জগন্নাথপুরে হাওরের ফসলরক্ষায় মসজিদে মসজিদে মোনাজাত

স্টাফ রিপোর্টার::
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে বোরো ধান রক্ষায় মসজিদে মসজিদে বিশেষ মোনাজাত করা হয়েছে।  শুকবার জুম্মার নামাজে জগন্নাথপুরের বিভিন্ন মসজিদে এ প্রার্থনা
অনুষ্ঠিত হয়। গত কয়েকদিন ধরে জগন্নাথপুরে ব্যাপক ঝড় বৃষ্টির হচ্ছে। এরমধ্যে গত বরিবাবারে দু’দফা শিলাবৃষ্টির তান্ডবে জমিনের আধা পাকা ধান
ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে হাওরের পাকা ধান রক্ষায় আল্লাহপাকের দরবারে মোনাজাত করা হয় মসজিদগুলোতে।
জগন্নাথপুর উপজেলা সদর জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা আজমল হোসেন জামী জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন,
জগন্নাথপুরের হাওরগুলোতে এখন পাকা আধা পাকা ফসলে মাঠ ভরপুর। গত কয়েকদিন ধরে ঝড় বৃষ্টিতে কৃষকদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছি ফসল নিয়ে। প্রাকৃতিক
বিপর্যয় থেকে ফসলরক্ষায় আমরা আমাদের রিজিকের মালিক আল্লাহপাকের নিকট মোনাজাত করেছি। এরইমধ্যে শিলাবৃষ্টিতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে
বলে তিনি জানিয়েছেন।
উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা নিজাম উদ্দিন জালালী জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, এক ফসলী বোবো ফসলের ওপরই উপজেলাবাসী মূলত নির্ভরশীল। ২০১৭ সালে এ উপজেলায় অকাল বন্যায় হাওরের ফসল হারিয়ে কৃষক পরিবারগুলো মানবেতর জীবন যাপন করেন।
গত বছর ফসল ভালো হলেও এবার শুরুতেই প্রাকৃতিক বিরূপ দেখা দিয়েছে।  হাওরের পাকাধান রক্ষায় আমরা আল্লাহ’র নিকট প্রার্থনা করেছি।

জগন্নাথপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শওকত ওসমান মজুমদার  জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, এবার জগন্নাথপুরের প্রায় ২১ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো ফসল আবাদ করা হয়েছে। এখনও হাওরজুড়ে পাকা আধা পাকা ধানের শীষ দুলছে। বিচ্ছিন্ন ভাবে কিছু কিছু এলাকায় সামান্য পরিবারের জমিনে ধান কাটা শুরু হয়েছে। পুরো ধান পাকতে আরো
এক সপ্তাহের মতো সময় লাগতে পারে। প্রাকৃতিক পরিবেশ অনুকুলে থাকে ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যে ধান গোলায় তোলা সম্ভব।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» পরীক্ষা কেন্দ্রে ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগে আটক-১

» দলকে না জানিয়ে এমপি হিসেবে শপথ নিলেন বিএনপির জাহিদুর

» ‘ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলার সঙ্গে শ্রীলঙ্কা হামলার সম্পর্কের প্রমাণ নেই’

» ক্লাসে শিক্ষকদের সিগারেট-পান নিষিদ্ধ

» জগন্নাথপুরে এক সন্তানের জননীর আত্মহত্যা

» জগন্নাথপুরে নিসচা’র উদ্যোগে লিফলেট বিতরণ

» জগন্নাথপুরের সাবেক ছাত্রলীগ নেতা যুক্তরাজ্য প্রবাসিকে আনহার মিয়াকে সংবর্ধনা প্রদান

» জগন্নাথপুরে সু-সেবা নেটওয়ার্ক কমিটির ত্রিমাসিক পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত

» জগন্নাথপুরে যুক্তরাজ্য প্রবাসি গীতিকার আক্কাছ মিয়াকে সংবর্ধনা প্রদান

» হবিগঞ্জে প্রেমিক হত্যার পর খাটের নিচে মাটিতে পুতে রাখে প্রেমিকা

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

জগন্নাথপুরে হাওরের ফসলরক্ষায় মসজিদে মসজিদে মোনাজাত

স্টাফ রিপোর্টার::
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে বোরো ধান রক্ষায় মসজিদে মসজিদে বিশেষ মোনাজাত করা হয়েছে।  শুকবার জুম্মার নামাজে জগন্নাথপুরের বিভিন্ন মসজিদে এ প্রার্থনা
অনুষ্ঠিত হয়। গত কয়েকদিন ধরে জগন্নাথপুরে ব্যাপক ঝড় বৃষ্টির হচ্ছে। এরমধ্যে গত বরিবাবারে দু’দফা শিলাবৃষ্টির তান্ডবে জমিনের আধা পাকা ধান
ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে হাওরের পাকা ধান রক্ষায় আল্লাহপাকের দরবারে মোনাজাত করা হয় মসজিদগুলোতে।
জগন্নাথপুর উপজেলা সদর জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা আজমল হোসেন জামী জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন,
জগন্নাথপুরের হাওরগুলোতে এখন পাকা আধা পাকা ফসলে মাঠ ভরপুর। গত কয়েকদিন ধরে ঝড় বৃষ্টিতে কৃষকদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছি ফসল নিয়ে। প্রাকৃতিক
বিপর্যয় থেকে ফসলরক্ষায় আমরা আমাদের রিজিকের মালিক আল্লাহপাকের নিকট মোনাজাত করেছি। এরইমধ্যে শিলাবৃষ্টিতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে
বলে তিনি জানিয়েছেন।
উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা নিজাম উদ্দিন জালালী জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, এক ফসলী বোবো ফসলের ওপরই উপজেলাবাসী মূলত নির্ভরশীল। ২০১৭ সালে এ উপজেলায় অকাল বন্যায় হাওরের ফসল হারিয়ে কৃষক পরিবারগুলো মানবেতর জীবন যাপন করেন।
গত বছর ফসল ভালো হলেও এবার শুরুতেই প্রাকৃতিক বিরূপ দেখা দিয়েছে।  হাওরের পাকাধান রক্ষায় আমরা আল্লাহ’র নিকট প্রার্থনা করেছি।

জগন্নাথপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শওকত ওসমান মজুমদার  জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, এবার জগন্নাথপুরের প্রায় ২১ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো ফসল আবাদ করা হয়েছে। এখনও হাওরজুড়ে পাকা আধা পাকা ধানের শীষ দুলছে। বিচ্ছিন্ন ভাবে কিছু কিছু এলাকায় সামান্য পরিবারের জমিনে ধান কাটা শুরু হয়েছে। পুরো ধান পাকতে আরো
এক সপ্তাহের মতো সময় লাগতে পারে। প্রাকৃতিক পরিবেশ অনুকুলে থাকে ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যে ধান গোলায় তোলা সম্ভব।

© 2018 জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

error: ভাই, কপি করা বন্ধ আছে।