1. forarup@gmail.com : jagannthpur25 :
  2. jpur24@gmail.com : Jagannathpur 24 : Jagannathpur 24
তাহিরপুরে কাল ভোট, ভোটের হিসেব-নিকেশে নিরব এলাকা - জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর
শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০৮:১২ অপরাহ্ন

তাহিরপুরে কাল ভোট, ভোটের হিসেব-নিকেশে নিরব এলাকা

  • Update Time : সোমবার, ২০ মে, ২০২৪
  • ৪০ Time View

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::

তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রচারণা শেষ হয়েছে। সোমবার রাত ৮টায় প্রচারণা শেষ হয়। প্রচারণার সময়ের মধ্যে প্রার্থীরা ভোটারদের কাছে যাওয়ার চেষ্টা করেছেন। নিজেদের পক্ষে গান তৈরি করে মাইক দিয়ে প্রচার করেছেন গ্রামে গ্রামে। পোস্টার, ব্যানার সাঁটিয়েছেন। প্রচারণায় ডিজিটাল মাধ্যমের ব্যবহারও চোখে পড়ার মতো। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রার্থীদের সমর্থকদের প্রচারণা সরব ছিলো। অনেকে মুঠোফোনে কলের মাধ্যমে সংক্রিয়ভাবে শুভেচ্ছা জানিয়ে ভোট প্রার্থনা করেছেন।
৭ ইউনিয়নের ভোটের হিসেব
প্রচারণার সময়সীমা শেষ হলেও এখন চলছে ভোটের হিসেব-নিকেশ। কে কতো ভোট পেতে পারেন সে হিসেবে গরম প্রতিটি গ্রামের চায়ের দোকান। সাধারণ ভোটারের অনুমান ও সম্ভবনায় এবারের ইউনিয়ন ভিত্তিক ভোটের মানচিত্র উল্লেখ করা হলো।
সবচেয়ে বেশি ভোটার রয়েছেন বাদাঘাট ইউনিয়নে। এই ইউনিয়নে ভোটারের সংখ্যা প্রায় ৩৪ হাজার ৯৪৯টি। ভোটের মানচিত্রে বেশিরভাগ ভোট দখলে নিবেন এই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকবেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন খাঁন। তৃতীয় অবস্থানে থাকবেন উত্তর বড়দল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কাশেম।
ভোটারের সংখ্যার দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়ন। এই ইউনিয়নের ভোটারের সংখ্যা প্রায় ৩৩ হাজার ৬২টি। এই ইউনিয়নে একচেটিয়া ভোট পাবেন এই ইউনিয়নের ৪ বারের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন খাঁন। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকবেন দোয়াত কলম মার্কা নিয়ে বুরহান উদ্দিন। আনারস প্রতীক নিয়ে তৃতীয় অবস্থানে থাকবেন আফতাব উদ্দিন।
প্রায় ২৭ হাজার ৪৩৫টি ভোটার রয়েছেন উত্তর বড়দল ইউনিয়নে। ভোটের মানচিত্রে প্রথম স্থানে থাকবেন এই ইউনিয়নের দুই বারের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম। দ্বিতীয় স্থান দখলে আনারস প্রতীকে আফতাব উদ্দিন ও কাপ পিরিচ প্রতীকে আবুল হোসেন খাঁনের প্রতিদ্বন্দ্বিতা জমবে।
প্রায় ১৬ হাজার ২৭০ ভোটার নিয়ে দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়ন। ভোটের মানচিত্রে প্রথম স্থান দখলে নিবেন কাপ পিরিচ মার্কা নিয়ে আবুল হোসেন খাঁন। দ্বিতীয় অবস্থানে লড়বেন আনারস প্রতীক নিয়ে আফতাব উদ্দিন ও দোয়াত কলম প্রতীক নিয়ে বুরহান উদ্দিন।
তাহিরপুর সদর ইউনিয়নে ১৪ হাজার ৯১৪ ভোটের মধ্যে বেশিরভাগ দখলে নিবেন প্রাক্তন এই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বুরহান উদ্দিন। দ্বিতীয় অবস্থানে থাকবেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন খাঁন। তৃতীয় অবস্থান দখল করবেন বাদাঘাট ইউনিয়নের প্রাক্তন চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন।
দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নে ভোটার রয়েছেন ১৪ হাজার ৯৩৫ জন। এখানে প্রথম স্থান নিয়ে ত্রি-মুখি প্রতিদ্ধন্দ্বিতা হবে। কাপ পিরিচ মার্কায় আবুল হোসেন খাঁন, আনারস প্রতীক নিয়ে আফতাব উদ্দিন ও দোয়াত কলম প্রতীক নিয়ে বুরহান উদ্দিনের সমানে সমান সমর্থক রয়েছে।
সবচেয়ে কম ভোটার রয়েছে বালিজুরী ইউনিয়নে। এখানে ভোটার সংখ্যা প্রায় ১৪ হাজার ৬৫৮টি। এখানে প্রথম স্থান দখলে নিবেন কাপ পিরিচ মার্কায় আবুল হোসেন খাঁন। দ্বিতীয় স্থান নিবেন দোয়াত কলম মার্কায় বুরহান উদ্দিন ও তৃতীয় স্থানে থাকবেন আনারস প্রতীক নিয়ে আফতাব উদ্দিন।

