সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৩৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
কেমন ইমাম চাই সুনামগঞ্জে বিতর্কিতদের আওয়ামী লীগে স্হান না দিতে তৃণমূল নেতাদের দাবি প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী পরীক্ষা:জগন্নাথপুরে প্রথম দিনে অনুপস্থিত ২৬০ যুক্তরাজ্য বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে জগন্নাথপুর বিএনপির অভিনন্দন পেঁয়াজ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করলেন কাদের সিদ্দিকী ‘ব্রিটিশ বাংলাদেশী হুজহু’র প্রকাশনা ও এওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানের বারোতম আসর বর্ণাঢ্য আয়োজনে সম্পন্ন পেঁয়াজ খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছি:প্রধানমন্ত্রী জগন্নাথপুর পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড আ.লীগের কমিটি গঠন জগন্নাথপুরে অগ্নিকাণ্ডে নি:স্ব ৮ পরিবার আশ্রয় নিলেন স্কুলে.মানবেতর জীবন যাপন মিশর থেকে কার্গো বিমানে পেঁয়াজ আসছে মঙ্গলবার

জগন্নাথপুরে মৌরসী স্বত্ব ও দখলীয় ভূমি রক্ষার দাবীতে পাচঁ গ্রামবাসীর মানববন্ধন

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ২৩ মে, ২০১৫
  • ১৬০ Time View

আজহারুল হক ভূইয়া শিশু :: জগন্নাথপুর পৌরশহরে মৌরসী স্বত্ব ও দখলীয় ভূমি রক্ষার দাবীতে শনিবার দুপুরে শহরের ইকড়ছই হাউজিং এষ্টেট এলাকায় পাচঁ গ্রামবাসীর উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। এতে হাজী শফিক আলী, আহমেদ কিব্বরিয়া রিংকু, হাজী আব্দুল জব্বার, আফিজ উদ্দিন, ছবীর মিয়া, আব্দুল হাসিম, সুরুজ মিয়া, মকরম আলী, শফিকুল ইসলাম লিলু,আবু লেইছ, জাহির উদ্দিন, প্রবাসি শাহেদ মিয়া , দেলোয়ার হোসেন ভূইয়া, ফিরোজ আলী, জামিল মিয়া, হাসির আলী, সেবুল মিয়াসহ ইকড়ছই, ছিলিমপুর, ভবানীপুর, হবিবপুর, বলবল এই পাচঁ গ্রামের মানুষ অংশ নেন।

গ্রামবাসী জানান, জগন্নাথপুর পৌরসভার ১৭২ নং জে,এল স্থিত ইকড়ছই মৌজায় আমাদের ৫ গ্রামরে শতাধিক পরিবার মৌরসী সম্পত্তি সর্ম্পূন অন্যায় ভাবে সিলেট জোনাল অফিসার ভোগ দখলীয় ভূমি মৃত আছাব আলি ও তার লোকজনের হাতে তুলে দিতে দূরবীসন্ধি মূলক রায় দিয়েছেন ।
১৯৫২-৫৩ সনের ইকড়চই মৌজাস্থিত ২০ একর ভূমি আমাদের পূর্ব পুরুষের নামে এস ,এ রের্কডীয় মালিক হিসাবে রেকর্ডভূক্ত হয়। পরবতীতে ২০০০ সালের চলমান মাঠ জরিপে প্রায় ১০ একর ভূমি আমাদের নামে পুর্নরায় রেকর্ড হয়। বাকী ভূমি গুলো অবৈধ ভাবে বড় অংকের উৎকোচের মাধ্যমে রেকর্ড করে নেন আছাব মিয়ার লোকজন।

এ ভূমিতে ইতিমধ্যে আমাদের দখলীয় বাড়িঘর ,দোকান পাট,মসজিদ ,মক্তব, পাকা-আধাপাকা ও সেমিপাকাসহ স্থাপনা বিদ্যমান রয়েছে। যাহা বৈধ দখলদার হিসাবে আমাদের রেকর্ডীয় কাগজপত্র ও সকল প্রকার বিদ্যৎ বিল পৌরটে´ ও খাজনাসহ নিয়মিত পরিশোধ করে আসছি।ভূমিটি জগন্নাথপুর পৌর এলাকার আঞ্চলিক মহাসড়কের সাথে সংযুক্ত হওয়ায় ভূমির মূল্য অনেক গুন বেড়ে গেছে। যার কারনে এর উপর দৃষ্টি পড়ে ভূমিখেকো আছাব আলী গংদের । তারা সুকৌশলে আমাদের ভূমি ক্রয়ের চেষ্টা শুরু করে । এতে আমাদের লোকজন অপরাগত প্রকাশ করলে আমাদের ভূমি আতœসাৎ করতে বিভিন্ন ভাবে চেষ্টা করে। পরবর্তীতে আংশিক ভূমি আমাদের নামে রেকর্ড হলে স্থানীয় সেটেলম্যান্ট অফিসারের কার্যালয়ের মামলা করলে আছাব আলী গং কোন প্রমানাধী ও দাবিদাবার পক্ষে যৌতিক সাক্ষী-প্রমাণ উপস্থাপন করতে না পারায় তাদের দাবি খারিজ হয়। পরবর্তীতে সিলেট জোনাল সেটেলম্যান্ট অপিসারের কার্যালয়ে এসে মামলাটি গড়ায়। তারা মামলাটি পক্ষে নিতে মরিয়া হইয়া উঠে। সুকৌশলে ভুমি জরিপ ও রেকর্ড অধিদপ্তর ,ঢাকায় মামলাটি স্থানান্তর করলে সে রায়টিও আমাদের পক্ষে রায় ঘোয়ণার পর প্রতিপক্ষ আরও মরিয়া হইয়া উঠে। সিলেট জোনাল অফিসার সুব্রত পাল চৌধুরীর সাথে গভীর সর্ম্পক স্থাপন করে বড় অংকরে উৎকোচের বিনিময়ে সর্ম্পূন অবেধ ভাবে আমাদের বক্তব্য ও কাগজপত্র পর্যালোচনা না করে বেআইনি ভাবে গত ২৯-০৪-১৫ ইং তারিখে আছাব আলী গংদের পক্ষে রায় ঘোষনা করে। এ রায় বাতিলের দাবিতে আমরা সিলেট বিভাগীয় কমিশনাররে মাধ্যমে ভূমি মন্ত্রীর কাছে ৩০-০৪-১৫ ইং তারিখে স্মারকলিপি প্রদান এবং ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের মহা-পরিচালকরের বরাবরের রিভিউ সুযোগ চেয়ে আবেদন করেছি।
স্বার্থনেষী মহলের অপতৎপরতার ও উক্ত রায়ের বিরুদ্ধে নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাতে আমরা মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24