বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ০৭:৫৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে পরিকল্পনামন্ত্রী-ক্ষমতায় আসতে না পেরে একটি মহল গুজব ছড়াচ্ছে মিরপুর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান শেরীন শপথ নেবেন ২৫ নভেম্বর দক্ষিণ সুরমার একাধিক মামলার আসামি গ্রেফতার সাহাবাদের যুগে শিশুদের শিক্ষায় অধিক গুরুত্ব দেওয়া হতো জগন্নাথপুরের সন্তান অতিরিক্ত সচিব শিশির রায় কে ফুলেল শ্রদ্ধায় চীরবিদায় সিলেটে হিরন মাহমুদ নিপু আটক তারেক জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে জগন্নাথপুরে ছাত্রদলের এতিমদের মধ্যে খাদ্য বিতরণ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত সসীমের অসহায়ত্ব -মোহাম্মদ হরমুজ আলী তারেক জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে জগন্নাথপুরে বিএনপির দোয়া মাহফিল পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান জগন্নাথপুরে কাল আসছেন

জগন্নাথপুরে উৎসাহ উদ্দিপনা ছাড়াই ভোট গ্রহন শেষ, অধিকাংশ ভোট কেন্দ্রগুলো ছিল ফাঁকা

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ৬ মার্চ, ২০১৭
  • ৬৭ Time View

স্টাফ রিপোর্টার :: জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচন শান্তিপূর্ন পরিবেশে সোমবার সম্পন্ন হয়েছে। কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনার পাওয়া যায়নি। তবে এই প্রথমবারের মতো প্রবাসি অধ্যুষিত এ উপজেলায় প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিতি ছিল নিতান্তই কম। ছিলনা ভোটারদের মধ্যে কোন উৎসব উদ্দিপনা। আজ সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টার পর্যন্ত একটানা গ্রহন গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। ভোটের আগের দিন রাতে এ উপজেলা বৈরী আবহাওয়া থাকলেও সকাল থেকে আবহাওয়া অনুকুলে ছিল।

ভোট কেন্দ্র ঘুরে দেখা যায়, সকাল থেকেই প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিত প্রায় শুণ্য। নজরে পড়েনি দীর্ঘ কোন নারী কিংবা পুরুষ ভোটারের লাইন। অধিকাংশ কেন্দ্রই ছিল ফাঁকা। ধারনা ছিল বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বিকাল ২ টা থেকে ৪ টা পর্যন্ত সামান্য সংখ্যা ভোটারদের উপস্থিতি দেখা গেলে কয়েকটি কেন্দ্রে।
ভোটারদের উপস্থিতি কম হওয়ার কারন হিসেবে স্থানীয় ভোটাররা জানিয়েছেন এ নির্বাচন নিয়ে কোন আগ্রহ না থাকায় কেন্দ্রে ভোটারদের উপস্থিত কম হয়েছে।

ভোটাররা জানান, জাতীয় নিবার্চন থেকে শুরু করে স্থানীয় সকল নির্বাচনে এ উপজেলা ব্যাপক উৎসব উদ্দিপনার পাশাপাশি নির্বাচনী উত্তাপে মুখর থাকে উপজেলা। কিন্তু এবারের নির্বাচনে কোনো উৎসাহ উদ্দিপনা ছিলনা।

এদিকে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মুক্তাদীর আহমদ মুক্তা পৌরশহরের ইকড়ছই সিনিয়র মাদ্রাসার ভোট কেন্দ্রের সামনে গনমাধ্যম কর্মীদের নিকট অভিযোগ করে বলেন, স্থানীয় অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম,এ মান্নানের এপিএস আবুল হাসনাত নির্বাচন আচারন বিধি লঙ্গন করে বিভিন্ন ভোট কেন্দ্রে প্রবেশ করে প্রভাব বিস্তার করছেন। তিনি বিষয়টি নির্বাচন রির্টানিং কর্মকর্তাকে জানিয়েছেন।

নির্বাচন সহকারী রির্টানিং অফিসার জগন্নাথপুরের ইউএনও মোহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম কে জানান, ভোটারদের উপস্থিতি কম থাকলেও নির্বাচনের পরিবেশ ছিল খুবই ভাল। কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। ধারনা করছি ৪০ ভাগ ভোট কাষ্টিং হতে পারে।

এ উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা এক লাখ ৬৭ হাজার ৪৯৯ জন। এর মধ্যে পুুরুষ ভোটার ৮৩ হাজার ৬শ ৯২ ও মহিলা ভোটার ৮৩ হাজার ৮শ ৭জন। মোট ৮৭টি ভোট কেন্দ্রের ৪৩২টি বুথে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়।

একটি পৌরসভা ও ৮টি ইউনিয়নে ১৬ জন ম্যাজিষ্ট্রেট দায়িত্বে ছিলেন। আইন শৃংখলা রক্ষায় পুলিশ ৮শ ১৩জন, বিজিবি-৬০জন, র‌্যাব-৩২জন, আনসার ও ভিডিপির ১ হাজার ৪৪ এছাড়াও পুলিশ ও র‌্যাবের সাদা পোষাকে বিপুল সংখ্যক আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী ৯টি স্টাইকিং ফোর্স ৩১ টি মোবাইল টিম দায়িত্বপালনে ছিলেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24