চেয়ারম্যান পদে মোট ৬ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এদের মধ্যে আওয়ামী লীগের ৪ জন, বিএনপির ১ জন, স্বতন্ত্র ১ জন। আওয়ামী লীগের মধ্যে তিন প্রার্থী হওয়ায় নেতাকর্মী সহ ভোটাররা দ্বিধা-দ্বন্দে পড়েছেন। অপরদিকে উপজেলার বিএনপির নেতাকর্মীরা সরাসরি মাঠে না নামলেও তলে তলে নিজ নিজ পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে ভোট প্রার্থনা করছেন। আওয়ামী লীগের বড় একটা অংশ একাট্টা হয়ে মাঠে সরব রয়েছেন। তাদের তার্গেট ভোটাররা যাতে কেন্দ্রে যান এবং ভোট দেন। বিশেষ করে আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দ্বি এখন আওয়ামীলীগ।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেন খান (কাপ পিরিচ), উপজেলা বিএনপির সহ সভাপতি, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান (বহিষ্কৃত) মো. আবুল কাসেম (মোটরসাইকেল), আওয়ামী লীগ নেতা, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন (আনারস), আওয়ামী লীগ নেতা, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান বুরহান উদ্দিন (দোয়াত কলম), উপজেলা আওয়ালীগের সহ সভাপতি অধ্যাপক আলী মুর্তজা (ঘোড়া) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মিঠু রঞ্জন পাল (হেলিক্পটার) ভোটের মাঠে লড়ছেন।

সহিংসতার আশংঙ্কা
বাদাঘাট ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিনের পরিবার ও একই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিনের পারিবারিক দ্বন্দ্ব বহুদিনের। এই দ্বন্দ্বের ছাপ পড়ার সম্ভবনা রয়েছে এবার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে। গেল জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঈগল প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছে সেলিম আহমদ। সেই নির্বাচনে আনারস প্রতীকের আফতাব উদ্দিন বর্তমান সংসদ সদস্য রনজিত চন্দ্র সরকারের পক্ষে প্রচারণায় ছিলেন। সেলিম আহমেদ এর পক্ষে নির্বাচনে কাজ করেছেন তাঁর বড় ভাই পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন ও উত্তর বড়দল ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মাসুক মিয়া। জাতীয় নির্বাচনের প্রভাব পড়েছে এই উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে। ইতোমধ্যে বর্তমান পরিষদের চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিনের পরিবার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হোসেন খাঁনকে সমর্থন দিয়ে শেষ দিনেও প্রচারণার মাঠে ছিলেন। এছাড়াও উত্তর বড়দল ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মাসুক মিয়া নিজাম উদ্দিনের সঙ্গে পারিবারিক আত্মীয়তার সর্ম্পক রয়েছে। এজন্য এই নির্বাচনে তিনি আবুল হোসেন খাঁনকে সমর্থন দিয়েছেন প্রচারণার মাঠে ছিলেন। এজন্য আশংকা করা হচ্ছে আনারস প্রতীকে আফতাব উদ্দিনের নিজ কেন্দ্র সোয়ালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মোল্লাপাড়া ভোট কেন্দ্রে ও শিমুলতলা ভোট কেন্দ্রে গ-গোল হতে পারে।
তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন বলেন, তাহিরপুর উপজেলায় মোট ৫৩টি ভোট কেন্দ্রে ভোটাররা ভোট দেবেন। এরমধ্যে সায়ালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মোল্লাপাড়া ভোট কেন্দ্রে ও শিমুলতলা ভোট কেন্দ্রেসহ মোট ২৬ টি কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।
তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান করুণা সিন্দু চৌধুরী বাবুল বলেন, ২১ তারিখের নির্বাচন উৎসবমুখর পরিবেশে অনুষ্ঠিত হবে। ভোটারদের মাঝেও উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। ভোটাররা নির্বিঘেœ ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেবেন। নির্বাচনে যেই পাশ করুক হাড্ডাহাড্ডি প্রতিযোগিতার মাধ্যমে খুব কম ভোটে বিজয়ী হবে।
তিনি জানান, ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে বাড়তি সর্তকতা রাখা হয়েছে। আসা করি শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

শেয়ার করুন

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩
Design & Developed By ThemesBazar.Com