আনা হয়েছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শওকত ওসমান মজুমদার জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ফসলহারানো কৃষকরা এখন উৎসব আনন্দে ধান কাটছেন। ধারনা করছি ২০/২৫ দিনের মধ্যেই কৃষকরা হাওরের সব ধান গোলায় তোলতে পারবেন। আমরা কৃষকদের পরার্মশ দিচ্ছি ধান পাকার সঙ্গে সঙ্গে ফসল কর্তন করার জন্য।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24