শনিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৬:১৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
একটি নৃশংস হত্যাকাণ্ড,নাড়িয়ে দিল জগন্নাথপুরবাসিকে, ক্রাইম সিন ইউনিটের ঘটনাস্থল পরিদর্শন অফিসার্স ক্লাব থেকে রানীগঞ্জের তহশীলদারসহ ৪ জুয়াড়ি গ্রেফতার আজানের মর্মবানী জগন্নাথপুরে ২২তম ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধন সম্পন্ন জগন্নাথপুরে সেই সড়কে ২৩ কোটি টাকার টেন্ডার সম্পন্ন, নতুন বছরের শুরুতেই কাজ শুরু হতে পারে জগন্নাথপুরে ১৫ দিন পর অবশেষে ধান কেনা শুরু জগন্নাথপুরে গলায় ফাঁস দিয়ে দুর্বৃত্তরা হত্যা করল স্টুডিও’র মালিক আনন্দকে সিলেট জেলা আ’লীগের নেতৃত্বে লুৎফুর-নাসির, মহানগরে মাসুক-জাকির প্রতিবন্ধীদের জন্য প্রতিটি উপজেলায় সহায়তা কেন্দ্র: প্রধানমন্ত্রী জগন্নাথপুর পৌরশহরে স্টুডিও দোকানদারের মরদেহ পাওয়া গেছে

জল ঘোলা করে শেষ পর্যন্ত জামায়াতের সঙ্গেই হাত মেলাচ্ছেন ড. কামাল

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ২০ অক্টোবর, ২০১৮
  • ১৩১ Time View

নিউজ ডেস্ক: জামায়াত থাকলে আমার দল কোনো ঐক্য প্রক্রিয়ায় যাবে না। তবে অন্য দলগুলো কী করবে তা বলতে পারছি না। সারা জীবনে কখনো জামায়াতের সঙ্গে যাইনি, শেষ জীবনে এসে সেটা করতে যাব কেন?’- গত ১১ সেপ্টেম্বর রাজধানীতে এক সংবাদ সম্মেলনে ড. কামাল হোসেনের এই বক্তব্যে গণমাধ্যমের শিরোনাম ছিল- ‘জামায়াত সঙ্গে থাকলে বিএনপির সঙ্গে ঐক্য নয়: ড. কামাল’।

তবে ১৩ অক্টোবর বিএনপিকে সঙ্গে নিয়েই ঐক্যের ঘোষণা দেন ড. কামাল হোসেন। ঐক্যের নাম রাখা হয় ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট’। তবে ১৯৭১ সালে পাকিস্তানের পক্ষে অস্ত্র ধরা জামায়াত এখনও বিএনপির সঙ্গেই জোটবদ্ধ আছে। ফলে বর্তমান প্রেক্ষাপটে এ সত্য প্রবলভাবে উচ্চারিত হচ্ছে যে, পরোক্ষভাবে স্বাধীনতাবিরোধীর সঙ্গেই ঐক্য হয়েছে।

এই জোটের আলোচনার শুরু থেকেই ছিল জামায়াত প্রসঙ্গ। ড. কামাল হোসেনও বরাবরই স্বাধীনতাবিরোধীদের সঙ্গে জোটে আপত্তি তুলেছিলেন। কিন্তু ঐক্যের আলোচনায় মধ্যস্থতা করা গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর একটি কৌশলে অবশেষে জামায়াতকে ছাড়ার প্রশ্ন ছাড়াই বিএনপির সঙ্গে জোটে আবদ্ধ হয়েছেন ড. কামাল।

জাফরুল্লাহর কৌশলটি ছিল এমন- বিএনপি ঐক্যবদ্ধ থাকবে জামায়াতের সঙ্গে, আর জাতীয় ঐক্য হবে বিএনপির সঙ্গে। ফলে এখানে জামায়াত কোনো বিষয় নয়। কৌশল মোতাবেক শেষ পর্যন্ত হলোও তাই।

তবে ঐক্যের আলোচনায় মধ্যস্থতাকারী জাফরুল্লাহ চৌধুরী দাবি করেন, ‘জামায়াতের সঙ্গে ঐক্য হয়নি। জামায়াতকে বাদ দিয়েই আমাদের ঐক্য হয়েছে।’ বিএনপির সঙ্গে জামায়াতের জোট থাকার পরও এই ঐক্যে জামায়াত নেই বলার সুযোগ আছে কি না, এই প্রশ্নে জাফরুল্লাহ বলেন, ‘এটা নিয়ে তর্কে যাব না। আগামী নির্বাচনে জামায়াত কোনো ইস্যু হবে না।’

ঐক্যফ্রন্টের আনুষ্ঠানিক যাত্রার পর সংবাদ সম্মেলন শেষে মাহমুদুর রহমান মান্নার প্রতি সাংবাদিকরা প্রশ্ন রাখলে তিনি বলেন, ‘এসব নিয়ে এখন কথা বলার সময় নেই।’

জানতে চাইলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক গৌতম চক্রবর্তী বলেন, ‘বিএনপি এখানে একটি কৌশল করেছে। ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের জন্য তাদের সঙ্গে ঐক্য, আর ভোটের রাজনীতির জন্য জামায়াতকে তাদের দরকার। সেই জায়গা থেকে জামায়াতকে ছাড়ছে না বিএনপি।’

জামায়াত কেনো বিএনপির জন্য গুরুত্বপূর্ণ- সেটিও ব্যাখ্যা করেন এই অধ্যাপক। তিনি বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে জামায়াতের কৌশলগত গুরুত্ব রয়েছে। তারা ক্যাডারভিত্তিক রাজনীতি করে। এছাড়া সারা দেশে ৫০-৬০ আসনে জামায়াতের পাঁচ শতাংশ ভোটে বিএনপির জয়-পরাজয়ের নিয়ামক হিসেবে কাজ করে। বিএনপি জামায়াতকে ছেড়ে ঐক্য করলে সরকারি দল সুবিধা পেত।’

জামায়াতকে রেখে এই ঐক্যের ভবিষ্যত কী?- এমন প্রশ্নে গৌতম চক্রবর্তী বলেন, ‘এই ঐক্যের ভবিষ্যত পূর্বের জোটের মতোই। গণফোরাম এবং যুক্তফ্রন্ট অতীতেও নিজেদের তৃতীয় শক্তি হিসেবে দেখতে চেয়েছিল। কিন্তু সেগুলো কেবল স্বপ্নই রয়ে গেছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24