রবিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৮:১২ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে প্রবাসি সংগঠনের উদ্যেগে দরিদ্র মানুষের মধ‌্যে ত্রাণ বিতরণ দিরাইয়ে সংঘর্ষ, গুলিতে নিহত ১, গুলিবিদ্ধসহ আহত ২০ ফ্রান্স আওয়ামী লীগের উদ্যাগে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস পালিত ভারতীয় মুসলিমদের পাশে থাকার আহবান ভারত থেকে ৯ পণ্য আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার বাংলাদেশের সমাজ মেরামতের দায়িত্ব আলেমদের জগন্নাথপুরে ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাস্টের রিসোর্স সেন্টারের কাজ পরিদর্শনে ট্রাস্টের প্রতিনিধিদল জগন্নাথপুরে একদিনে ১১ জন ডাক্তারের যোগদান জগন্নাথপুরে বেড়িবাঁধের ৩০ প্রকল্প অনুমোদন কাল কাজ শুরু হতে পারে শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবসে জগন্নাথপুরে প্রশাসনের উদ্যোগে শ্রদ্ধা নিবেদন ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত

জগন্নাথপুরে নলুয়া হাওরের দু’টি খালের খনন কাজ শুরু হয়নি, কৃষকরা শঙ্কায়

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২৮ জানুয়ারী, ২০১৮
  • ৭৯ Time View

বিশেষ প্রতিনিধি :: জগন্নাথপুরের নলুয়ার হাওরের মইনাখালি ও হামহামি খাল খনন কাজ শুরু হয়নি। স্থানীয় কৃষকরা জানিয়েছেন খননের উপযোগি সময় এখন। কিন্তু কর্তৃপক্ষ কাজ শুরু না করায় শংকিত হয়ে পড়েছেন।
রোববার সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার সর্ববৃৎ নলুয়া হাওর বেষ্ঠিত হামহামি ও মইনাখালি খালে খনন কাজের কোন উদ্যোগ গ্রহন করা হয়নি। কৃষকরা বলছেন, দীর্ঘদিন ধরেই এ দু’ খাল খননের জোর দাবী জানিয়ে আসছেন কৃষকরা। এবার সরকারীভাবে দু’টি খাল খননের সিন্ধান্ত হয়েছে বলে কৃষকরা জানান। তারা মনে করছেন এখনই খননের উপযুক্ত সময়। সঠিক সময়ের মধ্যে কাজ শুরু না হলেও ব্যাহত হবে খনন কার্যক্রম। কারন দেড় মাস দেড় মাসের মধ্যে নদ-নদীগুলোতে পানি বেড়ে গেলে তখন আর কাজ শুরু করা যাবেনা। যার ফলে ফসলের ব্যাপক ক্ষতির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।
স্থানীয় কৃষকরা জানান, নলুয়া হাওরে প্রায় ১০ হাজার বোরো ফসলের চাষাবাদ করা হয়েছে। নলুয়া হাওরের মধ্যভাগ দিয়ে বয়ে গেছে হামহামি ও মইনাখালি খাল। অনেক বছরে ধরে খাল খনন না করায় হাওরের ফসলের ক্ষতির কারন হয়ে দাড়িয়েছে। ফলে সামান্য বৃষ্টিতে হাওরে জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। এমনকি হামহামির স্লুইস গেটের উপর প্রভাব পড়বে বলে মনে করছেন কৃষকরা।
নলুয়া হাওরপাড়ের ভুরাখালি গ্রামের বাসিন্দা কৃষক শাহাদাত মিয়া বলেন, যথা সময়ের মধ্যে খনন করা না হলে হাওরের ফসল হুমকির মুখে পড়বে। অনেক দিন ধরেই আমরা হামহামি খাল খননের দাবী জানিয়ে আসছি। এই খাল খনন করলে আবাদে খুবই ভাল হবে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য রনধীর কান্তি দাস নান্টু জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, মনাইখালি ও হামহামি খাল খনন করলে নলুয়া হাওরে জলাবদ্ধতা হবে না, ম্লুুইস গেটেও পানির প্রভাব পড়বেনা, কৃষকরা উপকৃত হবেন। আমি গতকাল (শনিবার) সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের এসও তোফাজ্জল হোসেন পরির্দশন করে গেছেন। তিনি বলেছেন দ্রুত কাজ শুরু হবে।
সুনামগঞ্জের পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা সুনামগঞ্জ সদরের এসও তোফাজ্জল হোসেনের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের নিদের্শে দু’টি খাল পরির্দশন করেছি। রিপোর্ট দেওয়ার পর অর্থ বরাদ্দ পাওয়ার পরে খনন কাজ শুরু হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24