বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯, ১২:৪৮ পূর্বাহ্ন

জগন্নাথপুরে বহিরাগত নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের যোগদান বাতিলের লক্ষ্য স্থানীয় শিক্ষকের সভা

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮
  • ৫৪ Time View

স্টাফ রিপোর্টার:: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে
প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় উর্ত্তীণ বহিরাগত নিয়োগপ্রাপ্তদের জগন্নাথপুরে যোগদান না দেওয়ার দাবীতে শুক্রবার সকল ১০ চার দিকে স্থানীয় শিক্ষকরা সাধারন সভা করেছেন।

উপজেলার ঘোষগাও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুদীপ ভট্রাচা্র্য্য’র সভাপতিত্বে শহরের ইকড়ছই সরকারী প্রাথমিক বিদ্যলয়ে অনুস্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন পাটলী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আতাহার উদ্দিন, নারিকেলতলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বিজয় কৃষ্ণ ক্ষত্রিয়, শ্রীরামসী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের আব্দুল মালিক, ছিক্কা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রূপক কান্তি দেব, হবিবপুর দক্ষিনপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোপাল চন্দ দাস, সৈয়দপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলমগীর হোসেন, শিক্ষক বিজয় কৃষ্ণ দাস, অনন্ত পাল, নুরুল হক, রুহুল আমিন, শহিদুল ইসলাম উজ্জ্বল,আতাউর রহমান, ফেরদৌস আহমদ, সালিক মিয়া, শাহজাহান সিরাজী, জালাল উদ্দিন, রাজন সুত্রধর, বাপ্পী দে প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, র্দীঘদিন ধরে জগন্নাথপুর উপজেলায় ভুয়া নাগরিক সনদপত্রের মাধ্যমে স্থায়ী বাসিন্দা সেজে বহিরাগতরা প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় উর্ত্তীণের পর যোগদান করেই নিজ এলাকায় চলে যান। ফলে শিক্ষক সংকট লেগেই থাকে। এছাড়া বহিরাগতের দাপটে সরকারী সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন স্থানীয়রা।  স্থানীয়দের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠাতায় জগন্নাথপুরের শিক্ষক সমাজ ঐক্যবদ্ধ। তাই প্রতারনার মাধ্যমে যারা নিয়োগপ্রাপ্ত হয়েছেন তাদেরকে জগন্নাথপুরে যোগদান না দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করা হয়। অন্যতা জগন্নাথপুর উপজেলাবাসীকে সাথে নিয়ে নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনে নামবে শিক্ষক সমাজ।

পরে সভায় উপস্থিত শিক্ষকদের সর্বসম্মতিক্রমে শিক্ষক সুদীপ ভট্রাচার্য়্যকে আহবায়ক, শিক্ষক আতাহার উদ্দিন ও রমেন্দ্র কুমার গোপকে যুগ্ম আহবায়ক করে ২০ সদস্য বিশিষ্ট আহবায়ক কমিটি কমিটি গঠন করা হয়।

উপজেলার ঘোষগাঁও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কমিটির আহবায়ক সুদীপ ভট্রাচার্য্য জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন,
বহিরাগতদের কারনে স্থানীয়রা তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। ভুয়া নাগরিক সার্টিফিকেটের মাধ্যমে জগন্নাথপুরের বাসিন্দা সেজে বহিরাগতরা নিয়োগ নিয়ে কর্মস্থ যোগদান করেই চলে যান নিজ এলাকায়। এতে করে শিক্ষক সংকট দেখা দেয়।
তিনি বলেন, গত ১৪ সেপ্টেম্বর প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ২০১৮ইং সহকারী শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির আলোকে আমরা জানতে পারি জগন্নাথপুর উপজেলায় ভুয়া নাগরিক সার্টিফিকেটের মাধ্যমে চারজন শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় উর্ত্তীণ হয়েছেন। তাদের যোগদান বাতিলের জন্য আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট দাবী জানাব। দাবী উপেক্ষিত হলে আন্দোলনে নামবে শিক্ষক সমাজ।

এব্যাপারে জগন্নাথপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীনের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তাকে পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, অনেক বছর ধরে জগন্নাথপুরে বহিরাগত শিক্ষকদের দৌরাত্ব্য চলছে। এ থেকে পরিত্রান পেথে সাম্প্রতিককালে উপজেলাবাসীর পক্ষে সিলেট বিভাগীয় কমিশনারসগ সরকারী বিভিন্ন উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের বরাবর লিখিত আবেদন করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24